নিজ এলাকার পানির উৎস দূষণের কারণ অনুসন্ধান,প্রভাব বিশ্লেষণ এবং প্রতিকারে সুপারিশ প্রস্তাব প্রস্তুতকরণ | এসএসসি এসাইনমেন্ট ২০২২ উত্তর বিজ্ঞান -এসাইনমেন্ট ২ (৫ম সপ্তাহ) | ২০২২ সালের এসএসসি ৫ম সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট সমাধান


    এসএসসি এসাইনমেন্ট ২০২২ উত্তর বিজ্ঞান -এসাইনমেন্ট ২ (৫ম সপ্তাহ)  


    নিজ এলাকার পানির উৎস দূষণের কারণ অনুসন্ধান,প্রভাব বিশ্লেষণ এবং প্রতিকারে সুপারিশ প্রস্তাব প্রস্তুতকরণ


    পানি দূষণ : পানির অপর নাম জীবন । পানি ছাড়া জীবন বাঁচতে পারেনা । তবে দূষিত পানি মানুষের তথা জীব জগতের জন্য । ক্ষতিকর । পানি নানাভাবে দুষিত হচ্ছে । পানির ব্যবহার ব্যাপক ও সর্বত্র । আমরা পানি ব্যবহার করে থাকি তৃষ্ণা মেটাতে , পরিষ্কার করার কাজে , চাষাবাদের কাজে , শক্তির উৎস হিসেবে এবং আরাে অনেক কাজে । নদী - নালা এবং পুকুর হচ্ছে আমাদের মিঠা পানির প্রধান উৎস । বিভিন্ন কারনে পানি ব্যবহার অনুপােযােগী হয়ে পড়তে পারে । মানুষসহ অন্যান্য উদ্ভিদ ও প্রাণীর জন্য নিরাপদ নয় , পানির এমন অবস্থাকে পানিদূষণ বলা হয় ।


    আমার এলাকার পানির উৎসগুলাের তালিকাসহ একটি উৎসের পানি দূষণের কারণ : 

    আমার এলাকার পানির প্রধান উৎসগুলাে হচ্ছে নদী , পুকুর , খাল বিল এবং টিউবওয়েল । এই উৎসগুলাের মধ্যে আমার এলাকার নদীর পানি দূষণের কারণ নিম্নে উল্লেখ করা হলাে : বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ । আমার এলাকার বেশিরভাগ মানুষ কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে । কৃষকদের জমিতে মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক সার , কীটনাশক ইত্যাদি দেওয়ার ফলে সেগুলাে বৃষ্টির সাথে মিশে নদীনালা , পুকুরে পড়ে পানিকে দূষিত করে । তাছাড়া গ্রামের অধিকাংশ মানুষ নদীতে গােসল করে এবং গৃহপালিত গরু - ছাগলকে নদীকে গােসল করানাের ফলে নদীটির পানি দূষিত হচ্ছে । এলাকার লােকজন নদীতে কাপড় - চোপড় ধােয়ার কারণেও নদীর পানি দূষিত হচ্ছে । তাছাড়া এই নদীর পানি দূষণের আরাে একটি কারণ হচ্ছে প্রকৃতি । বন্যা ও জলােচ্ছাসে মানুষ ও পশু পাখির মলমূত্র পানিতে মিশে এই নদীকে দূষিত করে ।


    উদ্ভিদ ও প্রাণীর উপর পানি দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব : 

    নিচে উদ্ভিদ ও প্রাণীর উপর পানির দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব তথা ফলাফল উল্লেখ করা হলাে : 


    ১। পানিতে পচনশীল জৈব পদার্থের পরিমাণ যত বেশি হয় , সেগুলিকে বিশ্লিষ্ট ( decompose ) করার জন্য তত অধিক পরিমাণ অক্সিজেনের প্রয়ােজন হওয়ায় পানিতে দ্রবীভূত অক্সিজেনের পরিমাণ হাস পায় , যা জলজ প্রাণীর জীবন ধারণের জন্য খুবই ক্ষতিকর । এমতাবস্থায় জলজ জীবের মৃত্যুও ঘটতে পারে । 


    ২। বিভিন্ন রােগ সৃষ্টিকারী জীবাণু দ্বারা দূষিত পানি ব্যবহারের ফলে মানুষের কলেরা , টাইফয়েড , ডাইরিয়া , আমাশয় , পরিপাকতন্ত্র প্রদাহ , যকৃত প্রদাহ ইত্যাদি বিভিন্ন রােগের সৃষ্টি হয় । 


    ৩। পানিতে অধিক পুষ্টি উপাদানের ( উদ্ভিদ পুষ্টি উপাদান ) উপস্থিতিতে শৈবাল ও অন্যান্য আগাছা জাতীয় উদ্ভিদ ব্যাপক হারে জন্মায় এবং এদের পচনের ফলে পানি দূষিত হয় । এভাবে পানির দূষণে জলজ প্রাণীর বাসের অনুপযােগী পরিবেশ সৃষ্টি হয় , এমনকি জলজ প্রাণীর পারে । 


    ৪। কৃত্রিম জৈব পদার্থ দ্বারা দূষিত পানি শিশু , সংবেদনশীল উদ্ভিদ এবং ক্ষেত্রবিশেষে জলজ প্রাণীর উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে 


    ৫। দীর্ঘ সময় ধরে অপরিবর্তনশীল কীটনাশকের অংশ বিশেষ ( যেমন- ডিডিটি ) কোন কোন মাত্রায় মাছ ও অন্যান্য জলজ জীবের জন্যে প্রত্যক্ষভাবে এবং খাদ্যচক্রের মাধ্যমে মৎস্যভূক পাখি ও মানুষের জন্য ক্ষতিকর । 


    ৬। ক্ষতিকর মাত্রার তেজস্ক্রিয় পদার্থযুক্ত পানি ব্যবহার করলে , পানিতে সাঁতার কাটলে , তেজস্ক্রিয়তাযুক্ত মাছ খেলে , কলকারখানার তেজস্ক্রিয়তাযুক্ত পানি ব্যবহার করলে মানুষের ক্যান্সারসহ নানা রকম জটিলরােগ সৃষ্টি হতে পারে এবং এই শিশুর জন্ম হতে পারে । 


    ৭। তেল দ্বারা পানি দূষণের ফলে আমিষজাতীয় খাদ্য সরবরাহকারী মাছ ও ঝিনুকজাতীয় প্রাণী এবং অন্যান্য জলজ জীব তেলের প্রভাবে । ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং অনেক সময় মারাও যেতে পারে । তেল দ্বারা । দূষিত পানিতে চিংড়ির বংশবৃদ্ধি কমে যায় । 


    ৮। পানিতে মিশ্রিত ভারী ধাতু , যেমন- পারদ , সীসা , আর্সেনিক প্রভৃতি প্রাণীদেহে সঞ্চিত হয়ে বিভিন্ন রােগের সৃষ্টি করে , অনেক ক্ষেত্রে প্রাণীর মুত্যু ঘটে । পারদ মানব দেহে প্রবেশ করলে মস্তিষ্কের ক্ষতিসাধন হয় ।


    পানির উৎসগুলাে দূষণমুক্ত রাখতে প্রস্তাবনা : 


    নিচে পানি দূষণ থেকে প্রতিকারের উপায়গুলি উল্লেখ করা হলাে : 


    ১। শহর ও বন্দরের আবর্জনা ও নর্দমার বর্জ্য নদ - নদী , খাল - বিলে গড়িয়ে পড়ার আগে শােধন করা উচিত । 


    ২। নদীর পানির স্বাভাবিক প্রবাহ অব্যাহত রাখা অত্যাবশ্যক । নদীর তলদেশে যাতে পলি জমতে না পারে সেজন্য নিয়মিত ড্রেজিং প্রয়ােজন । 


    ৩। কৃষি জমিতে জৈব সার এবং পরিমিত পরিমাণে রাসায়নিক সার প্রয়ােগ করা উচিত । ফলে অতিরিক্ত সার জলাশয়ের পানিকে দূষিত করতে পারবে না । 


    ৪। শিল্প ও কল - কারখানার বর্জ্য পাশ্ববর্তী জলাশয় ও নদ - নদীতে পড়ার পূর্বে শােধন করা প্রয়ােজন । 


    ৫। খােলা মাটিতে রাসায়নিক দ্রব্য , রং অথবা গাড়ীর তেল কখনও ফেলা উচিত নয় । কেননা এ সমস্ত দ্রব্য মাটি চুয়িয়ে ভূ - গর্ভস্থ পানি দূষিত করে। 


    ৬। কীটনাশক , ছত্রাকনাশক ও আগাছানাশক এর যথেচ্ছা ব্যবহার বন্ধ করা উচিত ।  


    ৭। পারমাণবিক বিস্ফোরণ ঘটানাে বন্ধ করা ও তেজস্ক্রিয় পদার্থের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ প্রয়ােজন । 


    ৮। সর্বস্তরের মানুষকে পানি দূষণ সম্পর্কে সঠিক ধারণা দেওয়া প্রয়ােজন এবং এর প্রতিক্রিয়ার ভয়াবহ চিত্র জনসাধারণের নিকট তুলে ধরা প্রয়ােজন । প্রয়ােজনবােধে ফেইসবুক , ওয়াটসঅ্যাপ , টুইটার প্রভৃতি সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যম তথাপি জাতীয় প্রচার মাধ্যমগুলাে ব্যবহার করে জনগণকে সচেতন ও সতর্ক করা যেতে পারে ।



    ২০২২ সালের এসএসসি ৫ম সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট সমাধান



    Tag: এসএসসি এসাইনমেন্ট ২০২২ উত্তর বিজ্ঞান -এসাইনমেন্ট ২ (৫ম সপ্তাহ),  ২০২২ সালের এসএসসি ৫ম সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট সমাধান, নিজ এলাকার পানির উৎস দূষণের কারণ অনুসন্ধান,প্রভাব বিশ্লেষণ এবং প্রতিকারে সুপারিশ প্রস্তাব প্রস্তুতকরণ

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন