সারসংক্ষেপ - সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল

সারসংক্ষেপ - সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল, সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল সারসংক্ষেপ, বাংলা ২য় পত্র সারসংক্ষেপ পাঠ বইয়ের

    সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল


    সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল । এই পরিবারের আদি পুরুষের । কাশ্মির থেকে দিল্লি , সিলেট হয়ে ঢাকায় এসে বসবাস শুরু করেন । চামড়া , গাঁজাসহ নানাবিধ ব্যবসা করে তারা অগাধ ধন - সম্পদ অর্জন করেছিলেন , কিনেছিলেন জমিদারি । আলিমউল্লাহ তাঁর জমিদারি বিস্তৃত করেছিলেন ঢাকা , বাকেরগঞ্জ , কুমিল্লা ও ময়মনসিংহ অঞ্চলে । ১৮৩ সালে ফরাসি কুঠিয়ালদের কাছ থেকে এখনকার অতিপরিচিত আহছান মঞ্জিলটি কিনে নেন তিনি । 
    শুধু ঢাকারই নয় , পুরাে পূর্ববঙ্গের একজন ধনাঢ্য ব্যক্তি ছিলেন আলিমউল্লাহ । অর্থ - বিত্তে সমৃদ্ধ হয়ে উঠলেও সামাজিক আভিজাত্যে তাঁর অবস্থান তখন অনেক নিচে । একসময় । থেকে কেনা শুরু করলেন নানা রত্নরাজি । ক্রয়ের মূল উৎস ছিল সে সময়ে ক্ষয়িষ্ণু অভিজাত পরিবারগুলো আলিমউল্লাহর অভিজাতদের কাতারে নাম লেখানাের জন্য আগ্রহ তৈরি হলাে । 
    অভিজাত হওয়ার নেশা ।আভিজাত্য বাড়ানাের জন্য আলিমউল্লাহ জুড়িগাড়ি কিনেছিলেন , ঘােড়দৌড় আয়ােজন করতেন , বিশেষ ভােজ ও জলসার আয়ােজনও করতেন । তবে পুরােনাে রত্নরাজি , মণিমাণিক্য কেনাই হয়ে উঠেছিল তাঁর মূল নেশা । এই আলিমউল্লাহ ১৮৫২ সালে সংগ্রহ করেছিলেন বিখ্যাত হীরা দরিয়া - ই - নূর । ব্রিটিশ আমলে ঢাকায় এসে নবারের সৌজন্যে অনেক বিশিষ্টজন দরিয়া - ই - নূর দেখতে পেয়েছেন । ১৮৮৭ সালের ৬ জানুয়ারি ভাইসরয় লর্ড ডাফরিন তার স্ত্রীকে নিয়ে কলকাতার নবাবদের বালীগঞ্জ প্রাসাদে গিয়ে এই হীরকটি দেখেছিলেন । 
    লেডি ডাফরিন তাঁর বইয়ে লিখেছিলেন , নবাব সাহেব তাঁর কিছু জুয়েলারি আমাদের দেখালেন । 
    সেগুলাের মধ্যে কোহিনূরের বােন হিসেবে পরিচিত দরিয়া - ই - নূরও ছিল । প্রখ্যাত অলংকার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান হ্যামিল্টন অ্যান্ড কোম্পানিকে দিয়ে নবাব আহছানউল্লাহ তাঁর সংগ্রহে থাকা উল্লেখযােগ্য ১৪ টি অলংকারের ছবি ও বর্ণনা দিয়ে একটি অ্যালবাম প্রকাশ করেছিলেন । ব্রিটিশ আমলের এই অ্যালবামটি এখন দুষ্প্রাপ্য । 


    সারসংক্ষেপ : নবাব আলিমউল্লাহ কাশ্মির থেকে ঢাকায় এসে বসবাস করেন । তিনি ১৮৩৫ সালে ফরাসি কুঠিয়ালদের কাছ থেকে আহছান মঞ্জিলটি কিনে নেন । তাঁর অনেক ধন - সম্পদ থাকলেও সামাজিক আভিজাত্য ছিল না । ফলে তিনি জুড়িগাড়ি কেনেন , এ ছাড়া ঘােড়দৌড় আয়ােজন করতেন , ভােজ ও জলসার আয়ােজনও করতেন । পুরনাে রত্নরাজি বা মণিমাণিক্য কেনাই ছিল মূল নেশা । আলিমউল্লাহ ১৮৫২ সালে সংগ্রহ করেছিলেন হীরা দরিয়া - ই - নূর ।


    Tag: সারসংক্ষেপ - সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল, সময়টা ঢাকার নবাব আব্দুল গনির বাবা খাজা আলিমউল্লাহর আমল সারসংক্ষেপ, বাংলা ২য় পত্র সারসংক্ষেপ পাঠ বইয়ের 
    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন