৮ম/অষ্টম শ্রেণির/শ্রেণীর ১৯তম সপ্তাহের হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১ | ৮ম/অষ্টম শ্রেণির ১৯তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর/সমাধান ২০২১ হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা || Class 8 Assignment answer 2021 Hinduism and moral education 19th week PDF


    ৮ম/অষ্টম শ্রেণির/শ্রেণীর ১৯তম সপ্তাহের হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১  


    তারিখঃ —

    বরাবর 

    প্রধান শিক্ষক 

    বিদ্যালয়ের নামঃ —

    ঠিকানাঃ —

    বিষয়ঃ আমার পরিবারের সদস্যরা ফাল্গুন মাসে যে বিশেষ ব্রত পালন ছাড়াও অন্যান্য ব্রত পালন নিয়ে আলোচনা ।


    জনাব , 

    আমার পরিবারের সদস্যরা ফাল্গুন মাসে যে ব্রত পালন করেন তা হলো শিব চতুর্দশী । এই ব্রত ফ্লাল্গুন মাসে করা হয় । ফাল্গুন মাসের কৃষ্ণা চতুর্দশীতে এই ব্রত পালন করা হয়।শিব কল্যানময়।তিনি অশুভ শক্তির ধ্বংস করেন এবং শুভ শক্তির রক্ষা করেন।তিনি দুষ্টের দমন । আর সৃষ্টির রক্ষা করে থাকেন । এছাড়াও আরোও বিভিন্ন ব্রত পালন করেন।যথাঃ - শ্রী চন্ডী , বিপদনাসিনী , সন্তোষী , লক্ষী , শীতলা । এছাড়াও আরোও অনেক ব্রতের প্রচলন রয়েছে ।

    ব্রত পালনের উদ্দেশ্য হলো ঈশ্বরের সান্নিধ্য লাভ করা।ব্রত পালনের মধ্যমে আমরা ঈশ্বরকে সন্তুষ্ট করার মাধ্যমে আর্শিবাদ অর্জন করি।আমরা আমাদের প্রর্থণা ও চাওয়া - পাওয়া ঈশ্বরের নিকট সমর্পণ করি।আমাদের মনের সকল অশুভ চিন্তা ও শক্তিকে ত্যাগ করি।ব্রত পালনের মূল উদ্দেশ্যই হলো ঈশ্বরকে সন্তুষ্ট করা ।

    নিচে ৩ টি ব্রতের সম্পর্কে আলোচনা করা হলোঃ

    ১. শিব চতুর্দশীঃ প্রতিটি ব্রত পালনের নিময় ভিন্ন হয়ে থাকে।শীব চতুর্দশী পালন করতপ হলে । আগের দিন সংযম করতে হয়।তারপর চতুর্দশীর দিন উপবাস থেকে পূজা করতে হয় । প্রথম প্রহরে দুধ দিয়ে স্নান করাতে হয়।দ্বিতীয় প্রহরে দধী দিয়ে স্নান করাতে হয় । তৃতীয় প্রহরে ঘৃত দিয়ে এবং চতুর্থ প্রহরে মধু দিয়ে স্নান করাতে হয়।তারপর ধ্যান ও জপ করতে হয় । সারা রাত কীর্তন করতে হয় । দিয়ে আবার উপবাস সম্পন্ন করতে হয়।

    ২. - শ্রীকৃষ্ণ জন্মাষ্টমী ব্রতঃ

    বাংলার হিন্দুসমাজের আচরণীয় ব্রতগুলির অন্তর্গত একটি ব্রত । বাংলার বাঙালি হিন্দুঘরের ( প্রধানত বৈষ্ণব মতাবলম্বী ) পুরুষ ও মহিলারা জাগতিক মঙ্গলকামনায় এবং অশুভ - অকল্যাণ দূর করতে এই ব্রত পালন করেন । এটি ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষে জন্মাষ্টমী তিথিতে শ্রীকৃষ্ণের পূজার অঙ্গ হিসাবে পালন করা হয়।জন্মাষ্টমী ব্রত পালনের প্রথম পর্যায়ে প্রয়োজনীয় উপকরণ অর্থাৎ ফুল , আতপ চাল , ফলের নৈবেদ্য , তুলসীপাতা , দূর্বা , ধূপ , দীপ , পঞ্চগব্য , পঞ্চগুড়ি , পাট , বালি , পঞ্চবর্ণের গুড়ো , মধু পর্কের বাটি , আসন - অঙ্গুরী সংগ্রহ করতে হয় । দ্বিতীয় পর্যায়ে ব্রতের সারাদিন উপবাসী থেকে উপকরণগুলি দিয়ে শ্রীকৃষ্ণের পূজা করতে হয় । ব্রতভঙ্গের পর নিরামিষ আহার গ্রহণ করতে হয়। 

    ৩.- লক্ষ্মী দেবীর ব্রতঃ 

    লক্ষ্মী ধন ও সম্পদের দেবী।তার পূজা করলে ধন - সম্পদ লাভ করা যায়।তিনি আমাদের আকাঙ্ক্ষা পূরণ করে।তাই প্রতি বৃহস্পতিবার আমাদের লক্ষ্মী দেবীর ব্রত করা উচিত।প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার লক্ষ্মী দেবীর ব্রত করা যায় । প্রতিটি ভালো ব্রতের কোন না কোন সুফল থাকে।ব্রত পালনের মাধ্যমে আমরা ঈশ্বরকে সন্তুষ্ট করি এবং বিভিন্ন প্রর্থনা করি।আমাদের এবং সকলের মঙ্গল কামনা করি।সকল অশুভ ও অকল্যান থেকে আমাদের মুক্ত রাখার জন্য ঈশ্বরের কাছে প্রর্থনা করি।জীব ও জগতের কল্যানের জন্য প্রর্থণা করি ।


    আমি সুযোগ পেলে যে ব্রত করবো সেটি হলো শ্রী হনুমান ব্রত বা জয়ন্তী । শাস্ত্র অনুসারে অঞ্জানির পুত্র হনুমান চৈত্র মাসের শুক্লপক্ষের চতুর্দশী তিথিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন । সুতরাং প্রতি বছর এই তিথিতেই হনুমান জয়ন্তী উদযাপিত হয় । এই বছর , এই তারিখটি ২৭ এপ্রিল মঙ্গলবার পড়ছে । হনুমান জয়ন্তীর দিন বিধি অনুসারে ভগবান হনুমানের উপাসনা করলে তিনি তাঁর আশীর্বাদ লাভ করেন । বিশ্বাস করা হয় যে সঙ্কটমোচন হনুমানের অনুগ্রহে ভক্তদের সমস্ত সমস্যা দূর হয় এবং ভক্তদের সকল প্রকারের ইচ্ছা পূরণ হয় । হনুমান জয়ন্তীর দিন ভক্তকে যে কোনও হনুমান মন্দিরে গিয়ে বজরঙ্গবলীর দর্শন করতে হবে এবং তাঁর সামনে প্রদীপ জ্বালাতে হবে । ১১ বার হনুমান চালিশা পাঠ করা উচিত । ভগবান হনুমান এতে সন্তুষ্ট হন এবং আপনাকে জীবনের সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তি দেন । ভগবান হনুমানের উচিত হনুমান জয়ন্তীতে গোলাপের মালা অর্পণ করা । তবে তাঁর কৃপাদৃষ্টি সর্বদা সঙ্গে থাকে । ১১ টি অশ্বত্থ পাতায় শ্রী রামের নাম লিখুন এবং ঈশ্বরের কাছে অর্পণ করুন । এটি বিশ্বাস করা হয় যে এটি করার মাধ্যমে আপনার অর্থ সম্পর্কিত সমস্যাগুলি দূর হবে এবং আপনার ইচ্ছা পূরণ হবে । হনুমান জয়ন্তী উপলক্ষে একটি বিশেষ পান পাতা হনুমানকে অর্পণ করলে পরিবারের সমস্যাগুলি কাটিয়ে ওঠে যায় । হনুমান জয়ন্তী উপলক্ষে হনুমান মন্দিরে গিয়ে মূর্তির সামনে একটি সরিষার তেল এবং একটি খাঁটি ঘি - এর প্রদীপ জ্বালান । এর পরে , বজরঙ্গবলীর আরতি করবো ।


    নামঃ —

    শ্রেণিঃ —

    রোলঃ—


    ৮ম/অষ্টম শ্রেণির ১৯তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর/সমাধান ২০২১ হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা  


    Class 8 Assignment answer 2021 Hinduism and moral education 19th week PDF



    Tag: ৮ম/অষ্টম শ্রেণির/শ্রেণীর ১৯তম সপ্তাহের হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১,  ৮ম/অষ্টম শ্রেণির ১৯তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর/সমাধান ২০২১ হিন্দু ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা,  Class 8 Assignment answer 2021 Hinduism and moral education 19th week PDF

    Previous Post Next Post