ভোটার হালনাগাদ কবে হবে ২০২২ কি কি লাগবে | ভোটার হালনাগাদ ২০২২ |নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম


ভোটার হালনাগাদ কবে হবে ২০২২ কি কি লাগবে | ভোটার হালনাগাদ ২০২২ |নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম


আসছালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠকপাঠিকা সবাই কেমন আছেন। আসা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। প্রিয় পাঠকবৃন্ধ আজকে আমরা তোমাদের ভোটার হালনাগাদ ২০২২ নিয়ে আলোচনা করবো। এবং ভোটার হতে হলে কি কি লাগবে সেই বিষয় ও তুলে ধরা হবে। বন্ধুরা তোমরা যারা ভোটার আইডি হালনাগাদ কবে হবে ২০২২ এর সকল তথ্য সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন আমাদের এই পোস্ট তোমাদের উপকারে আসবে। 


 বন্ধুরা ভোটার হালনাগাদ কয়েক বছর পর পর করা হয়। সর্বশেষ ২০১৯ সালে ষষ্ঠ বা মাঠ পর্যায়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়। প্রায় ৩ বছর পর এখন ২০২২ সালে মে ২০ তারিখ থেকে শুরু হয়ে নভেম্বর পর্যন্ত চলবে ভোটার হালনাগাদ ২০২২। এ ছাড়া আপনি চাইলে যে কোন সময় নির্বাচন অফিস গিয়ে আপনার সকল তথ্য দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড বানাতে পারবেন। এই জন্য আপনাকে কিছু ডকুমেন্টস ইউনিয়নের মেম্ভার ও চেয়ারম্যান এর সিল ও সিগনেচার সহ নির্বাচন অফিসে  জমা দিতে হবে। যদি আপনার সকল ডকুমেন্টস সঠিক থাকে তাহলে আপনার ফাইলটি জমা নিয়ে একটি স্লিপ  দেওয়া হবে। এবং পরবর্তীতে কিছু দিন বা মাস পর আপনার মোবাইলে একটি এস এম এস আসবে তখন আপনি নির্বাচন অফিসে গিয়ে ফিঙ্গার ও ছবি তুলা সব সকল কার্যক্রম শেষ করে আসতে পারবেন। এবং এইসব কার্যক্রম শেষ হলে আপনাদের তারা আরো একটি স্লিপ প্রধান করবে। যার পরবর্তী ৭/১০ দিন পর এই স্লিপ দিয়ে আপনি অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন। এবং এই আইডি কার্ড দিয়ে সব কিছু করতে পারবেন। পরবর্তীতে আপনি কিছু মাস পর যখন ইচ্ছা নির্বাচন অফিস থেকে গিয়ে মেইন আইডি কার্ড নিতে পারবেন।

আসুন নরমালি আপনি নিজে আইডি কার্ড নির্বাচন অফিস থেকে বানাতে কি কি লাগবে এক নজরে দেখে নেই।


       
       

    নতুন আইডি কার্ড বানাতে কি কি লাগবে 

    1. অনলাইন জন্ম নিবন্ধন 
    2. JSC/SSC/JSC লেভেল সদন যেটা থাকে না থাকলে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া দিতে হবে।
    3. পিতা-মাতা ও স্বামী/-স্ত্রীর আইডি কার্ড কপি।
    4. বাসার বিদ্যুৎ বিল, হোল্ডিং ট্যাক্সের কপি/ ডিটের কপি।
    5. নাগরিক সনদপত্র। 
    6. বাড়ীওয়ালার আইডি , ভাড়ার রশীদ / ভাড়ার চুক্তিনামা ( ভাড়া বাসায় নিবন্ধন হলে ) 
    7. প্রবাসী হলে পাসপোর্টের সর্বশেষ এরাইভ্যাল ডেট সহ কপি 
    8. অঙ্গিকারনামা। 
    9. দ্বৈত নাগরিক হলে স্বরাষ্ট মন্ত্রনালয় কর্তৃক প্রদত্ত দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদ 
    10.  শনাক্তকারী ( ফরম -২ এর ৩৪,৩৫ ) - বাবা - মা / স্বামী - স্ত্রী 
    11.  যাচাইকারী ( ফরম -২ এর ৪০,৪১,৪২ ) ওয়ার্ড কাউন্সিলর / প্রথম শ্রেনীর গেজেটেড কর্মকর্তা এর সীল সহ স্বাক্ষর।

      

     ভোটার হালনাগাদ কবে হবে ২০২২

    বন্ধুরা ভোটার হালনাগাদ ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে ২০ মে ২০২২ প্রথম ধাপে ১৪টি উপজেলায় নতুন ভোটারের তথ্য সংগ্রহ, মৃত ভোটারের নাম তালিকা থেকে বাদ ও ভোটার স্থানান্তরের কাজ প্রায় শেষ । মোট চার ধাপে এ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে। প্রথম ধাপে ২০ মে হতে ৯ জুন ১৪০টি উপজেলায় তথ্য সংগ্রহ করা হবে। এ সময়ে নির্বাচন কমিশনের তথ্য সংগ্রহকারীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে নতুন ভোটারের তথ্য সংগ্রহ করবেন। এরপর ধাপে ধাপে দেশের বাকি উপজেলাগুলোতে ভোটারদের তথ্য সংগ্রহ ও নিবন্ধনের কার্যক্রম চলবে এ বছরের ২০ নভেম্বর পর্যন্ত৷


    প্রিয় পাঠকবৃন্ধ একটা ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম শেষ করতে কয়েকটি ধাপ পার করতে হয়।

    •  ভোটার তালিকা হালনাগাদের প্রথম ধাপ হচ্ছে বাড়ী বাড়ী গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করা। 
    • তারপর নতুন ভোটারদের ছবি তোলা ও বায়োমেট্রিক তথ্য সংগ্রহ করা হয়। 
    • তারপর নতুন ভোটার তালিকা হালনাগাদ ২০২২ এর সকল ভোটারের খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়। 
    • ভোটার তথ্য হালনাগাদ ২০২২ এর খসড়া তালিকায় যদি কারো তথ্য ভুল থাকে তাহলে তা সম্পূর্ণ ফ্রিতে সংশোধনের কাজ করা হয় এবং সর্বশেষ চুড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রস্তুত করা হয়।

    কিছু উল্লেখযোগ্য তথ্য:

    • প্রথম ধাপের তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম চলবে ৯ জুন পর্যন্ত
    • এরপর ১০ জুন থেকে শুরু হবে নিবন্ধন
    • ২১ জুলাইয়ের মধ্যে এই ধাপের নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ হবে
    • সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে নির্দিষ্ট কেন্দ্রে গিয়ে স্বাক্ষর দিতে হবে এবং তার ১০ আঙুলের ছাপ, চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি এবং ছবি তুলে নিবন্ধন সম্পন্ন করা হবে৷
    • এরপর ধাপে ধাপে দেশের বাকি উপজেলাগুলোতে ভোটারদের তথ্য সংগ্রহ ও নিবন্ধনের কার্যক্রম চলবে এ বছরের ২০ নভেম্বর পর্যন্ত৷
    • যাদের জন্ম ২০০৫ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে, তাদের অন্তর্ভুক্ত করে ভোটার ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে ২০২৩ সালের ২ মার্চ৷
    • যাদের জন্ম ২০০৬  সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে, তাদের অন্তর্ভূক্ত করে ভোটার তালিকা প্রকশ করা হবে ২০২৪ সালের ২ মার্চ৷
    • যাদের জন্ম ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে, তাদের অন্তর্ভূক্ত করে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকশ করা করা হবে ২০২৫ সালের ২ মার্চ৷


    নতুন ভোটার হতে কি কি লাগবে 


    ভোটার তালিকা হালনাগাদ ২০২২ এ নতুন ভোটার হতে হলে যে সকল কাগজপত্র লাগতে পারে সেগুলো নিম্নে উল্লেখ করা হলো:-


    ❖ অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ: নতুন ভোটার হতে হলে অবশ্যই ব্যক্তির জন্ম নিবন্ধন সনদ ভোটার নিবন্ধন ফরমের সাথে জমা দিতে হবে।

    ❖ সার্টিফিকেটের কপি: ভোটার হওয়ার যোগ্য ব্যক্তির যদি সার্টিফিকেট থাকে যেমন- জেডিসি/জেএসসি/এসএসসি ইত্যাদি। তাহলে তার সার্টিফিকেটের কপি নিবন্ধন ফরমের সাথে জমা দিতে হবে।

    ❖ পিতা-মাতার এনআইডি কার্ডের কপি: নতুন ভোটার হতে হলে অবশ্যই আবেদনের সাথে পিতা ও মাতার এনআইডি কার্ডের ফটোকপি জমা দিতে হবে। 

    ❖ নাগরিক সনদ: ভোটার নিবন্ধন ফরমের সাথে অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/পৌর মেয়র কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিক সনদের কপি জমা দিতে পারেন।

    ❖ অঙ্গীকারনামা: নতুন ভোটার হওয়ার ক্ষেত্রে অঙ্গীকারনামা প্রয়োজন হতে পারে। তাই অবশ্যই পূর্বে কখনো ভোটার হইনি মর্মে অঙ্গীকারনামা প্রস্তুত করে আবেদনের সাথে দিয়ে দিতে পারেন। 

    ❖ স্বামী/স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের কপি: নতুন ভোটার হওয়ার যোগ্য ব্যক্তি যদি বিবাহিত হয় তাহলে তাদের ক্ষেত্রে স্বামী/স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের কপি আবেদনের সাথে জমা দেয়া লাগতে পারে।

    উপরোক্ত কাগজপত্রগুলো হলে ভোটার তালিকা হালনাগাদে নতুন ভোটার হওয়া যেতে পারে। এছাড়া সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রদত্ত পরামর্শ অনুযায়ী কাগজপত্র জমা দিতে পারেন।



    টাগঃভোটার হালনাগাদ কবে হবে ২০২২ কি কি লাগবে, ভোটার হালনাগাদ ২০২২, নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম


                                   
    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন  

     

    আপনার নামের অর্থ জানতে ক্লিক করুন