অতিরিক্ত মাসিক বন্ধ করার ঔষধ |মহিলাদের মাসিক বন্ধ করার উপায়| কি খেলে মাসিক বন্ধ হবে

অতিরিক্ত মাসিক বন্ধ করার ঔষধ |মহিলাদের মাসিক বন্ধ করার উপায়|  কি খেলে মাসিক বন্ধ হবে

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠকবৃন্দ আপনাদের সবাইকে Educationblog24.Com এ স্বাগতম। আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতে আপনারা সকলেই ভালো আছেন। বন্ধুরা আমরা সকলেই জানি মেয়েদের মাসিক হওয়াটা স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু এটা আবার অস্বাভাবিক ভাবেও দেখা যায়। যেমন অতিরিক্ত মাসিক হওয়া, মাসিকের অতিরিক্ত বিল্ডিং হওয়া। অনেকদিন পর্যন্ত মাসিক হওয়া এমন সব বিষয়। এসব কারণে মেয়েরা কমবেশি সবাই একটা চিন্তিত হয়ে যায়। অনেকেই গোপনে অনলাইনে এর প্রতিরোধ করার উপায় খোজে। তাদের জন্য এই পোস্টের মাধ্যমে আমরা নিয়ে চলে আসলাম অতিরিক্ত মাসিক বন্ধ করার ঔষধ, মহিলাদের মাসিক বন্ধ করার উপায়, কি খেলে মাসিক বন্ধ হবে এসব বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। আশা করি আমাদের পোস্টে দেওয়া এই তথ্য জানতে পেরে আপনাদের অনেক উপকার হবে। 

বিঃদ্রঃ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ধরনের ঔষধ গ্রহণ করবেন না। 


       
       

    অতিরিক্ত মাসিক বন্ধ করার ঔষধ

    মেয়েদের মাসিক হওয়াটা স্বাভাবিক এসময় তাদের যত্নবান হতে হয় নিজের প্রতি, পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকাটা থাকতে এবং ভালো ভালো পুষ্টিযুক্ত খাবার গ্রহণ করতে হয়। তাছাড়াও তাদের ঔ সময় বিশ্রামের প্রয়োজন হয়।

    মেয়েদের অতিরিক্ত মাসিক হওয়া সম্পর্কে জেনে নি — ২১ দিনের কম সময়ে অথবা ৩৫ দিনের বেশি সময়ে রক্তক্ষরণ হওয়া অথবা ৭ দিনের বেশি সময় ধরে পিরিয়ড থাকলে সেটাকে অতিরিক্ত বা ঘন ঘন মাসিক হওয়া বুঝায়। এটার প্রতিরোধ না করলে পরবর্তীতে শারীরিক অনেক ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। তাছাড়া এমন অবস্থার সৃষ্টি হলে অতিরিক্ত বিল্ডিং হয় এমন ও দেখা যেতে পারে। 

    বিশেষ করে, মাসিকের সময় অস্বাভাবিক স্রাব বা হেভি ফ্লো, অনিয়মিত মাসিক, অনেকদিন ধরে অতিরিক্ত ব্লাড যাওয়া- এই সমস্যাগুলোই বড় কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে। এমন পরিস্থিতিতে জরুরিভাবে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। 

    এক্ষেত্রে আপনার করনীয় —

    ★শারীরিক বিষয়ের সব ধরনের সমস্যা সম্পর্কে সচেতন হন। এবং সব সমস্যা সম্পর্কে ডাক্তার নিকট আলোচনা করুন। 

    ★ অতিরিক্ত মাসিক হলে নিজের বেশি বেশি খেয়াল রাখুন। বিশেষ করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন। প্যাড বা ট্যাম্পন ঘন ঘন বদলান। 

    ★অতিরিক্ত মাসিকের ফলে দেহ থেকে আয়রন বের হয়ে যায় শরীর দূর্বল হয়ে পড়। তাই বেশি বেশি আয়রনযুক্ত ও পুষ্টিকর ভালো খাবার গ্রহণ করুন। 

    ★যেকোনো ধরনের হতাশা বা টেনশন হতে বিরত থাকুন। এবং নিজেকে সামলে রাখুন। 

    ★এই সমস্যায় লজ্জা হতে বিরত হয়ে নিকটস্থ লোকদেরকে সমস্যা সম্পর্কে জানাই এবং ডাক্তার পরামর্শ নিন। 

    ★অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হলে পর্যাপ্ত বিশ্রাম করুন। 

    ★মাসিক শুরু হওয়ার দিন থেকে শেষ হওয়া পর্যন্ত দিনটি হিসাব রাখুন ও কতগুলো প্যাড পরিবর্তন হয়েছে সেটার হিসাব রাখুন এবং অতিরিক্ত মাসিকের কারণে আর কোন কোন সমস্যা দেখা দিয়েছে সেই সম্পর্কে ডাক্তার নিকট আলোচনা করুন। 


    মহিলাদের মাসিক বন্ধ করার উপায় 

    অতিরিক্ত মাসিক বা বিল্ডিং বন্ধ করার জন্য কিছু ঘরোয়া উপায় দেখে নিন —

    ★আয়রন সমৃদ্ধ খাবার (প্রতিনিয়ত পরিমাণ মতো) 

    ★আপনার বর্তমান সমস্যা সম্পর্কে জেনে ডাক্তারি পরামর্শ নেয়া এবং ডাক্তারি পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ সেবন করা প্রয়োজন। 

    ★আ্যাপেল সাইডার ভিনেগার (পানি দ্বারা মিশিয়ে পরিমাণ মতো)

    ★লাল মরিচের গুঁড়ো (কুসুম গরম পানির সাথে মিশিয়ে পরিমাণ মতো) 

    ★দারুচিনি গুড়ো (গরম পানির সাথে মিশিয়ে পরিমাণ মতো)

    ★নিজের শরীরের প্রতি যত্নবান ও সমস্যা সম্পর্কে সচেতন হওয়া। 

    ★নিজেকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা। 

    ★ফল-মূল জাতীয় ভালো কার্যকরী খাবার গ্রহণ করা। 

    তাছাড়াও অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ বন্ধ করার চিকিৎসা পদ্ধতিগুলোর মধ্যে রয়েছে—বিভিন্ন ঔষধ, জন্মনিয়ন্ত্রণে ব্যবহৃত পদ্ধতি ও বিভিন্ন অপারেশন।সেগুলো সম্পর্কে ডাক্তারের নিকট খোলামেলা আলোচনা করে নিন।

    কি খেলে মাসিক বন্ধ হবে

    বিঃদ্রঃ যেকোনো ধরনের ঔষধ কিংবা পদ্ধতি অবলম্বনের ক্ষেত্রে অবশ্যই ভালো ডাক্তারের নিকট পরামর্শ গ্রহণ করুন। 


    Tag: অতিরিক্ত মাসিক বন্ধ করার ঔষধ, মহিলাদের মাসিক বন্ধ করার উপায়, কি খেলে মাসিক বন্ধ হবে

                                   
    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন