কৃমির ঔষধের নাম কি - কৃমি রোগের ঔষধ | কৃমির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম


প্রিয় বন্ধুগণ Educationblog.Com এর পক্ষ থেকে সবাইকে জানাই আসসালামু আলাইকুম। 

আশা করি আল্লাহুর অশেষ রহমতে আপনারা ভালো আছেন। 

আপনাদের সুবিধার জন্য আমরা এই পোস্টের মাধ্যমে নিয়ে এলাম ডাক্তারি পরামর্শ অনুযায়ী  কৃমির ঔষধ খাবার নিয়ম এবং কৃমির ঔষধের নাম কি ও কৃমি রোগের ঔষধ। 

আশা করি আপনাদের অনেক উপকার হবে আমাদের দেওয়া সঠিক তথ্যটি থেকে ।


    কৃমির ওষধু | কৃমির ঔষধের নাম কি

    ☠️☠️ রেজিস্টার চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোনো ঔষুধ গ্রহন করবেন না। ☠️☠️


    প্রিয় পাঠক-পাঠিকাবৃন্দ এখানে আমরা আপনাদের ঔষধ বা রোগের ঔষধগুলোর ব্যাপারে প্রাথমিক ধারণা দিচ্ছি। আপনার মূল সমস্যা জানার জন্য অবশ্যই আপনাকে রেজিস্টার চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। রোগ সম্পর্কে সম্পূর্ন না জেনে শুধুমাত্র সাইট থেকে প্রাথমিক ধারণা নিয়ে কোনো ঔষধ গ্রহন করে আপনার শারীরিক কোনো সমস্যা হলে Educationblog.com এর কোনো অ্যাডমিন দায়ী নয়। 


    কৃমির ওষুধের নাম কি

    ওষুধের নামঃ কৃমির ওষুধ সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। স্কুল বা কলেজে যে কৃমির ওষুধ গুলো দেওয়া হয় অথবা সরকারি হাসপাতালে কিংবা সরকারি ফার্মেসিতে কৃমির ওষুধ গুলো দেওয়া হয় সেগুলো সরকারি কৃমির ওষুধ বলে আমরা জানি। এই কৃমির ঔষধগুলো রেজিস্টার্ড ডাক্তারদের প্রেসক্রিপশন কিংবা ব্যবহার করতে দেয়ার অনুমতি দেওয়া নেই। এগুলো আপনি শুধুমাত্র সরকারি হাসপাতাল বা ফার্মেসিতে পেয়ে যাবেন। আর প্রতিবছর সরকার এগুলো স্কুল-কলেজে ফ্রি দিয়ে থাকে। আপনি সেখান থেকে এগুলো পেয়ে যাবেন।


    আর আপনি যদি ফার্মাসিউটিক্যালস কৃমির ওষুধ সেবন করতে চান তাহলে ফার্মাসিউটিক্যালস কৃমির ওষুধের গ্রুপ হল আলবেনডাজল। আপনি আলবেনডাজল জাতীয়  ওষুধ কৃমির জন্য ব্যবহার করতে পারেন। আলবেনডাজল জাতীয় ওষুধ সাধারণত দুইটি ফরম্যাটে পাওয়া যায়। আলবেনডাজল সাসপেনশন এবং আলবেনডাজল ট্যাবলেট। আলবেনডাজল সাসপেনশন 2-12 বছরের শিশুদের জন্য। আলবেনডাজল ট্যাববলেট 12 বছরের অধিক বয়সিরা সেবন করতে পারেন। আলবেনডাজল একটি চুষে খাওয়ার ট্যাবলেট।


    কৃমি রোগের ঔষধ 

    পার্শপ্রতিক্রিয়াঃ আলবেনডাজল জাতীয় ঔষধ সেবনের ফলে হালকা 

    মাথাব্যাথা ও হজমের গোলযোগ দেখা দিতে পারে। তাই আলবেনডাজল জাতীয় ওষুধ কোন কিছু খাবার কমপক্ষে 1 ঘণ্টা পরে সেবন করা উচিত এবং ওষুধ সেবন করার পর কমপক্ষে 1 ঘন্টা পর্যন্ত কিছু খাওয়া যাবে না।


    কৃমির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম

    যাদের ক্ষেত্রে গ্রহন করা যাবেনাঃ গর্ভাবস্থায় অতিরিক্ত সমস্যা না হলে আলবেনডাজল জাতীয় ওষুধ সেবন না করাই ভালো। যাদের আলবেনডাজল জাতীয় ঔষধের কোন উপাদানের প্রতি শারীরিক সংবেদনশীলতা রয়েছে তারা এ ধরনের ওষুধ সেবন থেকে বিরত থাকুন।



    Tag: কৃমির ঔষধের নাম কি,  কৃমি রোগের ঔষধ,  কৃমির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন