সমাজকর্মের ক্ষেত্রগুলোকে চিহ্নিতকরণ পূর্বক এটি পাঠে ব্যাক্তি,দল ও সমষ্টির উন্নতির সম্ভাব্যতা নিরুপণ | এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২২ সমাজকর্ম (৫ম সপ্তাহ) এসাইনমেন্ট -১ | ২০২২ সালের এইচএসসি ৫ম সপ্তাহের সমাজকর্ম এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর


    এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২২ সমাজকর্ম (৫ম সপ্তাহ) এসাইনমেন্ট -১  


    সমাজকর্মের ক্ষেত্রগুলোকে চিহ্নিতকরণ পূর্বক এটি পাঠে ব্যাক্তি,দল ও সমষ্টির উন্নতির সম্ভাব্যতা নিরুপণ

    সমাধানঃ

    সমাজকর্মের ধারণাঃ 

    সমাজকর্ম হচ্ছে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিনির্ভর একটি সাহায্যকারী ও সক্ষমকারী পেশা , যা সমস্যাগ্রস্ত ব্যক্তি , দল ও সমষ্টি তথা মানুষকে এমনভাবে সাহায্য করে যাতে মানুষ তার বস্তুগত ও অবস্তুগত সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেই নিজেদের সমস্যা সমাধানে সক্ষম হয়ে উঠে । সমাজকর্ম ব্যক্তি , দল ও সমষ্টির সম্পদ ও অন্তর্নিহিত শক্তিকে জাগ্রত করে এবং সমস্যা সমাধান প্রক্রিয়ায় তাদের সক্রিয় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে । তাই সমাজকর্মকে empowering পেশা হিসেবে অভিহিত করা হয় । আধুনিক শিল্পসমাজের বহুমুখী ও জটিল সমস্যা মােকাবিলার জন্য সমাজকর্ম পেশার উদ্ভব হয়েছে ; যদিও পেশাদার তথা আধুনিক সমাজকর্মের শিকড় প্রথিত রয়েছে পারস্পরিক সহমর্মিতা , সহানুভূতি ও ধর্মীয় অনুপ্রেরণায় পরিকল্পিত সেচ্ছাসেবী সমাজসেবা কার্যক্রম ও প্রচেষ্টার মধ্যে ।


    সমাজকর্ম একটি বিজ্ঞান ও কলা , যা ব্যক্তি , দল ও সমষ্টির সমস্যা মােকাবিলায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিনির্ভর প্রাতিষ্ঠানিক ও পেশাগত কর্মকাণ্ড পরিচলিত করে । শিল্পভিত্তিক সমাজ ব্যবস্থা জটিল থেকে জটিলতর হওয়ার প্রেক্ষাপটে সমাজকর্ম পেশার আবির্ভাব হয়েছে । সমাজকর্ম সামাজিক বিজ্ঞানের একটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা যার সূচনা ও বিকাশ একদিনে হয়নি । বস্তুত সর্বজনীন মানবমর্যাদা ও মানবাধিকারকে সমুন্নত রেখে মানবকল্যাণ নিশ্চিতকরণ প্রচেষ্টার একটি অংশ হিসেবে সমাজবিজ্ঞান , মনােবিজ্ঞান , রাষ্ট্রবিজ্ঞান , অর্থনীতি , নৃ - বিজ্ঞান , মনােচিকিৎসাসহ বিজ্ঞানের অন্যান্য শাখার জ্ঞান ও দক্ষতার সমন্বয়ে সমাজকর্ম একটি সমন্বিত ব্যবহারিক সামাজিক বিজ্ঞান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে । শিল্পবিপ্লবােত্তর সময়ে মানুষের জীবনযাত্রার সামাজিক ও অর্থনৈতিক গতিশীলতার পাশাপাশি সৃষ্টি হয় মনাে - সামাজিক সংকট ও সমস্যা । এই সংকট ও সমস্যা ক্রমেই জটিল আকার ধারণ করলে প্রচলিত সমাজকল্যাণ ও সমাজসেবা অপ্রতুল , অপর্যাপ্ত ও অকার্যকর হয়ে উঠে । 


    এই প্রেক্ষাপটে নতুনভাবে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিনির্ভর সাহায্য ও সেবামূলক ব্যবস্থা গড়ে তােলার প্রয়ােজনীয়তা দেখা দেয় । এর ফলশ্রুতিতে বৈজ্ঞানিক জ্ঞান ও দক্ষতা নির্ভর পেশাগত কর্মকাণ্ড হিসেবে সমাজকর্মের সূচনা হয় । ইংল্যান্ডে সর্বপ্রথম সমাজকর্মের সূত্রপাত হলেও আমেরিকায় পেশাদার সমাজকর্মের ধারণা , পদ্ধতি ও কৌশল পূর্ণতা লাভ করেছে । সমাজকর্মের বিকাশে যারা বিশেষ অবদান রেখেছেন তাঁরা হলেন জ্যান এডামস ( Jane Addams ) ( ১৮৬০-১৯৩৫ ) , ম্যারী এ্যালেন রিচমণ্ড ( Mary Ellen Richmond ) ( ১৮৬১-১৯২৮ ) এবং উইলিয়াম হ্যানরি বিভারিজ ( William Henry Beveridge ) ( ১৮৭৯-১৯৬৩ ) । সমাজকর্ম মূলত বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি নির্ভর একটি পেশাগত কর্মকাণ্ড , যা মানুষকে তার সামাজিক ভূমিকা পালন ক্ষমতার সংরক্ষণ , সমৃদ্ধিকরণ , উন্নয়ন ও পুনরুদ্ধারে সক্রিয় ও সক্ষম করে অনুকূল সামাজিক পরিবেশ সৃষ্টিতে ভূমিকা পালন করে ।


    সমাজকর্মের পরিধিঃ 

    সমাজকর্মের পরিধি বলতে সাধারণত সমাজকর্মের অনুশীলন বা প্রয়ােগক্ষেত্রকে ( fields of social work practice ) বােঝায় । সমাজকর্মের ব্যবহারিক বা প্রায়ােগিকদিক নিয়েই এর পরিধি নির্ধারিত হয় । পেশা হিসেবে সমাজকর্ম মানুষকে তার পরিবেশের সাথে সামঞ্জস্য রেখে কার্যকরভাবে আন্তঃক্রিয়ায় সাহায্য করে , তাই এর পরিধি ব্যাপক ও বিস্তৃত । এ প্রসঙ্গে R. A. Skidmore এবং M. G. Thackeray বলেন , “ বৃহৎ দৃষ্টিকোণ হতে সমাজের অধিক সংখ্যক মানুষের দৈহিক , মানসিক , আবেগীয় , আধ্যাত্মিক ও আর্থিক প্রয়ােজনপূরণ এবং কল্যাণ সাধনই সমাজকর্মের অন্তর্ভূক্ত । ” ( Social work , in a broad sense , encompasses the well being and interests of large number emotional , spiritual and economic needs . ) অন্যদিকে মণীষী Elizabeth Wickenden বলেন , “ সমাজকর্মের অন্তর্ভুক্ত হলাে সেসব আইন , কর্মসূচি , সুযােগ - সুবিধা ও সেবামূলক কার্যক্রম , যেগুলাে জনগণের কল্যাণের জন্য স্বীকৃত মৌলিক প্রয়ােজনাদি পূরণের নিশ্চয়তা বিধান বা জোরদার ও উত্তম সামাজিক শৃংঙ্খলা রক্ষায় নিয়ােজিত । ” 


    ( Social Work includes those laws , programs , benefits and services which assure or strengthen provisions for meeting social needs recognized as basic to the wellbeing of the population and the better function of the social order . ) 37715781 Catatto frei State Boards of Charities , Charity Organization Society ( COS ) 472 Settlement House Movement কর্যক্রমগুলাে কতগুলাে ধারা ( dimensions ) যেমন- যত্ননির্ভর ( caring ) , প্রতিকারধর্মী ( curing ) , পরিবর্তনমূলক ( changing ) , সেবামূলক ( servicing ) ও ক্ষমতায়নমূলক ( empowering ) সংযুক্ত করেছে , যা সমাজকর্মের ক্ষেত্রকে বিস্তৃত ও ব্যাপক করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে । 


    সমাজকর্মের অন্তর্ভুক্ত বিষয় হচ্ছে মানুষ ও তার পরিবেশ ( environment ) এবং এমনকি প্রতিবেশ ( e ( ecology ) , যা মানুষের ওপর প্রভাব বিস্তার করে থাকে । সমাজ ও সামাজিক সমস্যা নিয়ে সমাজকর্ম আলােচনা করে থাকে । সামাজিক সমস্যার স্বরূপ , প্রকৃতি , কারণ ও প্রভাব বিশ্লেষণে প্রয়ােজন সামাজিক গবেষণা । তাই সমাজকর্মের বিস্তৃত পরিধির আওতায় সামাজিক গবেষণা অন্তর্ভুক্ত । সামাজিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ সমাজকর্মের অন্যতম লক্ষ্য । সামাজিক নীতি নির্ধারণ ও পরিকল্পনা প্রণয়ন এবং তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন ব্যতীত সামাজিক সমস্যা মােকাবিলা করে সামাজিক উন্নয়ন আনয়ন সম্ভব নয় । এজন্য সামাজিক নীতি ও পরিকল্পনা প্রণয়ন ও তার সঠিক বাস্তবায়ন সমাজকর্মের পরিধিভুক্ত । এছাড়া সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ , সমাজ সংস্কার , সমষ্টি উন্নয়ন , সংশােধনমূলক কার্যক্রম ও মানব সম্পদ উন্নয়ন সমাজকর্মের


    আওতাভুক্তঃ  সমাজকর্মের পরিধি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে Brenda DuBois এবং Karla KrogSrud Miley ( ১৯৯২ ) তাঁদের " Social Work : An Empowering Profession ” গ্রন্থে উল্লেখ করেন , পরিবার ও শিশুদের সেবা ( family and children's services ) , স্বাস্থ্য ও পুনর্বাসন ( health and rehabilitation ) , মানসিক স্বাস্থ্য ( mental health ) , তথ্য ও প্রেরণ ( information and raferral ) , জীবিকাভিত্তিক সমাজকর্ম ( occuption social work ) , কিশাের ও অপরাধী সংশােধন ( juvenile and adult corrections ) , বয়স্ক বা প্রবীণ সেবা ( gerotogical services ) , স্কুল সমাজকর্ম ( school social work ) , বাসস্থান ( housing ) , আয় নির্বাহ ( income maintnance ) এবং সমষ্টি উন্নয়ন ( community development ) হচ্ছে সমাজকর্মের প্রধান অনুশীলনক্ষেত্র । আমেরিকার জাতীয় সমাজকর্মী সমিতি ( NASW ) প্রকাশিত Encyclopedia of Social Work- এ সমাজকর্মের নিম্নোক্ত ক্ষেত্রসমূহ উল্লেখ করা হয়েছে : 


    ১.মাদকাসক্তি নিয়ন্ত্রণ , প্রতিরােধ ও চিকিৎসা সেবা ( Services for control , prevention and treatment of drug addiction ) ; 

    ২. বয়স্ক সেবা ( Services for aging ) ; 

    ৩. শিশু ও পরিবার কল্যাণ সেবা ( Child and family welfare services ) ; 

    ৪. সমষ্টির কল্যাণ ও মানবসেবা পরিকল্পনা ( Community welfare and planning human for services ) ; 

    ৫. অপরাধ ও কিশাের অপরাধী সংশােধন সেবা ( Correctional services for crime and delinquency ) ;

    ৬. প্রতিবন্ধী ও দৈহিক প্রতিবন্ধী সেবা ( Services for disability and physical handicap ) ; 

    ৭. সমাজকর্ম পেশার উন্নয়নে শিক্ষা সেবা ( Educational services for professional development of social work ) ; 

    ৮. পরিবেশ এবং সামাজিক পরিকল্পনা ( Environment and social planning ) ; 

    ৯. পরিবার পরিকল্পনা ও জনসংখ্যা পরিকল্পনা ( Family planning and population planning ) ; 

    ১০. পরিবারিক সেবা পারিবারিক শিক্ষা , পরামর্শ ( Family services- family life education , counseling ) ; 

    ১১. স্বাস্থ্য সেবা- কমিউনিটি মানসিক স্বাস্থ্য , প্রজনন পরামর্শ , স্বাস্থ্য ও হাসপাতাল পরিকল্পনা , মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্য ) , জনস্বাস্থ্য কর্মসূচি ( Health services- community mental health , genetic counseling , health and hospital planning maternal and child health , public health program ) ; 

    ১২. গৃহায়ন ও গৃহকেন্দ্রিক সেবা ( Housing and home maker services ) ;


    সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তা 

    সমাজকর্ম হচ্ছে মানুষকে সামাজিক ভূমিকা পালনে সক্ষম করে তােলার অভিপ্রায়ে প্রতিশ্রুতিশীল একটি বহুমুখী পেশা । মানবজ্ঞানের বিভিন্ন শাখা হতে অর্জিত জ্ঞানের সমন্বয়ে গঠিত সমাজকর্ম হচ্ছে বৈজ্ঞানিক জ্ঞান , পেশাগত মূল্যবােধ ও দক্ষতাভিত্তিক ব্যবহারিক সামাজিক বিজ্ঞান । সমাজের জটিল ও বহুমুখী সমস্যার প্রতিকার , প্রতিরােধ ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে সমাজকর্ম শিক্ষা ও তার প্রয়ােগ বিশেষ তাৎপর্য বহন করে । বর্তমান বিশ্বের বহুমুখী সমস্যার বৈশিষ্ট্য , প্রকৃতি , কারণ ও প্রভাব সম্পর্কে যথাযথ অনুসন্ধান করে সমস্যা সমাধানে সমাজকর্মের বস্তুনিষ্ঠ জ্ঞানের গুরুত্ব উল্লেখযােগ্য । সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করে সমস্যা মােকাবিলায় বাস্তবমুখী ও যুগােপযােগী নীতি , পরিকল্পনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সমাজকর্মের জ্ঞান বিশেষভাবে উপযােগী । 


    সনাতন বদন্যতা নির্ভর সমাজকল্যাণ ব্যবস্থায় মানুষের সমস্যার সাময়িক ও তাৎক্ষণিক সমাধানে চেষ্টা চালানাে হয় । এতে করে প্রকৃতপক্ষে মানুষের সমস্যার কোনাে সমাধান হয় না বললেই চলে । অন্যদিকে আধুনিক সমাজকর্ম টিমওয়াক অ্যাপ্রােচের ( team work approach ) মাধ্যমে উপযােগী পদ্ধতি ও কৌশল প্রয়ােগ করে মানুষের সমস্যার দীর্ঘমেয়াদী ও স্থায়ী সমাধানে প্রচেষ্টা চালায় । তাই বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে সমাজকর্ম শিক্ষার গুরুত্ব ও প্রয়ােজনীয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে । দারিদ্র্য , জনসংখ্যাস্ফীতি , নিরক্ষরতা , মাদকাসক্তি , পারিবারিক বিশৃংখলা , অপরাধ , কিশাের অপরাধ , মানব পাচার , জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যাসহ অন্যান্য সমস্যার কার্যকর মােকাবিলায় সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তা রয়েছে ।


    সনাতন বদন্যতা নির্ভর সমাজকল্যাণ ব্যবস্থায় মানুষের সমস্যার সাময়িক ও তাৎক্ষণিক সমাধানে চেষ্টা চালানাে হয় । এতে করে প্রকৃতপক্ষে মানুষের সমস্যার কোনাে সমাধান হয় না বললেই চলে । অন্যদিকে আধুনিক সমাজকর্ম টিমওয়াক অ্যাপ্রােচের ( team work approach ) মাধ্যমে উপযােগী পদ্ধতি ও কৌশল প্রয়ােগ করে মানুষের সমস্যার দীর্ঘমেয়াদী ও স্থায়ী সমাধানে প্রচেষ্টা চালায় । তাই বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে সমাজকর্ম শিক্ষার গুরুত্ব ও প্রয়ােজনীয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে । দারিদ্র্য , জনসংখ্যাস্ফীতি , নিরক্ষরতা , মাদকাসক্তি , পারিবারিক বিশৃংখলা , অপরাধ , কিশাের অপরাধ , মানব পাচার , জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যাসহ অন্যান্য সমস্যার কার্যকর মােকাবিলায় সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তা রয়েছে । বিশ্বের উন্নত দেশসমূহে চিকিৎসা , আইন , প্রকৌশল প্রভৃতি পেশার মতাে সমাজকর্ম পেশাকেও গুরুত্ব দেয়া হয় । সেসব দেশে সমাজকর্মে ডিগ্রিধারীরা রেজিষ্ট্রেশন ও লাইসেন্সপ্রাপ্ত হয়ে সমাজকর্মের পেশাগত অনুশীলন করেন ; যা সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তাকেই তুলে ধরে । বিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধ থেকে এখন পর্যন্ত ইউরােপ , অস্ট্রেলিয়া , এশিয়া , ল্যাটিন আমেরিকা ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে সমাজকর্মে উচ্চশিক্ষার উপর বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে । উন্নত বিশ্বের দেশসমূহে মনাে - সামাজিক সমস্যা যেমন- দাম্পত্য কলহ , বিবাহ বিচ্ছেদ , হতাশা , মানসিক দ্বন্দ্ব , আত্মহত্যা , মাদকাসক্তি ইত্যাদি সমাধানে সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তা রয়েছে । অন্যদিকে উন্নয়নশীল ও অনুন্নত দেশে আর্থ সামাজিক সমস্যা যেমন- দারিদ্র্য , নিরক্ষরতা , অপরাধ ও কিশাের অপরাধ ইত্যাদি সমস্যা সমাধানে সমাজকর্ম শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে ।


    বিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধ থেকে অদ্যবধি আমেরিকা , ইউরােপ , অস্ট্রেলিয়া , এশিয়া , ল্যাটিন আমেরিকা ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে প্রায় দুই হাজারের অধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজকর্মে উচ্চ শিক্ষা চালু রয়েছে । এসব বিশ্ববিদ্যালয় হতে প্রতি বছর পঞ্চাশ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী সমাজকর্মে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করছে । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় এক হাজার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজকর্ম বিষয়ে স্নাতক , স্নাতকোত্তর ও পিএইচ.ডি . ডিগ্রি প্রদান করা হচ্ছে । সমাজকর্মে উচ্চ শিক্ষার গুরুত্ব ও প্রয়ােজনীয়তা বিবেচনা করে জাপানের টোকিওতে কলেজ অব সােশ্যাল ওয়ার্ক নামে একটি পৃথক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে । চীনে ২০০৯ সালে ১০ টি বিশ্ববিদ্যালয় দিয়ে শুরু করে এ পর্যন্ত প্রায় ৩০০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজকর্ম বিভাগ খােলা হয়েছে এবং ২০১২ সাল থেকে ৩৪ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচ.ডি . ডিগ্রি প্রােগ্রাম চালু রয়েছে ; যা সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তা তুলে ধরছে । বাংলাদেশেও উচ্চ মাধ্যমিক , স্নাতক , স্নাতকোত্তর , এম.ফিল ও পিএইচ.ডি . পর্যায়ে সমাজকর্ম শিক্ষা চালু রয়েছে । বাংলাদেশে পাঁচটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে প্রায় একশতটির মতাে কলেজে সমাজকর্মে স্নাতক প্রােগ্রাম চালু আছে । এছাড়া কিছু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়েও সমাজকর্ম শিক্ষা শুরু হয়েছে । বাংলাদেশে সমাজকর্ম শিক্ষার গুরুত্ব ও প্রয়ােজনীয়তা উপলব্ধি করে BCSWE নিয়মিত ভাবে সেমিনার , কনফারেন্স ও জার্নাল প্রকাশ করছে । সুতরাং একথা অনস্বীকার্য যে বর্তমান বিশ্ব ব্যবস্থার প্রেক্ষাপটে সমাজকর্ম শিক্ষার প্রয়ােজনীয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে ।


    দল সমাজকর্মীর ভূমিকাঃ 

    দল একটি গতিশীল সত্ত্বা । এর অন্যতম উপাদান হলাে সমাজকর্মী যার ভূমিকা বিভিন্নমূখী । একজন দল সমাজকর্মী কখনাে নেতৃত্বদানকারী , কখনাে নিয়ন্ত্রণকারী , কখনাে মধ্যস্থতাকারী , কখনাে সাহায্যকারী আবার কখনাে কর্মসূচি প্রণয়নকারীর ভূমিকা পালন করে থাকেন । এক্ষেত্রে অবশ্যই দল সমাজকর্মীকে প্রতিষ্ঠান এবং দলের লক্ষ্য , উদ্দেশ্য , কর্মসূচি , নীতিমালা , সম্পদ , সামর্থ্য , দলীয় সদস্যদের চাহিদা ইত্যাদির দিকে খেয়াল রাখতে হয় । নিচে দল সমাজকর্মীর ভূমিকা আলােচনা করা হলাে :

    ১. দলের সদস্যদের ভূমিকা ও দায়িত্ব নির্ধারণ : দলের লক্ষ্য অর্জনে দলের প্রত্যেক সদস্যকে কোনাে না কোনাে ভূমিকা পালন করতে হয় । প্রত্যেক সদস্যের পারস্পরিক সহযােগিতায় যথাযথ দায়িত্ব পালনের মাধ্যমেই দলীয় লক্ষ্য অর্জিত হয় । সমাজকর্মী দলের সদস্যদের কার কী ভূমিকা হবে তা নির্ধারণে সহায়তা করেন । 


    ২. কার্যকর দলীয় কাঠামাে গঠন : প্রত্যেক দলেরই একটি সাংগঠনিক কাঠামাে থাকে যা দলীয় লক্ষ্য ও আদর্শের উপর ভিত্তি করে গড়ে ওঠে । সঠিক ও পূর্ণাঙ্গ দলীয় কাঠামাে সহজেই দলকে তার অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে । সমাজকর্মী দলকে তার সাংগঠনিক কাঠামাে গঠনে সহায়তা করে থাকেন । 


    ৩. বাস্তবধর্মী উদ্দেশ্য ও আদর্শ নির্ধারণ : কতিপয় সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যকে কেন্দ্র করে দল গঠিত হয় । কিন্তু লক্ষ্য যদি বাস্তবমুখী হয় তবে তা অর্জন করা সম্ভব নয় । সেজন্য সমাজকর্মী তার জ্ঞান , দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার আলােকে দলকে বাস্তবধর্মী লক্ষ্য নির্ধারণে সহায়তা করে থাকেন । 


    ৪. কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন : প্রত্যেক দলের লক্ষ্য ও দল উপযােগী কর্মসূচি থাকে । দল সমাজকর্মী এক্ষেত্রে দলের সদস্যদের আশা - আকাঙ্ক্ষাকে মূল্য দিয়ে দলের লক্ষ্য উদ্দেশ্য ও এজেন্সির নীতিমালার সাথে সামঞ্জস্য রেখে বাস্তবায়ন উপযােগী দলীয় কর্মসূচি নির্ধারণ করে থাকেন । 


    ৫. সম্পদের সদ্ব্যবহার : সাধারণভাবে প্রাপ্ত বস্তুগত ও অবস্তুগত সম্পদ , দলের সম্পদ এবং প্রতিষ্ঠানের সম্পদ ও সমষ্টির সম্পদের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে তা যথাযথভাবে ব্যবহারের উপর দলের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি অনেকটাই নির্ভরশীল । এক্ষেত্রে সমাজকর্মী দলকে এমনভাবে সহায়তা করেন যাতে তারা তাদের বস্তুগত ও অবস্তুগত সম্পদ যথাযথভাবে ব্যবহার


    ৬ , গণতান্ত্রিক নেতৃত্বের বিকাশ ও সিদ্ধান্ত গ্রহণে সহায়তা করা : দলের সার্বিক উন্নয়নে যােগ্য নেতৃত্বের গুরুত্ব অপরিসীম এবং নেতৃত্ব অবশ্যই গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় উদ্ভূত হওয়া প্রয়ােজন । এক্ষেত্রে সমাজকর্মীর কর্তব্য হলাে দলকে এমনভাবে সহায়তা করা যাতে দলের অভ্যন্তরে গণতন্ত্র চর্চা অব্যাহত থাকে , সকলের অংশগ্রহণ ও মতামত গুরুত্ব পায় , সঠিক গড়ে ওঠে এবং দলের সদস্যরা কার্যকর সিন্ধান্ত গ্রহণে সক্ষম হয় । 


    ৭. দ্বন্দ্ব দূরীকরণ : দলে দ্বন্দ্ব - সংঘাত স্বাভাবিক বিষয় । কোনাে সক্রিয় দলে উপদল সৃষ্টি হওয়া অস্বাভাবিক নয় । কিন্তু দ্বন্দ্ব স্থায়ী হলে তা দলের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায় । দলে দ্বন্দ্ব সৃষ্টির মূল কারণ হলাে বঞ্চনা , নির্যাতন , অসন্তোষ , ক্ষোভ , ব্যক্তিত্বের পার্থক্য প্রভৃতি । সমাজকর্মী অসন্তোষ দূর করে বন্ধুত্বপূর্ণ ও পারস্পরিক সহযােগিতার সম্পর্ক সৃষ্টিতে দলকে সহায়তা করে থাকেন । 


    ৮. প্রতিষ্ঠানের সুযােগ - সুবিধা ও সীমাবদ্ধতা সম্পর্কে ধারণা প্রদান : দলের সুষ্ঠু গতিশীলতার জন্য প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য , কার্যক্রম , সুযােগ - সুবিধা , সীমাবদ্ধতা ইত্যাদি সম্পর্কে সদস্যদের পূর্ণজ্ঞান থাকা বাঞ্ছনীয় । এসব জ্ঞান থাকলে দলের সদস্যদের পক্ষে নিজ নিজ ভূমিকা পালন যেমন সহজতর হয় তেমনি তাদের প্রত্যাশাও বাঞ্ছিত সীমার মধ্যে আবদ্ধ থাকে । সমাজকর্মী সদস্যদের এসব বিষয়ে জ্ঞানদান করে থাকেন ।


    ২০২২ সালের এইচএসসি ৫ম সপ্তাহের সমাজকর্ম এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর



    Tag: এইচএসসি এসাইনমেন্ট ২০২২ সমাজকর্ম (৫ম সপ্তাহ) এসাইনমেন্ট -১, ২০২২ সালের এইচএসসি ৫ম সপ্তাহের সমাজকর্ম এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর, সমাজকর্মের ক্ষেত্রগুলোকে চিহ্নিতকরণ পূর্বক এটি পাঠে ব্যাক্তি,দল ও সমষ্টির উন্নতির সম্ভাব্যতা নিরুপণ

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন