বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় কর । বাংলাদেশের সাথে উল্লিখিত দেশসমূহের স্থানীয় সময় ও ঋতুগত পার্থক্যের কারণ ব্যাখ্যা কর ।


বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় কর । বাংলাদেশের সাথে উল্লিখিত দেশসমূহের স্থানীয় সময় ও ঋতুগত পার্থক্যের কারণ ব্যাখ্যা কর ,নবম-৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান ও উত্তর ২০২১

       
       
      

    বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় কর । বাংলাদেশের সাথে উল্লিখিত দেশসমূহের স্থানীয় সময় ও ঋতুগত পার্থক্যের কারণ ব্যাখ্যা কর ।

    জুলাই মাসের বাংলাদেশে যখন সকাল ১০ টা বাজে 

     তখন জাপানে বাজে দুপুর ১ টা । 

    বাংলাদেশে যখন সকাল ১০ টা বাজে 

    তখন কানাডায় বাজে রাত ১২ টা । 

    বাংলাদেশে যখন সকাল ১০ টা বাজে 

     তখন যুক্তরাষ্ট্রে বাজে রাত ১২ টা ।

    স্থানীয় সময় ( Local Time ) : প্রতিদিন পৃথিবী পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে তার নিজ মেরুরেখার উপর | আবর্তিত হচ্ছে । ফলে পূর্ব দিকে অবস্থিত স্থানগুলােতে আগে সূর্যোদয় ঘটে । পৃথিঙ্কর আবর্তনের ফলে কোনাে স্থানে যখন সূর্য ঠিক মাথার উপর আসে বা সর্বোচ্চে অবস্থান করে তখন এ স্থানে মধ্যাহ্ন এবং স্থানীয় ঘড়িতে তখন বেলা ১২ টা ধরা হয় । এ মধ্যাহ্ন সময় থেকে দিনের অন্যান্য সময় ন্য সময় স্থির করা হয় । একে কোনাে স্থানের স্থানীয় সময় বলা হয় । সেক্সট্যান্ট যন্ত্রের সাহায্যেও স্থানীয় সময় নির্ণয় করা যায় । পৃথিবীর কেন্দ্রে কোণের পরিমাণ ৩৬০ ডিগ্রি ।

    এই ৩৬০ ডিগ্রি কৌণিক দূরত্ব আবর্তন করতে পৃথিবীর ২৪ ঘন্টা বা ( ২৪ x ৬০ ) = ১,৪৪০ মিনিট সময় লাগে । সুতরাং পৃথিবী ১ ডিগ্রি ঘােরে ( ১,৪৪০ : ৩৬০ ) = ৪ মিনিট সময়ে অর্থাৎ প্রতি ১ ডিগ্রি দ্রাঘিমার পার্থক্যের জন্য সময়ের পার্থক্য হয় ৪ মিনিট । পৃথিবী প্রায় একটি গােলকের ন্যায় । 

    তাই পৃথিবীর মানচিত্রে সময় নির্ণয়ের ক্ষেত্রে কাল্পনিক রেখার ভূমিকা অপরিসীম । গােলাকার পৃথিবী নিজ অক্ষ বা মেরুরেখায় পশ্চিম থেকে বিভিন্ন স্থান ভিন্ন ভিন্ন সূর্যের সামনে উপস্থিত হচ্ছে ।

    যে সময়ে কোনাে স্থানের মধ্যরেখা সূষেরাক সামনে আসে ৩ থন এ স্থানে দুপুর হয় এবং ঘড়িতে তখন ১২ টা বাজে । দুপুর বা মধ্যাহ্ন অনুসারে অন্যান্য সময় নির্ণয় করা হয় । পৃথিবী পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে আবর্তন করে বিধায় পূর্বে অবস্থিত স্থানসমূহে আগে সূর্যোদয় হয় । কোনাে স্থানের সময় বেলা ১ টা হলে তার ১ ° পূর্বের স্থানে সময় বেলা ১ টা ৪ মিনিট এবং ১ ° পশ্চিমের স্থানে বেলা ১২ টা ৫৬ মিনিট হবে । গ্রিনিচে ( o ) যখন সকাল ৮ টা , তখন কোনাে স্থানে সকাল ১০ টা হলে উক্ত স্থানের দ্রাঘিমা হবে ৩০ ° পূর্ব । আবার সময় গ্রিনিচের চেয়ে কম হলে উক্ত স্থানটি গ্রিনিচের পশ্চিমে অবস্থিত হবে । এভাবে দ্রাঘিমার অবস্থান থেকে সময় ও সময়ের অবস্থান থেকে দাঘিমা নির্ণয় করা হয় ।



    ঋতুগত পার্থক্যের কারণ : আমরা পাশের চিত্রটির দিকে তাকাই । এখানে সূর্যকে পরিশ্রমণকালে পৃথিবীর চারটি অবস্থান থেকে ঋতু পরিবর্তনের ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে । বার্ষিক গতির জন্য সূর্যরশ্মি কোথাও লম্বভাবে আবার কোথাও তির্যকভাবে পতিত হয় এবং দিবা রাত্রির হ্রাস - বৃদ্ধি ঘটে । লম্বভাবে পতিত সূর্যরশ্মি কম বায়ুস্তর ভেদ করে আসে বলে ভূপৃষ্ঠকে অধিক | উত্তপ্ত করে । তির্যকভাবে পতিত সূর্যরশ্মি যে কেবল অধিক বায়ুস্তর ভেদ করে আসে তা নয় , এটি লম্বভাবে পতিত সূর্যরশ্মি অপেক্ষা অধিক আনব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে । এর ফলে বছরের বিভিন্ন সময়ে ভূপৃষ্ঠের সর্বত্র তাপের তারতম্য হয় এবং ঋতু পরিবর্তন ঘটে । পৃথিবীতে সময়ভেদে তাপমাত্রার পার্থক্য বা পরিবর্তনকে ঋতু পরিবর্তন বলে । | সূর্যকে পরিক্রমণকালে পৃথিবীর চারটি অবস্থান থেকে ঋতু পরিবর্তনের ব্যাখ্যা পাওয়া যায়।

    উত্তর গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে শীতকাল : ২১ শে জুন সূর্যের উত্তরায়ণের শেষ দিন । এই দিন মুর্যরশ্মি কর্কটক্রান্তির উপর লম্বভাবে পতিত হয় । ফলে ঐ দিন এখানে দীর্ঘতম | দিন এবং ক্ষুদ্রতম রাত্রি হয় ।২১ শে জুনের দেড় মাস পূর্ব থেকে দেড় মাস পর পর্যন্ত মােট তিন মাস উত্তর গােলার্ধে উত্তাপ বেশি থাকে । এ সময় উত্তর গােলার্ধে গ্রীষ্মকাল । এ সময়ে সূর্যের তির্যক কিরণের জন্য দক্ষিণ গোলার্ধে দিন ছােট ও রাত বড় হয় । এজন্য সেখানে তখন শীতকাল ।  

    উত্তর গােলার্ধে শরৎকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে বসন্তকাল : ২৩ শে সেপ্টেম্বর সূর্যরশ্মি নিরক্ষরেখার উপর লম্বভাবে পড়ে এবং সর্বত্র দিবা - রাত্রি সমান হয় । সেজন্য এ তারিখের দেড় মাস পূর্ব থেকে দেড় মাস পর পর্যন্ত মােট তিন মাস তাপমাত্রা মধ্যম ধরনের হয়ে থাকে । এ সময় উত্তর গােলার্ধে শরৎকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে বসন্তকাল ।

    উত্তর গোলার্ধে শীতকাল ও দক্ষিণ গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল : ২২ শে ডিসেম্বর সূর্যের দক্ষিণায়নের শেষদিন অর্থাৎ এই দিন সূর্য মকরঞন্তির উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় । ফলে সেখানে দিন বড় ও রাত ছােট হয় । এ তারিখের দেড় মাস পূর্বে ও পরে দক্ষিণ গােলার্ধে গ্রীষ্মকাল দক্ষিণ এবং উত্তর গােলার্ধে শীতকাল থাকে ।

     উত্তর গোলার্ধে শীতকাল ও দক্ষিণ গােলার্ধে গ্রীষ্মকাল : ২২ শে ডিসেম্বর সূর্যের দক্ষিণায়নের শেষদিন অর্থাৎ এই দিন সূর্য মকরক্রান্তির উপর লম্বভাবে । দেয় । ফলে সেখানে বড় ও রাত ছােট হয় । এ তারিখের দেড় মাস ও পরে দক্ষিণ গোলার্ধে গ্রীষ্মকাল এবং উত্তর গোলার্ধে শীতকাল থাকে ।

    নবম-৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান ও উত্তর ২০২১

    Tag:বাংলাদেশে জুলাই মাসের সকাল ১০ টার সময়ে জাপান, কানাডা এবং যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় নির্ণয় কর । বাংলাদেশের সাথে উল্লিখিত দেশসমূহের স্থানীয় সময় ও ঋতুগত পার্থক্যের কারণ ব্যাখ্যা কর ,নবম-৯ম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান ও উত্তর ২০২১

    Previous Post Next Post


    TOP POST

     

     

    🔽 এস এস সি/দাখিল ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ২০২২ সমাধান দেখতে ক্লিক করুন

    🔽 এইচ এস সি/আলিম ১ম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২২ দেখতে ক্লিক করুন

    🔽 সকল সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান (ষষ্ঠ-নবম শ্রেণীর) দেখতে ক্লিক করুন 

    ☀️আপনার নামের অর্থ জানতে ক্লিক করুন 

    ��এসএসসি সকল বই ও নোট ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন