মানবকল্যাণে বিজ্ঞান রচনা - মানবকল্যাণে বিজ্ঞান | Manob Kollane Biggan

মানবকল্যাণে বিজ্ঞান রচনা - মানবকল্যাণে বিজ্ঞান, Manob Kollane Biggan, মানবকল্যণে বিজ্ঞানের গুরুত্ব, মানবকল্যাণে বিজ্ঞান অনুচ্ছেদ রচনা, রচনা- মানবকল্যাণে বিজ্ঞান

    মানবকল্যাণে বিজ্ঞান রচনা

    ভূমিকা : বিজ্ঞান আজকের বিশ্বের মানুষের কাছে খুলে দিয়েছে বিস্ময়কর সাফল্যের দ্বার । মানুষের জীবনকে সহজ থেকে আরও সহজ করে তােলার কাজে বিজ্ঞানের অবদান সবার ওপরে । আজকের মানবজীবন প্রায় সম্পর্ণভাবে বিজ্ঞাননির্ভর । মানুষের কর্মপদ্ধতি এখন বিজ্ঞান নিয়ন্ত্রিত । মানুষ এখন সমৃদ্ধির স্বপ্ন দেখছে বিজ্ঞানকে ভিত্তি করেই । দিনে দিনে বিজ্ঞান তার আবিষ্কারকে অব্যাহত রেখেছে আর সাধিত হচ্ছে । মানবকল্যাণ । মানবের সেবা ও কল্যাণে বিজ্ঞান সদা তৎপর । 

    বিজ্ঞানের জয়যাত্রা : মানুষের অদম্য আবিষ্কারের নেশা বিজ্ঞানকে করে তুলেছে সভ্যতার বিস্ময়কর উন্নতির হাতিয়ার । যে আদিম মানুষ একদা আগুন আবিষ্কারের আনন্দে উদ্বেল ছিল , সেই মানুষই এখন রকেটে চেপে মহাশূন্যে ভ্রমণ করে । বিজ্ঞানের নব নব আবিষ্কারের ফলে জীবনযাপনে এসেছে অভাবনীয় গতি । জীবনধারণের জন্য প্রয়ােজনীয় প্রত্যেকটি জিনিসই প্রযুক্তিনির্ভর । পৃথিবীর মানুষ একদিন বিজ্ঞান সাধনায় মনােনিবেশ করেছিল তার নিজের প্রয়ােজনে । মানব সমাজের সর্বক্ষেত্রে রয়েছে বিজ্ঞানের গৌরবজনক অলনি । 

    চিকিৎসাক্ষেত্রে বিজ্ঞান : মানুষের রােগ হয় । এ রােগ থেকে মুক্ত হয়ে সে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে চায় । এক্ষেত্রে বিজ্ঞান মানুষকে বাচতে সাহস জোগায় । মরণব্যাধি যক্ষা ও ক্যান্সারের মতাে রােগের প্রতিষেধক ও । আবিষ্কার করে মানুষ চিকিৎসা বিজ্ঞানে আলােড়ন সৃষ্টি করেছে । মানুষের পক্ষে কোনােকালেই মরণকে । ডায় করা সম্ভব নয় । কিন্তু অধিকাংশ অসুখকে জয় করা মানুষের পক্ষে সম্ভব হয়েছে । ওষুধের নব নব । আবিষ্কার মানুষকে বাচতে প্রাণিত করেছে । মানবজীবনের নানা অঙ্গপ্রত্যঙ্গের সমস্যা যাচাইয়ের জন্যে এমন । | সব প্রযুক্তি মানুষ আবিষ্কার করেছে যার সাহায্যে শরীরের অভ্যন্তরের ছবি উঠিয়ে সঠিক রােগ নিরূপণ সম্ভব । হচ্ছে । শুধু চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের এ অসীম অবদানের কথা বিবেচনা করলে মানবকল্যাণে বিজ্ঞানের । অবদানের কথা সহজেই অনুমান করা যায় । 

    যােগাযােগের ক্ষেত্রে বিজ্ঞান : যােগাযােগের ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের সাফল্য মানুষের জীবনকে গতিময় করেছে । দুতগতি সম্পন্ন ট্রেন আবিষ্কার করে মানুষ হাজার কিলােমিটারের পথকে করেছে নিকট । অত্যাধুনিক কনকর্ড বিমান , সাগরের সুবিশাল জাহাজ মানুষের পথের দূরত্বকে কমিয়েছে বিস্ময়করভাবে । আধুনিক টেলিযােগাযােগ তাে বিজ্ঞানের বিরাট সাফল্য । মিনিটের মধ্যে গােটা বিশ্বের যেকোনাে প্রান্তের সংবাদ নিজের হাতের মুঠোয় নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছে । মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে এক স্থানের কোনাে ছবি মােবাইলের বাটন চেপে পৃথিবীর অন্য প্রান্তে পৌছে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে । মানুষের জীবনের পরতে পরতে প্রবেশ করেছে বিজ্ঞান । বিজ্ঞান মহাকাশেই শুধু ব্যস্ত নয় ; ক্ষুদ্র গৃহকোণেও বিজ্ঞান এখন সেবা দিয়ে যাচ্ছে নিরন্তর । 

    বিজ্ঞানের বিস্ময় কম্পিউটার : যেদিন বিজ্ঞান পৃথিবীকে কম্পিউটার দিয়েছে , সেদিন থেকে পৃথিবী তার পুরােনাে চেহারাকে আমূল বদলে ফেলতে সক্ষম হয়েছে । যে কাজ শত শ্রমিকের হাজার ঘণ্টা শ্রমের দ্বারা সম্ভব হতাে সে কাজ মিনিটে করা সম্ভব হচ্ছে কম্পিউটারের কল্যাণে । মানব শ্রমের এ সাশ্রয় পৃথিবীর জন্যে একটি বড় ঘটনা বৈকি ! কম্পিউটারকে কেন্দ্র করে এখন শুধু কঠিন কাজই যে সহজ হচ্ছে তা নয় , অনেক অসম্ভবকে সম্ভব করার জন্যে কম্পিউটার ব্যবহৃত হচ্ছে । মুদ্রণ কাজ থেকে মহাকাশ গবেষণা— এমন কোনাে কাজ নেই যে কাজের সাথে কম্পিউটারকে যুক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না । বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বড় বৈজ্ঞানিক বিস্ময় ইন্টারনেট প্রযুক্তির সেবা পাওয়া যায় কম্পিউটার বা কম্পিউটারের অনুরূপ যন্ত্র ব্যবহার করেই । ইন্টারনেট মানুষকে দিয়েছে সারা বিশ্বে স্বচ্ছন্দভাবে সংযােগ স্থাপর্নের স্বাধীনতা । ঘরে বসেই আজ মানুষ এ প্রযুক্তির সহায়তায় তার সব কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে সক্ষম হয়েছে । 

    মানবকল্যাণে বিদ্যুৎঃ শহরে , নগরে গ্রামে ও পথে প্রান্তরে যত বৈদ্যুতিক বাতি জ্বলে তা বিজ্ঞানেরই এক পৃথিবীর সভ্যতাকে হাজার বছরের পথ এগিয়ে দিয়েছে এ বিদ্যুৎ । বর্তমান বিদ্যুৎ সম্পন্ন পৃথিবী আর বিদ্যুৎহীন একটি পৃথিবী কল্পনা করতে গেলে বিদ্যুতের অবদানকে সহজে অনুমান করা যায় । বিদ্যুৎহীন একটি দিনও কল্পনা করতে গেলে মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে । তাই মানবকল্যাণে বিদ্যুতের বিজ্ঞানের এ অবদানকে অস্বীকার করার কোনাে সুযােগ নেই । 

    জ্ঞানচর্চায় বিজ্ঞান : আধুনিক সময়ে শিক্ষা উৎকর্ষের জন্য মানুষ দ্বারস্থ হচ্ছে বিজ্ঞানের । ফটোস্ট্যাট , প্রিন্টার । ইত্যাদির আবিষ্কার জ্ঞানচর্চাকে সহজতর করেছে । ইন্টারনেট প্রযুক্তির ব্যবহার করে ঘরে বসেই সারা বিশ্বের । বাখবর রাখা , বিখ্যাত লেখকদের বই সংগ্রহ করা বা পড়া ইত্যাদি কাজ করা যাচ্ছে । এমনকি ইন্টারনেট | মানুষ । এছাড়া টেলিভিশন , রেডিও , সংবাদপত্র ইত্যাদির মাধ্যমে মানুষ উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা এবং চিন্তা । প্রযুক্তির মাধ্যমে দূরশিক্ষা পদ্ধতিতে ঘরে বসে বিদেশের বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা গ্রহণ করতে পারছে । চেতনার বিকাশ ঘটাচ্ছে । বিস্ময়কর অবদান ।

    বিজ্ঞান চর্চায় সতর্কতা ; সাম্প্রতিক সময়ে বিজ্ঞান অনেক দূর অগ্রসর হতে পেরেছে । পৃথিবীতে বিজ্ঞান যত বেশি অগ্রসর হবে মানবকল্যাণ তত বেশি সাধিত হবে । কিন্তু আধুনিক সময়ে বিজ্ঞানের সুবিধাসমূহ কাজে লাগিয়ে মানব বিধ্বংসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করছে অসাধু ব্যক্তিরা । যা বিজ্ঞান চর্চার মূল উদ্দেশ্যর সম্পূর্ণ বিপরীত । পৃথিবীকে ধ্বংস করার জন্যে বিজ্ঞানীরা বিজ্ঞান নিয়ে মেতে ওঠেনি । বরং এর কল্যাণকর দিকটির শতভাগ সেবা পাওয়ার জন্যে এর শুভযাত্রা সূচিত হয়েছিল । মানুষের শুভ বুদ্ধি এবং বিজ্ঞান চর্চা অনাগত দিনেও অব্যহত থাকবে এবং এর সুফলও মানুষ ভােগ করবে সন্দেহ নেই । 

    উপসংহার : বিজ্ঞান উত্তরােত্তর সমৃদ্ধির পথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছে আর মানবসমাজ ভােগ করছে এর সুফল । পৃথিবী যতদিন থাকবে ততদিন কৌতূহলী মানুষ অনুসন্ধানী মনে বিচরণ করে যাবে বিজ্ঞানের মাঠে । মানুষের এ সাধনার মধ্যেই নিহিত আছে মানবের বৃহত্তর কল্যাণ ।

    মানবকল্যাণে বিজ্ঞানের গুরুত্ব 

    Manob Kollane Biggan


    Tag: মানবকল্যাণে বিজ্ঞান রচনা - মানবকল্যাণে বিজ্ঞান, Manob Kollane Biggan, মানবকল্যণে বিজ্ঞানের গুরুত্ব, মানবকল্যাণে বিজ্ঞান অনুচ্ছেদ রচনা, রচনা- মানবকল্যাণে বিজ্ঞান
    Previous Post Next Post


    TOP POST

     

     

    🔽 এস এস সি/দাখিল ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ২০২২ সমাধান দেখতে ক্লিক করুন

    🔽 এইচ এস সি/আলিম ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২২ দেখতে ক্লিক করুন

    🔽 সকল সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান (ষষ্ঠ-নবম শ্রেণীর) দেখতে ক্লিক করুন 

    ☀️আপনার নামের অর্থ জানতে ক্লিক করুন 

    ��এসএসসি সকল বই ও নোট ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন