ওযু করার নিয়ম ও নিয়ত,দোয়া,ওযুর ফরজ সুন্নত কয়টি ও কি কি | ওযুর নিয়ম ছবি

 আসছালামু আলাইকুম প্রিয় দ্বীনি ভাই ও বোনেরা সবাই কেমন আছেন। আসা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন।বন্ধুরা আজকে আমরা তোমাদের ওযু করার নিয়ম ও নিয়ত,দোয়া -ওযুর নিয়ম ছবি সহ শেয়ার করবো। আসা করি তোমাদের উপকারে আসবে। 

ওযুঃ- ওযু হলো ইসলামের বিধান অনুযায়ী শরীরের অঙ্গ পতঙ্গ দোয়ার মাধ্যমে পবিত্রতা অর্জন করা। আর নামাজ পড়তে হলে ওযু করা বাধ্যতামূলক। পবিত্র কুরআনে বলা হয়েছে নিশ্চয়ই আল্লাহ তওবাকারী এবং অপবিত্রতা থেকে যারা বেঁচে থাকে তাদেরকে পছন্দ করেন।" (সূরা বাকারা, আয়াত:২২২)। 


       
       

    ওযু করার নিয়ম 

    কুরআন ও হাদিস দ্বারা ওযুর সঠিক নিয়ম আমরা নিচে তুলে ধরার চেষ্টা করবোঃ-

    কুরআনে বর্নিত আছে, "হে মুমিনগণ, যখন তোমরা নামাযের জন্যে উঠ, তখন স্বীয় মুখমন্ডল ও হস্তসমূহ কনুই পর্যন্ত ধৌত কর, মাথা মুছেহ কর এবং পদযুগল গিটসহ। যদি তোমরা অপবিত্র হও তবে সারা দেহ পবিত্র করে নাও এবং যদি তোমরা রুগ্ন হও, অথবা প্রবাসে থাক অথবা তোমাদের কেউ প্রসাব-পায়খানা সেরে আসে অথবা তোমরা স্ত্রীদের সাথে সহবাস কর, অতঃপর পানি না পাও তবে তোমরা পবিত্র মাটি দ্বারা তায়াম্মুম করে নাও-অর্থাৎ, স্বীয় মুখ-মন্ডল ও হস্তদ্বয় মাটি দ্বারা মুছে ফেল। আল্লাহ তোমাদেরকে অসুবিধায় ফেলতে চান না; কিন্তু তোমাদেরকে পবিত্র রাখতে চান এবং তোমাদের প্রতি স্বীয় নেয়ামত পূর্ণ করতে চান-যাতে তোমরা কৃতজ্ঞাতা প্রকাশ কর।"(সূরা মায়িদা‌, আয়াত:৬)। 

    অযুর করার সময় কিছু কাজ মুহাম্মাদ অভ্যাসবশত করতেন যা অযুর সুন্নতের (ঐচ্ছিক কাজ) অন্তর্ভুক্ত। 

    কুরআন ও সহীহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত অযুর সঠিক নিয়ম।

    ১. মনে মনে অযু করার নিয়ত বা সংকল্প করবে। 

    ২. তারপর ‘বিসমিল্লাহ’ বলবে। 

    ৩. ডান হাতে পানি নিয়ে দুই হাত কব্জি পর্যন্ত ধৌত করবে।সেই সাথে হাতের আঙ্গুলগুলো খিলাল করবে।আংটি থাকলে পানি পৌঁছানোর চেষ্টা করবে।

    ৪. ডান হাতে পানি নিয়ে গড়গড়িয়ে কুলি করতে হবে এবং নাকে পানি দিবে ও নাক ঝাড়বে। 

    ৫. কপালের গোড়া থেকে দুই কানের লতীসহ থুৎনীর নীচ পর্যন্ত সম্পূর্ণ মুখমন্ডল ধৌত করবে। তারপর এক অঞ্জলি পানি নিয়ে থুৎনীর নিচে দিয়ে দাড়ি খিলাল করবে।

    ৬. অতঃপর প্রথমে ডান ও পরে বাম হাত কনুই পর্যন্ত ধৌত করবে। 

    ৭. এরপর নতুন পানি নিয়ে দুই হাত দ্বারা মাথার সম্মুখ হতে পিছনে ও পিছন হতে সম্মুখে নিয়ে গিয়ে একবার পুরো মাথা মাসাহ করবে। একই সঙ্গে ভিজা শাহাদাত আংগুল দ্বারা কানের ভিতর অংশে ও বুড়ো আংগুল দ্বারা কানের পিঠ মাসাহ করবে।

    ৮. অতঃপর ডান ও বাম পায়ের টাখনুসহ ভালভাবে ধৌত করবে।এ সময় বাম হাতের কনিষ্ঠা আংগুল দ্বারা পায়ের আংগুল সমূহ খিলাল করবে।

    ৯. ওযূ শেষে বাম হাতে কিছু পানি নিয়ে লজ্জাস্থান বরাবর ছিটিয়ে দিবে। 

    ১০. অতঃপর দু‘আ পাঠ করবে। উল্লেখ্য যে, ওযূর অঙ্গগুলো এক, দুই ও তিনবার ধোয়া যায়। (তিনবার ধোয়া সুন্নত, এর অধিক ধোয়া পানির অপচয়ের কারণ এবং সুন্নতের খেলাফ, তবে অযু সমন্ধনীয় সব অঙ্গ ভালোভাবে ভিজানো জরুরি)।


    ওযুর নিয়ত ও দোয়া 


    ওযুর নিয়ত আরবি বাংলা উচ্চারণ অর্থ সহ


    উচ্চারন: নাওয়াইতু আন আতাওয়াজ্জায়া লিরাফয়িল হাদাসি ওয়া ইস্তিবাহাতা লিছছালাতি ওয়া তাকাররুবান ইলাল্লাহি তা’য়ালা।
    অর্থ: আমি ওযুর নিয়ত করছি যে নাপাকি দূর করার জন্য বিশুদ্ধরূপে নামাজ আদায়ের উদ্দেশ্য এবং আল্লাহ তা’য়ালা।

    ওযুর দোয়া আরবি বাংলা উচ্চারণ অর্থ সহ

    উচ্চারণ: বিসমিল্লাহিল আলিয়্যিল আজিম। ওয়াল হামদুলিল্লাহি আলা দ্বীনিল ইসলাম। আল ইসলামু হাক্কুন। ওয়াল কুফরু বাতিলুন। ওয়াল ইসলামু নুরুন। ওয়াল কুফরু জুলমাত।

    অর্থ: মহান ও পরাক্রান্ত আল্লাহ তায়ালার নামে আরম্ভ করছি। আমি দ্বীন ইসলামের উপর আছি। তাই আল্লাহর জন্য যাবতীয় প্রশংসা।নিশ্চই ইসলাম সত্য ও কুফুর বাতিল এবং ইসলাম আলো ও কুফুর অন্ধকার।

    ওযুর ফরজ কয়টি ও কি কি

    ওযুর চার ফরয:

    ১. সমস্ত মুখমন্ডল কপালের উপরিভাগের চুলের গোড়া হইতে থুতনী পর্যন্ত, এক কর্নের লতি থেকে অন্য কর্নের লতি পর্যন্ত ধৌত করা।
    ২.উভয় হাত কনুইসহ ধৌত করা।
    ৩.চারভাগের একভাগ মাথা মাসেহ করা ( ঘন দাঁড়ি থাকিলে আঙ্গুলী দ্বারা খেলাল করা ফরয )।
    ৪.উভয় পা টাখনু গিরা সহকারে ধৌত করা ।

    ওযুর সুন্নত কয়টি ও কি কি

    অযুর ১৪টি সুন্নাত

    ১. নিয়ত করা।
    ২. বিসমিল্লাহ্‌ বলে ওযু শুরু করা।
    ৩. হাতের আঙ্গুল খিলাল করা।
    ৪. উভয় হাত কবজি পর্যন্ত ধৌত করা।
    ৫. মিসওয়াক করা।
    ৬. তিনবার কুলি করা।
    ৭. তিনবার নাকে পানি দেয়া।
    ৮. সম্পূর্ন মুখ মন্ডল তিনবার ধৌত করা।
    ৯. উভয় হাতের কনুইসহ তিনবার ধৌত করা।
    ১০. সমস্ত মাথা একবার মাসেহ করা।
    ১১. টাখনু সহ উভয় পা তিবার ধৌত করা।
    ১২. পায়ের আঙ্গুল খিলাল করা।
    ১৩. এক অঙ্গ শুকানোর পূর্বে অন্য অঙ্গ ধৌত করা।
    ১৪. ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ওযুর কাজ গুলো সম্পূর্ন করা।

    ওযু ভঙ্গের কারন কি কি

    ওযু ভঙ্গের কারণ সমূহ

    ১. পায়খানা প্রস্রাবের রাস্তা দিয়া কোন কিছু বের হওয়া
    ২. মুখ ভরে বমি হওয়া
    ৩. শরীরের কোন জায়গা হতে রক্ত, পুঁজ বা পানি বের হয়ে গড়িয়ে পড়া
    ৪. থুথুর সাথে রক্তের ভাগ সমান বা বেশি হওয়া
    ৫. চিৎ বা কাত হয়ে হেলান দিয়ে ঘুম যাওয়া
    ৬. পাগল, মাতাল, অচেতন হওয়া এবং
    ৭. নামাযে উচ্চস্বরে হাসা।


    ওযুর নিয়ম ছবি

    ওযুর নিয়ম ছবি

    ওযুর নিয়ম ছবি

    ওযুর নিয়ম ছবি



    Tag:ওযু করার নিয়ম ও নিয়ত,দোয়া, ওযুর নিয়ম ছব

                                   
    Previous Post Next Post

      আপনার নামের অর্থ জানতে ক্লিক করুন


    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন