৮ম/অষ্টম শ্রেণীর /শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ | ৮ম শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান শারিরীক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য | স্কাউটিং , গার্ল গাইড ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সােসাইটি

 

৮ম/অষ্টম শ্রেণীর /শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ | ৮ম শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান শারিরীক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য | স্কাউটিং , গার্ল গাইড ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সােসাইটি

       
       
                       

    ৮ম/অষ্টম শ্রেণীর /শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ 

     ৮ম শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান শারিরীক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য 

    এসাইনমেন্টের শিরােনামঃ-স্কাউটিং , গার্ল গাইড ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সােসাইটি। 

    শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বলতে সাধারণত হাত , পা , নাক , কান , চোখ , মাথা , গলা ইত্যাদিকে বােঝায় । শিক্ষার্থীদের এসব অঙ্গপ্রত্যঙ্গের প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করা অতীব প্রয়ােজন । প্রতিটি মানুষ জীবনে চলার পথে অনেক সময় দুর্ঘটনার মুখােমুখি হয় । এই দুর্ঘটনা মােকাবেলার জন্য প্রাথমিক চিকিৎসার ধারণা লাভ করা প্রত্যেকের কর্তব্য । প্রাথমিক চিকিৎসা জানা থাকলে ডাক্তার না আসা পর্যন্ত দুর্ঘটনার ক্ষতির পরিমাণ অনেকটা কমানাে যায় । 

    প্রাথমিক চিকিৎসার ইংরেজি হলাে ফার্স্ট এইড ( First Aid ) । First অর্থ প্রথম আর Aid অর্থ সাহায্য । কোনাে আহত ব্যক্তিকে সর্বপ্রথম যে সেবা শুশ্রুষা দেওয়া হয় , তাই প্রাথমিক চিকিৎসা । প্রাথমিক চিকিৎসা হচ্ছে বিজ্ঞানসম্মত সেই শিক্ষা , যা আয়ত্তে থাকলে আকস্মিক কোনাে দুর্ঘটনায় সাহায্য করতে পারে , যাতে রােগীর জীবন রক্ষা পায় । প্রাথমিক চিকিৎসার স্রষ্টা হলেন ডা . ফ্রেডিক এজমার্ক । তিনি জার্মানির একজন বিশিষ্ট শল্য চিকিৎসক। তিনিই প্রথম চিন্তা করেন , যেকোনাে দুর্ঘটনায় আহত রােগীকে ডাক্তারের নিকট নিয়ে যাওয়ার আগে রােগীর অবস্থার অবনতি যাতে না ঘটে সে ব্যবস্থা গ্রহণ করা । অতএব প্রাথমিক চিকিৎসা হচ্ছে , হঠাৎ দুর্ঘটনায় আহত রােগীকে ডাক্তার আসার পূর্বে প্রাথমিক সেবা শুশ্রুষা করা । 
    প্রাথমিক চিকিৎসাকারীর কাজ প্রধানত তিনটি- 
    ক ) রােগ নির্ণয় করা 
    খ ) চিকিৎসা 
    গ ) স্থানান্তর ।

    ক . রােগ নির্ণয় : কী কারণে অসুস্থতার সৃষ্টি হয়েছে তা খুঁজে বের করা । 

    খ . চিকিৎসা : ডাক্তার আসার আগে রােগীর অবস্থার অবনতি যাতে না ঘটে সেজন্য প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া। 

    গ . স্থানান্তর : দুর্ঘটনার গুরুত্ব অনুযায়ী রােগীকে নিরাপদ জায়গায় বা ডাক্তারের নিকট বা হাসপাতালে যত ভাড়াতাড়ি সম্ভব স্থানান্তর করা ।

    হঠাৎ আঘাত পেলে শরীরের ওই নির্দিষ্ট জায়গায় অতিরিক্ত চাপে ফুলে যায় । এ ধরনের আঘাতে যে সমস্যা হয় তাকে সাধারণত সফট টিস্যু ইনজুরি বলে । আঘাত হাতে - পায়ের , কোমরের বা শরীরের অন্য জায়গার মাংসপেশি , হাড় , হাড়ের জোড় , নার্ভ বা লিগামেন্টের অবস্থানগত পরিবর্তনের জন্য ব্যথা হয় । আবার কেউ মাথায় আঘাত পেতে পারে , ফলে বাহ্যিক - অভ্যন্তরীণ দুই ধরনেরই ক্ষতি হতে পারে । একেক জায়গার আঘাতে চিকিৎসার ধরন অন্য জায়গার মাংসপেশি , হাড় , হাড়ের জোড় , নার্ভ বা লিগামেন্টের অবস্থানগত পরিবর্তনের জন্য ব্যথা হয় । আবার কেউ মাথায়ও আঘাত পেতে পারে , ফলে বাহ্যিক - অভ্যন্তরীণ দুই ধরনেরই ক্ষতি হতে পারে । একেক জায়গার আঘাতে চিকিৎসার ধরন পরিবর্তিত হয়ে থাকে । সব আঘাতই গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে । কিন্তু মাথায় আঘাত সব সময় বেশি গুরুত্ব বহন করে ।

    হঠাৎ হাতে - পায়ে আঘাত পেলে কী হয়— 

    আঘাতপ্রাপ্ত জায়গা ফুলে যায় । 

    প্রচণ্ড ব্যথা হয় . 

    ওই অংশটি লাল হয়ে যায় এবং গরম থাকে । এটা হয় কোনাে দুর্ঘটনায় আঘাত পেলে , খেলাধুলার সময় আঘাত পেলে , মাংসপেশিতে হঠাৎ টান লাগলে কিংবা পা পিছলে পড়ে গেলে । আর এসব কারণে সফট টিস্যু ইনজুরি হয় । আঘাতের তীব্রতা বেশি হলে হাড় ভেঙে যেতে পারে । হাড় ভেঙে গেছে সন্দেহ হলে অবশ্যই এক্স - রে করাতে হবে এবং প্রয়ােজন হলে চিকিৎসা নিতে হবে ।

    আমার একজন সহপাঠী হাতে ব্যথা পেল।কিছুক্ষণ পর দেখা গেল তার হাত ফুলে গেছে । এমন অবস্থায় । আমি যা যা পদক্ষেপ নিব তার নিচে লেখা হলাে । আক্রান্ত জায়গায় বরফ ব্যবহার করতে হবে ১৫-২০ মিনিট ধরে । ভিজা গামছার ভেতর বরফ নিয়ে আক্রান্ত অংশে মুড়িয়ে দিন । যদি বেশি ঠান্ডা লাগে , ৩ মিনিট পর উঠিয়ে ফেলুন । শুকনাে কাপড় দিয়ে ৩ মিনিট পর উঠিয়ে ফেলুন । শুকনাে কাপড় দিয়ে মুছে আবার ১২-১৪ মিনিট ধরে পেঁচিয়ে রাখুন । 

    আক্রান্ত অংশ ফুলে গেলে ক্রেব ব্যান্ডেজ দিয়ে পেঁচিয়ে রাখুন , যাতে আর ফুলতে না পারে । আক্রান্ত অংশ বালিশ বা অন্য কিছু দিয়ে উঁচু করে রাখুন , যাতে হৃৎপিণ্ড বরাবর থাকে । এই অবস্থায় হালকা ব্যায়াম , হালকা মালিশ , আলট্রাসাউন্ড থেরাপি ব্যথা অংশ বালিশ বা অন্য কিছু দিয়ে উঁচু করে রাখুন , যাতে হৃৎপিণ্ড বরাবর থাকে । এই অবস্থায় হালকা ব্যায়াম , হালকা মালিশ , আলট্রাসাউন্ড থেরাপি ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে । রােগীকে ৬-৭ দিন পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হয় । লক্ষ রাখতে হবে রােগী আবার যেন আঘাত না পায়।

    আরো দেখুনঃ- ৮ম শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের গণিত এসাইনমেন্ট সমাধান দেখতে ক্লিক করুন

    Tag:৮ম/অষ্টম শ্রেণীর /শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ | ৮ম শ্রেণির ১৮তম সপ্তাহের এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর/সমাধান শারিরীক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, স্কাউটিং , গার্ল গাইড ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সােসাইটি

                                   
    Previous Post Next Post
    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন  

     

    আপনার নামের অর্থ জানতে ক্লিক করুন