পুষ্টি চাহিদা পূরণে ফলের অবদান | এসএসসি/দাখিল (ভোকেশনাল) এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান ৫ম সপ্তাহের ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল কাল্টিভিশন-২ (এসাইনমেন্ট ৩) | ২০২১ সালের এসএসসি/দাখিল (ভোকেশনাল) ৫ম সপ্তাহের ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল কাল্টিভিশন-২ (২য় পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান


    এসএসসি/দাখিল (ভোকেশনাল) এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান ৫ম সপ্তাহের ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল কাল্টিভিশন-২ (এসাইনমেন্ট ৩)  


    পুষ্টি চাহিদা পূরণে ফলের অবদান

    ১.ফলের পুষ্টিমানঃ

    আমরা জীবনধারণের জন্য যা খাই তাই খাদ্য । যে সব দ্রব্য ভক্ষণ করলে শরীরের ক্ষয়পূরণ , বৃদ্ধি সাধন , তাপ উৎপাদন ও রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় তাকেই খাদ্য বলে । খাদ্য গ্রহনের মুখ্য উদ্দেশ্য হলাে শরীরকে সুস্থ ও কর্মক্ষম রাখা । শরীরের সুস্থতা নির্ভর করে দেহের পুষ্টি সাধন প্রক্রিয়ার উপর । মানুষের খাদ্য তালিকায় ফল একটি উল্লেখ যােগ্য স্থান দখল করে আছে । ফলে আমাদের দেহের প্রয়ােজনীয় প্রায় সকল পুষ্টি উপাদানই পাওয়া যায় । বিশেষত বিভিন্ন প্রকার ভিটামিন ও খনিজ পদার্থের সবচেয়ে সহজ ও সস্তা উৎস হলাে ফল । ফল রান্না ছাড়া পাকা বা কাঁচা অবস্থায় সরাসরি খাওয়া যায় । ফলের পুষ্টি উপাদান সহজে শরীর গ্রহণ করতে পারে । ফলের বিদ্যমান বিভিন্ন প্রকার খনিজ উপাদান যেমন - ক্যালসিয়াম , লৌহ , ফসফরাস ইত্যাদি শরীরে বিপাকে সহায়তা করে । এছাড়াও ফল শরীরের অন্যান্য প্রয়ােজনীয় উপাদান যেমন- আমিষ , শর্করা , চর্বি , ভিটামিন , পানি ইত্যাদি সরবরাহ করে শরীরকে সুস্থ ও সবল রাখে । ফল খাদ্য হিসাবে পুষ্টির অন্যতম বাহক । 


    বিভিন্ন ফলের পুষ্টিমান 

    নিচের সারণিতে আমাদের দেশে প্রচলিত ও অপ্রচলিত বিভিন্ন ফলে বিদ্যমান পুষ্টি উপাদানের পরিমাণ উল্লেখ করা হলাে ।


    ২. প্রয়ােজনীয় পুষ্টি উপাদান ও ৩. ফলের অবদানঃ 


    আমিষ / প্রােটিন সরবরাহে ফলের অবদান 

    দেহের নতুন মাংসপেশি গঠন , বর্ধন এবং সংরক্ষণ আমিষের কাজ । ফল আমিষের প্রধান উৎস না হলেও বিভিন্ন ফলে কিছু না কিছু আমিষ থাকে । ফলে বিদ্যমান আমিষ অন্যান্য উদ্ভিদ উৎস হতে পাওয়া আমিষের আত্তীকরন । বাড়িয়ে দেয় । অন্যান্য উৎস হতে যে আমিষ পাওয়া যায় তাতে সব ধরনের অ্যামাইনাে অ্যাসিড নেই বিধায় , ফল ভক্ষণ করলে ঘাটতি এমাইনা এসিডের অভাব দূর হয় এবং শরীরে চাহিদা মােতাবেক সুষম আমিষ প্রাপ্তি নিশ্চিত হয় । কাঁঠাল , কলা , কিসমিস , খেজুর , ডুমুর , কাজু বাদাম , বেল ইত্যাদি আমিষের উৎস হিসেবে বেশ সমৃদ্ধ ।

    শর্করা : দেহের শক্তির প্রধান উৎস হলাে শর্করা । পুষ্টি বিধানে জরুরি উপাদান শর্করা সরবরাহে ফল গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে । ফল দানাজাতীয় শর্করার পরিপূরক উৎস হিসেবে গণ্য হতে পারে । জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা ( ফাও ) এর মতে শরীরের চাহিদার শতকরা পাঁচভাগ ক্যালরি সবজি ও ফল থেকে আসা উচিত । কিসমিস , খেজুর , করমচা , কলা , বেল ইত্যাদি শর্করা প্রধান ফল । 


    চবি : চর্বি জাতীয় খাদ্য দেহে সঞ্চিত শক্তি হিসেবে কাজ করে । মােট চাহিদার অন্তত দশভাগ খাদ্য শক্তি স্নেহজাতীয় খাদ্য হতে আসা উচিত । অন্যথায় স্নেহ দ্রবণীয় ভিটামিনসমূহ যেমন - ভিটামিন এ , ডি , ই এবং কে এর শােষণ বাধাপ্রাপ্ত হয় । কাজুবাদাম , এভাকেডা , করমচা , বাদাম , নারিকেল , কাঁঠাল বীজ , কদবেল ইত্যাদি ফল চর্বি সমৃদ্ধ । 


    ভিটামিন : শারিরিক পুষ্টির জন্য ভিটামিনের অবদান অনস্বীকার্য । আর এ ভিটামিনের প্রধান উৎসই হলাে শাকসবজি ও ফলমূল । মানবদেহের চাহিদার শতকরা প্রায় ৯০-৯৫ ভাগ ভিটামিন ' সি ' , ৬০-৮০ ভাগ ভিটামিন ' এ ' এবং ২০-৩০ ভাগ ভিটামিন ' বি ' সবজি ও ফল হতে আসে । বিভিন্ন ভিটামিন সরবরাহে ফলের গুরুত্ব নিম্নে আলােচনা করা হলাে

    ভিটামিন ' এ ' : শরীরের পুষ্টি সাধনে এবং দৃষ্টিশক্তি অক্ষুন্ন রাখতে ভিটামির প্রয়ােজনীয়তা অত্যধিক । এর অভাবে রাতকানা রােগ হয় এবং রােগ প্রতিরােধ ক্ষমতা হ্রাস পায় । হলুদ শাঁসবিশিষ্ট ফল যেমন : আম , পেঁপে , আমড়া , কাঁঠাল , ফুটি , বিলিম্বি , আলুচা , কমলা , বাতাবিলেবু , বেল , কাজুবাদাম , ডুমুর প্রভৃতি ফলে যথেষ্ট পরিমাণে ভিটামিন ‘ এ ’ বিদ্যমান রয়েছে । 


    ভিটামিন বি ১ ( Thiamine ) : শ্বেতসার বিপাক প্রক্রিয়া এবং স্নায়ুতন্তের স্বাভাবিক কাজ নিয়ন্ত্রণে ভিটামিন বি ১ উল্লেখযােগ্য ভূমিকা রাখে । এর অভাবে ক্ষুধা কমে যায় , বেরিবেরি রােগ দেখা দেয় , চর্মের অনুভব ক্ষমতা হ্রাস পায় এবং পক্ষাঘাত দেখা দিতে পারে । কাজুবাদাম , আখরােট , বাদাম , খােবানী , কলা , লিচু , কমলা , আর , কিসমিস ইত্যাদি ফলে অধিক পরিমাণে ভিটামিন বি ১ রয়েছে ।


    ৪. ফলে ভিটামিনের উপস্থিতিঃ 


    খনিজ পদার্থ ও শরীরের সুষ্ঠু গড়নের জন্য খনিজ পদার্থ অপরিহার্য । বিভিন্ন ধরনের প্রধান খনিজ পদার্থগুলাে হচ্ছে ক্যালসিয়াম , লৌহ , পটাসিয়াম , ম্যাঙ্গানিজ , সােডিয়াম , ফসরাস , সালফার , আয়াডিন ইত্যাদি । এদের মধ্যে কোন কোন গুলাে শরীরে হাড় , রক্ত বা হরমােন তৈরির কাজে , খনিজ পদার্থ দেহের অম্ল- ক্ষারত্ব এবং বিভিন্ন অঙ্গে জলীয় অংশের ভারসাম্য নিয়ন্ত্রণ করে । বিভিন্ন এনজাইমের সুষ্ঠ কার্যাবলি সম্পাদনেও খনিজ পদার্থ সাহায্য করে । ক্যালসিয়ামের দিক হতে বাদাম , লিচু , করমচা , কদবেল , আখরােট , কিসমিস , আমলকি , বেল , কাজুবাদাম , খেজুর , ডুমুর , লেবু , কাগজীলেবু , কমলা প্রভৃতি ফসফরাসের দিক হতে বাদাম , কাজুবাদাম , কদবেল , এভােকেডাে , কলা , বেল , সুপারি , খেজুর , ডুরিয়ান , করমচা , বেদানা , কিসমিস ইত্যাদি এবং লৌহের দিক হতে করমচা , খেজুর , কাজুবাদাম , আখরােট , কিসমিস , কঁচা আম , বাদাম , স্ট্রবেরী , সুপারি , আপেল , আমলকি , ডুমুর , লিচু , পেয়ারা , শরীফা ইত্যাদি উল্লেখযােগ্য।


    ২০২১ সালের এসএসসি/দাখিল (ভোকেশনাল) ৫ম সপ্তাহের ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল কাল্টিভিশন-২ (২য় পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান



    Tag: এসএসসি/দাখিল (ভোকেশনাল) এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান ৫ম সপ্তাহের ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল কাল্টিভিশন-২ (এসাইনমেন্ট ৩),  ২০২১ সালের এসএসসি/দাখিল (ভোকেশনাল) ৫ম সপ্তাহের ফ্রুট এন্ড ভেজিটেবল কাল্টিভিশন-২ (২য় পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান, পুষ্টি চাহিদা পূরণে ফলের অবদান

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন