নেক স্ত্রী ও সন্তান লাভের দোয়া |ছেলে সন্তান লাভের আমল,উপায় |মেয়ে সন্তান লাভের দোয়া,ও কৌশল

 আসছালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠকবৃন্ধ সবাই কেমন আছেন।আসা করি সবাই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। বন্ধুরা আজকে আমরা তোমাদের নেক স্ত্রী ও সন্তান লাভের দোয়া |ছেলে সন্তান লাভের আমল,উপায় |মেয়ে সন্তান লাভের দোয়া,ও কৌশল  শেয়ার করবো। যারা নেক স্ত্রী ও সন্তান লাভের দোয়া |ছেলে সন্তান লাভের আমল,উপায় |মেয়ে সন্তান লাভের দোয়া,ও কৌশল  খুজতেছেন আজকের পোস্টটি তোমাদের জন্য।


       
       

    নেক স্ত্রী ও সন্তান লাভের দোয়া

    رَبَّنَا هَبْ لَنَا مِنْ أَزْوَاجِنَا وَذُرِّيَّاتِنَا قُرَّةَ أَعْيُنٍ وَاجْعَلْنَا لِلْمُتَّقِينَ إِمَامًا

    উচ্চারণ : ‘রাব্বানা হাব্লানা মিন আযওয়াঝিনা ওয়া জুর্রিয়াতিনা কুর্রাতা আইয়ুনিও ওয়াঝআলনা লিলমুত্তাক্বিনা ইমামা।’
    অর্থ : ‘হে আমাদের প্রতিপালক! আপনি আমাদের এমন স্ত্রী ও সন্তান দান করুন। যারা আমাদের চোখ জুড়িয়ে দেয় আর আমাদেরকে (পুরুষদেরকে) মুত্তাকি লোকদের নেতা বানিয়ে দাও।’ (সুরা ফুরক্বান : আয়াত ৭৪)

    নেক স্ত্রী ও সন্তান লাভের দোয়া |ছেলে সন্তান লাভের আমল,উপায় |মেয়ে সন্তান লাভের দোয়া,ও কৌশল


    ছেলে সন্তান লাভের আমল,উপায়

    ছেলে সন্তান হবার কিছু আমল আমরা তুলে ধরছি।  যেমন-

    ১) যে ব্যক্তি স্ত্রী সহবাসের পূর্বে আল্লাহ তাআলার পবিত্র গুণবাচক নাম (اَلْمُتَكَبِّرُ) ‘আল-মুতাকাব্বিরু’- ১০ বার পাঠ করবে; আল্লাহ তাআলা তাকে সৎ নেককার ছেলে সন্তান দান করবেন ইনশাআল্লাহ।

    ২) সূরা আম্বিয়ার ৮৯ নং আয়াতের এ অংশ প্রতি নামাযের পর তিনবার তিলাওয়াত করবেন।  ইনশাআল্লাহ পুত্র সন্তান হবে।

    رَبِّ لَا تَذَرْنِي فَرْدًا وَأَنتَ خَيْرُ الْوَارِثِينَ [٢١:٨٩

    বাংলা উচ্চারণঃ রব্বি লা তাজারনী ফারদান ওয়া আংতা খইরুল ওয়ারিছীন। অর্থ- ‘হে আমার পালনকর্তা আমাকে সন্তানহীন ছেড়ে দেবেন না। আর আপনিই তো সর্বোত্তম ওয়ারিস।’

    ৩) সহবাসের সময় দোয়া পড়ুন; দোয়াটি এই-

    بِسْمِ اللَّهِ ، اللَّهُمَّ جَنِّبْنَا الشَّيْطَانَ ، وَجَنِّبْ الشَّيْطَانَ مَا رَزَقْتَنَا

    ‘হে আল্লাহ! আপনার নামে শুরু করছি, আপনি আমাদের নিকট হতে শয়তানকে দূরে রাখুন। আমাদের এ মিলনের ফলে যে সন্তান দান করবেন, তা হতেও শয়তানকে দূরে রাখুন।’

    আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, যখন তোমাদের কেউ আপন স্ত্রীর সঙ্গে মিলিত হওয়ার ইচ্ছা করে তখন উক্ত দোয়া পড়ে যেন মিলিত হয়। এ মিলনে যদি তাদের কিসমতে কোনো সন্তান আসে, সে সন্তানকে শয়তান কোনো ক্ষতি করতে পারবে না। (বুখারি ৬৩৮৮)

    ৪) প্রত্যেক ফরয-নামাজের পর سبحان الله (সুবহানাল্লাহ) ৭০ বার এবং أستغفر الله ( আস্তাগফিরুল্লাহ) ৭০ বার পড়বেন।  তারপর তেলাওয়াত করবেন সূরা নূহ-এর ১০,১১, ১২ নং আয়াত অর্থাৎ,

    اسْتَغْفِرُوا رَبَّكُمْ إِنَّهُ كَانَ غَفَّارًا يُرْسِلِ السَّمَاء عَلَيْكُم مِّدْرَارًا وَيُمْدِدْكُمْ بِأَمْوَالٍ وَبَنِينَ وَيَجْعَل لَّكُمْ جَنَّاتٍ وَيَجْعَل لَّكُمْ أَنْهَارًا

    ‘তোমরা তোমাদের পালনকর্তার ক্ষমা প্রার্থনা কর। তিনি অত্যন্ত ক্ষমাশীল। তিনি তোমাদের উপর অজস্র বৃষ্টিধারা ছেড়ে দিবেন, তোমাদের ধন-সম্পদ ও সন্তান-সন্ত তি বাড়িয়ে দিবেন, তোমাদের জন্যে উদ্যান স্থাপন করবেন এবং তোমাদের জন্যে নদীনালা প্রবাহিত করবেন।’

    এ আয়াতগুলো তেলাওয়াত করবেন। আমলটি তিন দিন করবেন। তৃতীয় দিনে স্ত্রী-সহবাস করবেন। ইনশা-আল্লাহ আল্লাহ আপনাকে নেক সন্তান দান করবেন।’ 

    ৫) সুরা সাফফাতে এসেছে, বৃদ্ধ বয়সে ইবরাহিম আ. আল্লাহ তাআলার নিকট দোয়া করেছিলেন সৎ পুত্র সন্তানের জন্য। আল্লাহ তাআলা তার দোয়া কবুল করলেন। তাঁকে নেক পুত্র সন্তান দান করলেন। এর মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা শিক্ষা দিয়েছেন, যাতে বান্দা এ দোয়ার মাধ্যমে তাঁর নিকট সন্তান কামনা করতে পারে। দোয়াটি এই- رَبِّ هَبْ لِي مِنَ الصَّالِحِينَ উচ্চারণ- রব্বি হাব লী মিনাস স_লিহীন।  অর্থ- ‘হে আমার পরওয়ারদেগার! আমাকে এক সৎপুত্র দান করুন।’ (সূরা সাফফাত ১০০)

    ৬) প্রত্যেক নামাযের পর এই আয়াতখানা পড়ুন رَبِّ هَبْ لِي مِن لَّدُنْكَ ذُرِّيَّةً طَيِّبَةً إِنَّكَ سَمِيعُ الدُّعَاء । উচ্চারণ- রব্বি হাব লী মিল্লাদুংকা যুররিয়্যাতাং ত্বইয়িবাহ, ইন্নাকা সামী’উদ দু’আ।  অর্থ- হে, আমার পালনকর্তা! আপনার নিকট থেকে আমাকে পুত-পবিত্র সন্তান দান করুন। নিশ্চয়ই আপনি প্রার্থনা শ্রবণকারী। (সূরা আল-ইমরান ৩৮)

    ৭) ৪০দিন পর্যন্ত একাধারে ৪০ বার আল্লাহ তাআলার পবিত্র গুণবাচক নাম (اَلْاَوَّلُ) ‘আল-আউয়ালু’ পাঠ করতে হবে।

    মেয়ে সন্তান লাভের দোয়া

    মানুষ ছেলে সন্তান লাভের যে আকাঙ্খা করে সেভাবে মেয়ে সন্তান লাভর আকাঙ্খা খুব কমে করে।তবে হাদিসে মেয়ে সন্তান লালনের প্রতি নবী করিম(صلي الله عليه وسلم) উৎসাহ প্রদান করছেন।যেমন হাদিসের সারমর্ম:-যার ৩ টি কন্যা সন্তান আছে সে তাদের আন্তরিক ভাবে লালন পালন করে উপযুক্ত পাত্রের সাথে বিবাহ দিবে নবী করিম ( صلي الله عليه وسلم) বলেন আমি আর সে জান্নাতে এক সাথে থাকব।  আসলে যার মেয়ে সন্তান আছে সে ভাগ্যবান আর যে মেয়ে সন্তান লাভের আকাঙ্খা করে সেও ভাগ্যবান। হাদিসে ছেলে সন্তান লাভের আমলের মত মেয়ে সন্তান লাভের আমল আছে কিনা আমার জানা নেই। তবে আপনি কিছু আমল এভাবে করতে পারেন। সদকা করার মধ্যমে যে আমার কন্যা সন্তান হলে আমি মাদরাসা/ মসজিদে দান অনুদান করব।যেভাবে মান্নতের কথা কুরআনে সুরা আ-ল-ই ইমরানের ৩৫ নম্বর আয়াতে এসেছে।  اذ قالت امرات عمران رب اني نذرت لك ما في بطني محررا فتقبل مني انك انت السميع العليم. অর্থাৎ:যখন ইমরানের স্ত্রী আরয করলো, হে আমার রব, আমি তোমার জন্য মান্নত করছি যা আমার গর্ভে রয়েছে যে,একান্ত তোমারই সেবায় থাকবে।সুতরাং তুমি আমার পক্ষ থেকে কবুল করে নাও।
    ২)আল্লাহর কাছে বেশি বেশি দোয়া করেন যে,হে আল্লাহ আমাকে তোমার নবীর সাথে জান্নাতে থাকার ব্যবস্তাপত্র হিসাবে মেয়ে সন্তান দান কর।
    ৩) হাজত পূর্ণের আমল করতে পারেন। যেমন যোহরের সময় পূর্ণ বিসমিল্লাহ সহ ৩১৩ বার  اَللَّهُمَ صَلِّ عَلٰي مُحَمَّدٍ وُعَلٰي اٰلِ مُحَمَّدٍ حَبِيْبِكَ اِنِيْ مُشْتَقَاقُ بِنُوْرِ جَمَالِكَ وَرَسُوْلِكَ ياَ اللهُ يَا اللهُ يَا اللهُ.  এই আমল করলে কন্যা সন্তন লাভ হবে। ان شاءالله  ৪) এক নেক্কার ব্যক্তি বলের সহধর্মিনির গর্ভে সময় তার পেটে ফাতেমা,খাদেজা,আয়শা নাম লিখে এই নিয়ত করুন যে কন্যা সন্তান হলে তার নাম ফাতেমা,আয়েশা বা খাদিজা এভাবে বরকত নাম রাখবেন আল্লাহ চায়তো এই নামের সদকায় আল্লাহ কন্যা সন্তান দান করবেন।

    টাগঃনেক স্ত্রী ও সন্তান লাভের দোয়া,ছেলে সন্তান লাভের আমল,উপায়,মেয়ে সন্তান লাভের দোয়া,ও কৌশল

                                   
    Previous Post Next Post


    Any business enquiry contact us

    Email:- Educationblog24.com@gmail.com

     



    Any business enquiry contact us

    Email:- Educationblog24.com@gmail.com

    (সবচেয়ে আগে সকল তথ্য,গুরুত্বপূর্ণ সকল পিডিএফ, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Facebook এবং Telegram পেজ)