মূল্যবোধ ও নৈতিকতা আইন,স্বাধীনতা ও সাম্যকে প্রভাবিত করে-তাৎপর্য বিশ্লেষণ | এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান পৌরনীতি ও সুশাসন (৪র্থ সপ্তাহ)-এসাইনমেন্ট-৩ | ২০২১ সালের এইচএসসি ৪র্থ সপ্তাহের পৌরনীতি ও সুশাসন (১ম পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর


    এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান পৌরনীতি ও সুশাসন (৪র্থ সপ্তাহ)-এসাইনমেন্ট-৩  


    মূল্যবোধ ও নৈতিকতা আইন,স্বাধীনতা ও সাম্যকে প্রভাবিত করে-তাৎপর্য বিশ্লেষণ


    মূল্যবােধ ও নৈতিকতা আইন , স্বাধীনতা ও সাম্যকে প্রভাবিত করে 

    যে চিন্তাভাবনা , লক্ষ্য , উদ্দেশ্য ও সংকল্প মানুষের সামগ্রিক আচার - ব্যবহার ও কর্মকান্ডকে নিয়ন্ত্রিত ও পরিচালিত করে , তাকেই আমরা সাধারণত মূল্যবােধ বলে থাকি । সমাজজীবনে মানুষের ব্যক্তিগত ও সমষ্টিগত আচার - ব্যবহার ও কর্মকাণ্ড যে সকল নীতিমালার মাধ্যমে পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয় তাদের সমষ্টিকে সামাজিক মূল্যবােধ বলে স্টুয়ার্ট সি . ডড ( Stuart c . Dodd ) বলেন , " সামাজিক মূল্যবোেধ হলাে সে সব রীতিনীতির সমষ্টি , যা ব্যক্তি সমাজের নিকট হতে আশা করে এবং যা সমাজ ব্যক্তির নিকট হতে লাভ করে | " অন্যদিকে নৈতিকতার ইংরেজি প্রতিশব্দ Morality।  ইংরেজি Morality শব্দটি এসেছে ল্যাটিন Moralitas ' থেকে যার অর্থ সঠিক আচরণ বা চরিত্র । গ্রিক দার্শনিক সক্রেটিস , প্লেটো এবং এরিস্টটল সর্বপ্রথম নৈতিকতার প্রতি গুরুত্ব আরােপ করেন।  সক্রেটিস বলেছেন , সৎ গুণই জ্ঞান।  নৈতিকতা বা ন্যায়নীতিবােধের ধারণা বা এর প্রতি যে দেশের জনগণের শ্রদ্ধাবােধ বেশি , যারা জীবনের চলারপথে নীতিবােধ দ্বারা পরিচালিত হন , তারা দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতিতে লিপ্ত হন। 


    আইনের স্বীকৃত উৎসসমূহ : 

    ১.প্রথা : আইনের অন্যতম উৎস হল প্রথা । প্রাচীনকাল থেকে যেসব আচার ব্যবহার রীতি - নীতি ও অভ্যাস সমাজ কর্তৃক স্বীকৃত , সমর্থিত ও পালিত হচ্ছে তাই প্রথা সমাজে অনেক ধরনের প্রথাই প্রচলিত থাকে । তার মধ্যে যেসব প্রথা যুক্তিসিদ্ধ ও জনহিতকর তা আইন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হয় ।

    ২.ধর্ম : ধর্ম আইনের অন্যতম উৎস।  ধর্মই মানুষের মঙ্গলের কথা বলে । ফলে ধর্মের বাণীকে সকলেই মেনে চলার চেষ্টা করে।  সকল ধর্মের কিছু অনুশাসন রয়েছে , যা ঐ ধর্মের অনুসারীরা মেনে চলে।  এসব অনুশাসন সমাজ জীবনকে সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত করতে সহায়তা করে | এ রকম অনেক অনুশাসন পরবর্তীতে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি লাভ করে এবং আইনে পরিণত হয় ।

    ৩.আইন সভা : আইন সভা আইনের উৎস | আইন সভার প্রধান কাজ আইন প্রণয়ন করা । আধুনিক রাষ্ট্র সাধারণত জন কল্যাণে নিয়ােজিত থাকে । ফলে সময়ের প্রেক্ষিতে মানুষের নানাবিধ অধিকার ও সুযােগ - সুবিধা নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের গুরু দায়িত্ব । তাই আইন সভার সদস্যগণ জন কল্যাণে এবং নাগরিক অধিকার রক্ষার্থে নতুন নতুন অনেক বিষয়কে আইনে রুপান্তর করার জন্য তা বিল ( আইনের খসড়া ) আকারে আইনসভায় উত্থাপন করে থাকে ।

    ৪.বিখ্যাত গ্রন্থ : রাষ্ট্র পরিচালনা বিষয়ে লিখিত বিভিন্ন বিখ্যাত গ্রন্থও আইনের উৎস হিসেবে বিবেচিত হয় । এক্ষেত্রে রাষ্ট্রবিজ্ঞানী , আইনবিদদের দ্বারা লিখিত বই বেশি প্রাধান্য পায় । উপযুক্ত উৎস ছাড়াও আইনের আরাে কয়েকটি উৎস রয়েছে । যেমন- বিজ্ঞানসম্মত আলােচনা , প্রশাসনিক ঘােষণা , সংবিধান , ন্যায়বােধ , জনমত ইত্যাদি ।


    পৌরনীতিতে স্বাধীনতা মানে যৌক্তিক ও আইনসিদ্ধভাবে কোন কিছু করাকেই বুঝায় । স্বাধীনতার বিভিন্ন রূপ বা বিষয়বস্তু রয়েছে । একটি রাষ্ট্রে নাগরিকগণ বিভিন্ন ধরনের স্বাধীনতা ভােগ করে থাকে । স্থান , কাল , পাত্রভেদে এটি আবার ভিন্ন হয়ে থাকে । যেমন- ব্যক্তিগত স্বাধীনতা , সামাজিক স্বাধীনতা , রাজনৈতিক স্বাধীনতা , অর্থনৈতিক স্বাধীনতা ও জাতীয় স্বাধীনতা। 


    ব্যক্তিগত স্বাধীনতা একান্তই ব্যক্তিগত।  সামাজিক স্বাধীনতামানুষ হিসেবে বেঁচে থাকার জন্য সামাজিক স্বাধীনতা অপরিহার্য । ভাটোর হবার স্বাধীনতা , ভােটদানের স্বাধীনতা , রাজনৈতিক দল গঠনের স্বাধীনতা ইত্যাদি রাজনৈতিক স্বাধীনতা অর্থনৈতিক স্বাধীনতার মধ্যে পেশা ও জীবিকার স্বাধীনতা অন্যতম । বর্তমানে অধিকাংশ রাষ্ট্রই জাতি রাষ্ট্র । অর্থাৎ তারা স্বাধীন জাতি হিসেবে রাষ্ট্র গঠন করেছে । একটি জাতির নিজস্ব পরিচয় প্রতিষ্ঠার সক্ষমতাই হল জাতীয় স্বাধীনতা ।


    আইনের সাথে স্বাধীনতার সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য।  আইন স্বাধীনতাকে সহজলভ্য করে তােলে । আইনের নিয়ন্ত্রণ ছাড়া যথার্থভাবে স্বাধীনতা ভােগ করা যায় না।  আইনের অবর্তমানে সবলের অত্যাচারে দুর্বলের অধিকার বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে । আইন স্বাধীনতার রক্ষাকবচ । আইন স্বাধীনতার অভিভাবক । আইন শাসকগােষ্ঠীর স্বেচ্ছাচারিতার হাত থেকে জনগণকে রক্ষা করে । স্বাধীনতা ও সাম্যের মধ্যে গভীর সম্পর্ক বিদ্যমান আইন সাম্যকে অর্থবহ করে তােলে।  রাষ্ট্র আইন প্রয়ােগ করে অসাম্যকে দূর । সামাজিক , রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক বৈষম্য দূর করতে যুগে যুগে অনেক আইন সহায়তা করছে । সাম্য ও স্বাধীনতার সম্পর্ক অত্যন্ত নিবিড় সাম্য নিশ্চিত করার জন্য স্বাধীনতার প্রয়াজেন।  স্বাধীনতার শর্ত পূরণ না হলে সাম্য প্রতিষ্ঠিত হয় না।  আবার স্বাধীনতাকে ভােগ করতে চাইলে সাম্য প্রতিষ্ঠা করতে হবে | তাই বলা যায় আইন , স্বাধীনতা ও সাম্যের পারস্পরিক সম্পর্ক ব্যাপক ।


    ২০২১ সালের এইচএসসি ৪র্থ সপ্তাহের পৌরনীতি ও সুশাসন (১ম পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর Pdf


                      Click Here To Download 


    Tag: এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান পৌরনীতি ও সুশাসন (৪র্থ সপ্তাহ)-এসাইনমেন্ট-৩,  ২০২১ সালের এইচএসসি ৪র্থ সপ্তাহের পৌরনীতি ও সুশাসন (১ম পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর, মূল্যবোধ ও নৈতিকতা আইন,স্বাধীনতা ও সাম্যকে প্রভাবিত করে-তাৎপর্য বিশ্লেষণ

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন