বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংকের ভূমিকা এবং ব্যাংকের শ্রেণিবিভাগকরণ | এইচএসসি এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২২ সালের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা (৮ম সপ্তাহ) এসাইনমেন্ট -২ | ২০২২ সালের এইচএসসি ৮ম সপ্তাহের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা (২য় পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর


       
       

    এইচএসসি এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২২ সালের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা (৮ম সপ্তাহ) এসাইনমেন্ট -২  


    বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংকের ভূমিকা এবং ব্যাংকের শ্রেণিবিভাগকরণ


    ব্যাংক ( Bank ) : ব্যাংক হলাে একটি আর্থিক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান । এর মূল উদ্দেশ্য মুনাফা অর্জন করা । তবে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম অর্থসংক্রান্ত । অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে ব্যাংক তার মুনাফা অর্জন করে ।Bank নামক ইংরেজি শব্দটির উৎপত্তি জার্মান শব্দ Banke এবং ইতালিয়ান শব্দ “ এ Banco হতে । এর আভিধানিক অর্থ হলাে নদীর তীর , তটরেখা , কূল - কিনারা , ধন - ভাণ্ডার , লম্বা টুল বা বেঞ্চ , অর্থ গচ্ছিত রাখা ইত্যাদি । ব্যাংককে ধার করা অর্থের ধারক বলা হয় । অর্থ লেনদেনের মধ্যস্থকারী হিসেবে কাজের বিনিময়ে কিছু লাভকারী আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে ব্যাংক বলা হয় ।

    Professor W. Hoqk . এর মতে , " যে প্রতিষ্ঠান অর্থের দ্বারা অর্থ সৃষ্টি করে তাকে ব্যাংক বলে ' ( The bank is an institution which creates money with money ) .

    সুতরাং বলা যায় যে , ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে জনগণের আমানত গচ্ছিত রাখে আবার তাদেরই ঋণ হিসেবে প্রদান HET করে এবং পারস্পরিক দেনা - পাওনা নিষ্পত্তি করে , ঋণ সৃষ্টি ও ঋণ নিয়ন্ত্রণ করে ।


    ব্যাংকিং ( Banking ) : ব্যাংক হতে ব্যাংকিং এর উৎপত্তি । ইংরেজিতে ব্যাংকিং ( Banking ) শব্দের আভিধানিক অর্থ হচ্ছে ব্যাংক ব্যবসায় বা ব্যাংকের কার্যাবলি । ব্যাংক কর্তৃক সম্পাদিত কার্যাবলির সমষ্টিকে ব্যাংকিং বলা হয় । ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমানত সংগ্রহ করে , ঋণদান , ঋণ আমানত সৃষ্টি করে , বিল ও বন্ড ভাঙ্গানাে ইত্যাদি আর্থিক কার্যাবলি সম্পাদন করে থাকে ।

    অধ্যাপক চেম্বার বলেন , " Banking is the business of banker . " 

    সুতরাং , মুনাফা অর্জনের নিমিত্তে ব্যাংক যে সকল কার্যাবলি সম্পাদন করে সেগুলােকে ব্যাংকিং বলা হয় ।


    ব্যাংকার ( Banker ) : ব্যাংক ব্যবসায়ে নিয়ােজিত যে সকল ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ব্যাংকিং কার্যাবলি পরিচালনা করে তাদেরকে ব্যাংকার বলা হয় ।

    অধ্যাপক জি , ক্রাউথারের মতে , " নিজের ও অন্যের ঋণের ব্যবসায় নিয়ােজিত ব্যক্তিকে ব্যাংকার বলা হয় । অর্থাৎ , ব্যাংকের ব্যবসায়ের সাথে জড়িত সকলকেই ব্যাংকার বলা যায় । তাই আমরা ব্যাংকার বলতে সকল এদের সকলকে বুঝব । যেমন : ব্যাংকের চেয়ারম্যান , ব্যবস্থাপনা পরিচালক , সকল কর্মকর্তা , সকল কর্মচারী , ব্যাংকের মালিক বা উদ্যোক্তা , ব্যাংক ব্যবসায়ে নিয়ােজিত একজন মালিক , অংশীদারি কারবার অথবা কর্পোরেশন ।


    অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংকের গুরুত্ব ( Importance of Bank in the Economic Development ) : 

    ব্যাংকের মাধ্যমে সমস্ত অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয় বলে অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংকের ভূমিকা অনস্বীকার্য । তাই বলা হয় , " The bank is , the life blood of the modern economic development . " অর্থাৎ ব্যাংক হলাে আধুনিক অর্থনীতির জীবনীশক্তি ।

    নিম্নে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ব্যাংকের চারটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আলােচনা করা হলাে :

    ১। বিনিময়ের মাধ্যম সৃষ্টি : বাংলাদেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলাে চেক , ড্রাফট , পে - অর্ডার , প্রত্যয়পত্র , ক্রেডিট কার্ড ইত্যাদি চালু করে বিনিময়ের মাধ্যম সৃষ্টি করে লেনদেন সহজতর করে ।

    ২। অভ্যন্তরীণ বাণিজ্যের উন্নয়ন : ব্যাংকগুলাে মূলধন সরবরাহ অর্থের নিরাপদ সংরক্ষণ , অর্থ স্থানান্তর শেয়ার ও ঋণপত্র ক্রয় - বিক্রয় তথ্য সরবরাহ ও উপদেশ দান ইত্যাদি কার্যাবলির মাধ্যমে দেশের অভ্যন্তরীণ বাণিজ্যের উন্নয়নে ব্যাপক সংরক্ষণ , অর্থ স্থানান্তর শেয়ার ও ঋণপত্র ক্রয় - বিক্রয় তথ্য সরবরাহ ও উপদেশ দান ইত্যাদি কার্যাবলির মাধ্যমে দেশের অভ্যন্তরীণ বাণিজ্যের উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে থাকে ।

    ৩। কর্মসংস্থান : এদেশের ব্যাংকমূহ দেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে এবং উৎপাদনশীল খাতে ঋণদান ও বিনিয়ােগ করে নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করে।

    ৪। জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন ব্যাংকিং ব্যবস্থার উন্নয়নের ফলে দেশের জনগণের আয় বৃদ্ধি , নিত্য নতুন উৎপাদন ও ভােগের কারণে জীবনযাত্রার মান দিন দিন উন্নত হচ্ছে । এক্ষেত্রে ব্যাংগুলাের ভূমিকা অনবদ্য ।

    উপরিউক্ত আলােচনা থেকে এটাই প্রতীয়মান হয় যে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংকের ভূমিকা অবর্ণনীয় । এজন্য বলা হয় , " The bank is the centre of " ARTAL ACADEMY modern economy .


    ব্যাংকের শ্রেণিবিভাগ : কালের বিবর্তনে অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরনের ব্যাংকিং ব্যবস্থার আত্মপ্রকাশ লক্ষনীয় । নিম্নে ব্যাংকের শ্রেণিবিভাগ আলােচনা করা হলাে : .

    ক ) সংগঠন কাঠামাের ভিত্তিতে ব্যাংক : সংগঠন ভিত্তিতে ব্যাংক বিভিন্ন পারে । যেমন 

    ১। একমালিকানা ব্যাংক : একক মালিকানায় যে ব্যাংক গঠিত ও পরিচালিত হয় তাকে একমালিকানা ব্যাংক বলে ।

    ২। অংশীদারি ব্যাংক : দেশে বহাল অংশীদারি আইন অনুযায়ী যে ব্যাংক গঠিত ও পরিচালিত হয় তাকে অংশীদারি ব্যাংক বলে ।

    ৩। কোম্পানি ব্যাংক : কোম্পানি আইন বলে যে ব্যাংক গঠিত ও পরিচালিত হয় তাকে কোম্পানি ব্যাংক বলে ।

    ৪।সমবায় ব্যাংক : পারস্পরিক সহযােগিতার ভিত্তিতে যে ব্যাংক গঠিত ও পরিচালিত হয় তাকে সমবায় ব্যাংক বলে।  যেমন : বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক লিঃ ।

    ৫। রাষ্ট্রীয় ব্যাংক : রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীনে বা সরকার কর্তৃক গঠিত ও পরিচালিত ব্যাংককে রাষ্ট্রীয় ব্যাংক বলে । যেমন : জনতা ও সােনালী ব্যাংক লিঃ। 


    খ ) তালিকা ভিত্তিক ব্যাংক : 

    তালিকাভুক্তির ভিত্তিতে ব্যাংক দু'ধরনের হতে পারে । 

    যেমন ১। তালিকাভুক্ত ব্যাংক : যে সকল ব্যাংক দেশের অভ্যন্তরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আওতাভুক্ত হয়ে এবং নিয়মনীতি অনুসরণ করে চলে তাদেরকে তালিকাভূক্ত ব্যাংক বলে । এরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সুযােগ - সুবিধা ভােগ করে থাকে । যেমন- সকল বাণিজ্যিক ব্যাংক ।

    ২। অ - তালিকাভুক্ত ব্যাংক : যে সকল ব্যাংক দেশের আইন অনুসারে গঠিত ও পরিচালিত হলেও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তালিকাভুক্ত হয় না সেগুলােকে অ - তালিকাভুক্ত ব্যাংক বলা হয় । যেমন- দ্যা রাজশাহী ব্যাংক লিঃ ।


    গ ) মালিকানা ভিত্তিক ব্যাংক : 

    মালিকানার ভিত্তিতে ব্যাংকে চারভাগে ভাগ করা যায় । যেমন :

    ১। সরকারি ব্যাংক : যে ব্যাংক সরকারি উদ্যোগে গঠিত , পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয় তাকে সরকারি ব্যাংক বলে । যেমন- সােনালী ব্যাংক লিঃ ।

    ২। বেসরকারি ব্যাংক : ব্যক্তিগত উদ্যোগে যে সকল ব্যাংক সংগঠিত , পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয় সেগুলােকে বেসরকারি ব্যাংক বলে । যেমন- মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিঃ ।

    ৩। যৌথ ব্যাংক : সরকারি ও বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে যে ব্যাংক গঠিত , পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয় তাকে যৌথ ব্যাংক বলে । যেমন- রূপালী ব্যাংক লিঃ ।

    ৪। স্বায়ত্তশাসিত ব্যাংক : যে ব্যাংক সরকারের বিশেষ আইন ও সংবিধানের বিশেষ আইন দ্বারা গঠিত এবং নিয়ন্ত্রিত হয় তাকে স্বায়ত্তশাসিত ব্যাংক বলে। যেমন বাংলাদেশ ব্যাংক ।

    পরিশেষে বলা যায় যে , বর্তমান আধুনিক যুগে উপরােক্ত ব্যাংকগুলাের বিভিন্ন শ্রেণিবিভাগ লক্ষ্য করা গেলেও ব্যাংকগুলাে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে ।



    ২০২২ সালের এইচএসসি ৮ম সপ্তাহের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা (২য় পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর 



    Tag: এইচএসসি এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২২ সালের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা (৮ম সপ্তাহ) এসাইনমেন্ট -২,  ২০২২ সালের এইচএসসি ৮ম সপ্তাহের ফিন্যান্স, ব্যাংকিং ও বিমা (২য় পত্র) এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাংকের ভূমিকা এবং ব্যাংকের শ্রেণিবিভাগকরণ

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন