সারসংক্ষেপ - ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে

সারসংক্ষেপ - ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে, ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে সারসংক্ষেপ, বাংলা ২য় পত্র সারসংক্ষেপ পাঠ বইয়ের

    ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে


    ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে । নজরুল করাচি ছেড়ে স্থায়ীভাবে কলকাতায় চলে আসেন । কলকাতায় পৌছানাের পরদিন তিনি ২৪৫ । থেকে ৪৮ নম্বর বাঙালি পণন ভেঙে দেওয়ার প্রায় শুরু হয় । মার্চে তা পুরােপুরি ভেঙে দেওয়া হক । শৈলজানন্দের ব্যবস্থাপনায় রায়কান্ত বােস স্ট্রিটের মেসে ওঠেন । নজরুল যে মুসলমান তা জানতে পেরে । বহুবাজার স্ট্রিটে অবস্থিত ' সওগাত ' অফিসে ছুটে যান । 
    কলকাতায় এসে নজরুল প্রথমে বাল্যবন্ধু মেসের চাকর তাঁর এঁটো বাসন ধুতে আপত্তি জানায় । এই পরিস্থিতিতে দু'দিনের মাথায় তিনি মেস ছেড়ে । ৩২ কলেজ স্ট্রিটে ‘ বঙ্গীয় মুসলমান সাহিত্য সমিতি'র অফিসের একটি কক্ষে মুজফফর আহমদের সঙ্গে । বসবাস শুরু করেন । সমিতির সভাপতি তখন অবসরপ্রাপ্ত স্কুল ইনস্পেক্টর ও পুথি সংগ্রাহক আবদুল । করিম সাহিত্যবিশারদ । সমিতির পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন মােজাম্মেল হক ও মুহম্মদ শহীদুল্লাহ । 
    মুজফফর আহমদ ছিলেন সহকারী সম্পাদক ও সমিতির সার্বক্ষণিক কর্মী । নজরুল আসার আগে মুহম্মদ শহীদুল্লাহ এখানে থাকতেন । তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে যােগ দিয়ে ফিয়াস লেনে মেডিক্যাল ছাত্রদের সুপারিন্টেডেন্ট - এর পদ পেয়ে সেখানে উঠে গেলে তাঁর ছেড়ে যাওয়া বিছানাতে নজরুলের ঠাই হয় । আফজাল - উল হক , কাজী আবদুল ওদুদ প্রমুখ সংগঠকেরা এই বাড়িতে থাকতেন । এঁদের সঙ্গে নজরুলের খাওয়া - দাওয়ার ব্যবস্থা হয় । 
    প্রবল পৌরুষ , প্রাণবন্ত আবেগ ও আনন্দ - উচ্ছলতার অধিকারী নজরুল এখানে আসার পর থেকেই সাহিত্য সমিতির এই বাড়িটি অচিরেই সাহিত্যিকদের জমজমাট আড্ডার আসরে পরিণত হয় । মুসলিম সাহিত্য সমিতির বাইরেও এখানে বিভিন্ন সময়ে এসেছেন । যােগীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় , পবিত্র গঙ্গোপাধ্যায় , শৈলজানন্দ মুখােপাধ্যায় , হেমেন্দ্রকুমার সরকার , প্রেমাঙ্কুর আতর্থী , শশাঙ্কমােহন সেন , কান্তিচন্দ্র ঘােষ , মােহিতলাল মজুমদার প্রমুখ । এখানেই নজরুলের সাহিত্যিক জীবনের নব অধ্যায়ের সূচনা । 


    সারসংক্ষেপ : ১৯১৯ সালে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর নজরুল করাচি থেকে কলকাতায় চলে আসেন । প্রথমে শৈলজানন্দের নিকট , পরে মুজফফর আহমদের সঙ্গে বসবাস শুরু করেন । অনেক সাহিত্যিকের সঙ্গে জমজমাট আড্ডায় নজরুলের সাহিত্যিক জীবনের নতুন ধারার উন্মেষ ঘটে ।



    Tag: সারসংক্ষেপ - ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে, ১৯১৯ - এর ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ভাসাই চুক্তির মাধ্যমে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার প্রেক্ষাপটে সারসংক্ষেপ, বাংলা ২য় পত্র সারসংক্ষেপ পাঠ বইয়ের 
    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন