স্বপ্নদোষ কি | স্বপ্নদোষ ইসলাম কি বলে | স্বপ্নদোষ কেন হয়

স্বপ্নদোষ কি | স্বপ্নদোষ ইসলাম কি বলে | স্বপ্নদোষ কেন হয়


আসছালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠক  সবাই কেমন আছেন। আসা করি সবাই ভালো আছেন। বন্ধুরা অনেকে স্বপ্নদোষ কি,  স্বপ্নদোষ ইসলাম কি বলে, স্বপ্নদোষ কেন হয় এইসব প্রশ্ন করে থাকেন। তাই আজকে আমরা এক সাথে এই ৩ টি প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। আসা করি আপনাদের এই প্রশ্নের বিস্তারিত উত্তর আমাদের এই পোস্টে পেয়ে যাবেন। তাহলে চলুন দেখে নেই স্বপ্নদোষ কি,  স্বপ্নদোষ ইসলাম কি বলে, স্বপ্নদোষ কেন হয় প্রশ্নের উত্তর গুলো।

       
       

    স্বপ্নদোষ কি

    প্রথমে আমরা জেনে নেই স্বপ্নদোষ কি? নৈশকালীন নির্গমন বা ঘুমন্ত/নিদ্রারত রাগমোচন বা নিদ্রারতি, যৌন স্বপ্ন, সিক্ত স্বপ্ন বা নৈশপতন, বাংলায় স্বপ্নদোষ নামেও পরিচিত, হল ঘুমন্ত দশায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে অর্থাৎ কোন সক্রিয় কর্মকাণ্ড ব্যতিরেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে রাগমোচন ঘটা, যেখানে পুরুষ বা ছেলেদের ক্ষেত্রে বীর্যপাত ঘটে এবং মহিলা বা মেয়েদের ক্ষেত্রে শুধু রাগমোচন বা সিক্ততা বা উভয় ঘটে থাকে। বাংলায় শব্দটির নামে দোষ থাকলেও মূলত এটি দোষ নয় বরং স্বাভাবিক ঘটনা। এটি বয়ঃসন্ধি বা উঠতি তারুণ্যে সবচেয়ে বেশি ঘটে থাকে, তবে কোন কোন ক্ষেত্রে বয়ঃসন্ধিকাল পার হবার অনেক পরেও এটি ঘটতে পারে। মহিলাদের ক্ষেত্রে যোনিপথ পিচ্ছিল থাকা সকল ক্ষেত্রে স্বপ্নদোষের বিষয়ে নিশ্চয়তা প্রদান করতে পারে না।

    স্বপ্নদোষ ইসলাম কি বলে

    স্বপ্নদোষ একটি স্বাভাবিক পক্রিয়া,স্থলনের দিক থেকে মানুষের দেহে বীর্য হল পেশাবের মত; যা প্রয়োজন মত তৈরী হয় এবং সময় মত বের হয়ে যায়। বীর্য মানবদেহে একটি অমূল্য বস্তু। কিন্তু তা দেহের ভিতরেই থেকে গেলে ক্ষতিকর। তাই কুদরতের নিয়ম হল, অবিবাহিত যুবকেরও বীর্য স্বাভাবিক ও প্রকৃতিগতভাবে দেহ থেকে যথা সময়ে নির্গত হয়ে যায়। বিশেষ করে স্বপ্নের মাধ্যমে যৌনউত্তেজনামুলক কিছু দেখলে বা করলে বীর্যপাত হয়।  তাই বলা যায় ইসলামে স্বপ্নদোষ কোন সমস্যা নয়। যদি মাসে ৪/৫ বার হয় তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। আর অবশ্যই স্বপ্নদোষ হলে গোসল ফরজ হয়ে যায়। ঘুম থেকে উঠে আগে ফরজ গোসল করে নিবেন।

    স্বপ্নদোষ কেন হয়

    সপ্নদোষ কমবেশি প্রাপ্তবয়স্ক সবার হয়ে থাকে। বীর্য মানবদেহে একটি অমূল্য বস্তু। মানুষের দেহে বীর্য হল পেশাবের মত; যা প্রয়োজন মত তৈরী হয় এবং সময় মত বের হয়ে যায়। কিন্তু তা দেহের ভিতরেই থেকে গেলে ক্ষতিকর। তাই কুদরতের নিয়ম হল, অবিবাহিত যুবকেরও বীর্য স্বাভাবিক ও প্রকৃতিগতভাবে দেহ থেকে যথা সময়ে নির্গত হয়ে যায়। বিশেষ করে স্বপ্নের মাধ্যমে যৌনউত্তেজনামুলক কিছু দেখলে বা করলে বীর্যপাত হয়।

    টাগঃস্বপ্নদোষ কি, স্বপ্নদোষ ইসলাম কি বলে, স্বপ্নদোষ কেন হয়

                                   
    Previous Post Next Post

      আপনার নামের অর্থ জানতে ক্লিক করুন


    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন