বিজয় দিবসের তাৎপর্য জেনে নিন


আসসালামুআলাইকুম সবাইকে Educationblog.Com এ স্বাগতম। 

আশা করি আল্লাহুর অশেষ রহমতে আপনারা সবাই ভালো আছেন। আলহামদুলিল্লাহ আমরাও আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালো আছি।

বন্ধুরা আমরা আজকে এই পোস্টের মাধ্যমে আলোচনা করবো বিজয় দিবসের তাৎপর্য সম্পর্কে। ১৬ই ডিসেম্বরকে কেন্দ্র করে কেন এই বিজয় দিবস পালন হয় সেই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

আশা করি বিজয় দিবসের তাৎপর্য সম্পর্কে জানতে পেরে আপনাদের অনেক উপকার হবে। 


    বিজয় দিবসের তাৎপর্য জেনে নিন

    বিজয় দিবসের তাৎপর্য —

    ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর এই দিনটিকে স্মরণের পিছনে রয়েছে বাঙালির রক্তঝরা গল্পের বাস্তব কাহিনী। 

    ১৬ ডিসেম্বর যেটাকে আমরা বিজয় দিবস উপলক্ষে পালন করি। আসুন আমরা জেনে নি আমাদের বাংলাদেশে বাঙালি জাতির এই বিজয় কিভাবে আসলো। 

    ১৯৭১ সালে ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মাধ্যমে আমরা অর্জন করেছি এই বিজয়। এই রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ ছিলো পশ্চিম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাঙালি জাতির মুক্তির যুদ্ধ। হাজার - লক্ষ বাঙালি জাতির প্রাণের বিনিময়ে পেয়েছি আমরা এই বিজয়। হাজার-হাজার নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাড়িয়ে পেয়েছি এই বিজয়। যেটা ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর নামে পরিচিত। 

    পাক হানাদার বাহিনী বাঙালির উপর যে চরম নির্যাতন শাসন করেছে তা ভাষায় প্রকাশ করার নয়। ১৯৬৬ সালের ৬ দফা থেকে শুরু করে ১৯৭১ সাল স্বাধীনতা সংগ্রাম পর্যন্ত অনেক আন্দোলন করে পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে বাঙালি বিজয় অর্জন করেছে। 

    এই বিজয় অর্জিত হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নেতৃত্বে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির জন্য, বাঙালি জাতির মুক্তির জন্য ১৯৬৬ সালের ৬ দফা থেকে ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান এবং ১৯৭০ সালের সাধারণ ও প্রাদেশিক নির্বাচন এবং ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রাম সবকিছু সংগঠিত হয় তার নেতৃত্ব। 

    বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরের পাশাপাশি এদেশের সাধারণ মানুষ, শ্রমজীবী, বিভিন্ন বড় বড় অফিসার, এবং শহীদ বুদ্ধিজীবীগন এদেশ রক্ষার্থে অনেক বড় অবদান রেখেছে। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের অনুপ্রেরণা এবং সাহস যোগানো ভাষণের মাধ্যমে এবং বিভিন্ন মুক্তির আন্দোলনের মাধ্যমে এবং ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা ঘোষণা দেওয়ার ফলে বীর বাঙালি জাতি ৯ মাস যুদ্ধের মাধ্যমে বিজয় নিশ্চিত করেছে। 

    এই ৯ মাস রক্তক্ষয়ী ৩০ লক্ষ শহীদের বিনিময়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পশ্চিম পাকিস্তানের পরাজয় স্বীকারে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে। তারসাথে স্বাধীন হয়েছে এদেশের পাক হানাদার বাহিনী দ্বারা নির্যাতিত বাঙালি জাতি। 

    তাই আমরা আজও গৌরবের সাথে এই মহান দিন অর্থাৎ ১৬ ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস পালন করি। 



    Tag: বিজয় দিবসের তাৎপর্য জেনে নিন

    Previous Post Next Post