এইচএসসি (ভোকেশনাল) এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান ১ম পত্র কম্পিউটার অপারেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স-১ (এসাইনমেন্ট ১) | ২০২১ সালের এইচএসসি (ভোকেশনাল) কম্পিউটার অপারেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স-১ এসাইনমেন্ট সমাধান (১ম পত্র)


    ২০২১ সালের এইচএসসি (ভোকেশনাল) কম্পিউটার অপারেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স-১ এসাইনমেন্ট সমাধান (১ম পত্র)


    সমাধানঃ

    ১ নং প্রশ্নের উত্তর 

    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি 
    Information and communications technology বা সংক্ষেপে ICT ) 
    সাধারণভাবে তথ্য প্রযুক্তির সমার্থক শব্দ হিসেবে ব্যবহৃত হয় । প্রকৃতপক্ষে তথ্য ও যাৈগাযােগ প্রযুক্তি এক ধরনের একীভূত যােগাযােগব্যবস্থা এবং টেলিযােগাযােগ , কম্পিউটার নেটওয়ার্ক ও তৎসম্পর্কিত এন্টারপ্রাইজ সফটওয়্যার , মিডলওয়্যার তথ্য সংরক্ষণ , অডিও - ভিডিও সিস্টেম ইত্যাদির এক ব্যবহারকারী খুব সহজে তথ্য গ্রহণ , সংরক্ষণ , সঞ্চালন ও বিশ্লেষণ করতে পারেন ।

    তথ্য আহরণ , সংরক্ষণ , প্রক্রিয়াকরণ ও বিতরণের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রক্রিয়া ও ব্যবস্থাকে তথ্যপ্রযুক্তি বা ইনফরমেশন টেকনােলজি বলা হয় । মূলত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক প্রযুক্তির সাথে মিলেমিশে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশ ঘটেছে । তারপরও এ প্রযুক্তি বিকাশে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে কম্পিউটার । কম্পিউটার - নির্ভর ইন্টারনেট প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ফলে সমগ্র বিশ্বটিই এখন এক বিশাল তথ্যভান্ডারে পরিণত হয়েছে । 

    প্রতিদিন মানুষের জীবনে নুতন নুতন তথ্যের সমাবেশ ঘটছে । যার ফলে তথ্যের পরিমাণ দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে । জীবনে বিভিন্ন দিকে মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণ দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ায় মানুষের কাছে প্রয়ােজনীয় সময়ে উপযুক্ত তথ্য পাওয়ার গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাচ্ছে । কারণ , মানুষের নিজের পক্ষে সব তথ্য মনে রাখা বা হাতের কাছে পাওয়া সম্ভব নয় । এ জন্য প্রয়ােজন ভালাে যােগাযােগব্যবস্থা , যার মাধ্যমে সহজে ও দ্রুত তথ্য পাওয়া যায় ।

    ২ নং প্রশ্নের উত্তর 

    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির ধরণ এবং উপাদান 

    তথ্য ও প্রযুক্তি মূলত এমন একটি প্রযুক্তি যা যােগাযােগ , টেলিযােগাযােগ , অডিও , ভিডিও , কম্পিউটিং , সম্প্রচার সহ আরাে নানাবিধ প্রযুক্তির সম্মিলনে দীর্গদিন ধরে চর্চার ফলে সমৃদ্ধি লাভ করে তথ্য প্রযুক্তি রূপে আবির্ভাব করেছে।কম্পিউটার এবং টেলিযােগাযােগ মাধ্যমে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ , সংরক্ষণ , প্রক্রিয়াকরণ , বিনিময় এবং পরিবেশনের ব্যবস্থাকে তথ্য প্রযুক্তি নামে অভিহিত করা হয় ।যােগাযােগ মাধ্যমের।তাই বর্তমানে তথ্য প্রযুক্তিকে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি বলেও অভিহিত করা হয় । বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তি ও নীতিমালা অনুযায়ী তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি হলাে - * যেকোনাে প্রকার তথ্যের উৎপত্তি , সংরক্ষণ , প্রক্রিয়াকরণ , সঞ্চালনে ব্যবহৃত প্রযুক্তি । 

    তথ্য ও যোগাযােগ প্রযুক্তির অবদানঃ 
    আধুনিক সভ্যতার ক্রমবিকাশে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির গুরুত্ব । অপরিসীম । তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির জন্য আজকের বিশ্ব বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করছে । সকল ক্ষেত্রেই তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির ব্যবহার রয়েছে।থ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির ব্যবহার ছাড়া বর্তমান বিশ্ব অচল ।


    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির উপাদান সমূহ হলাে : 
    ১.কম্পিউটার ও সংশ্লিষ্ট যন্ত্রপাতি 
    ২.কম্পিউটিং 
    ৩.রেডিও , টেলিভিশন 
    ৪.অডিও , ভিডিও 
    ৫.স্যাটেলাইট 
    ৬.কম্পিউটার নেটওয়ার্ক 
    ৭.ইন্টারনেট 
    ৮.আধুনিক টেলিযােগাযােগ 
    ৯.মডেম ইত্যাদি ।

    ৩ নং প্রশ্নের উত্তর 

    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির ব্যবহার  

    সাধারণভাবে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি বলতে বােঝায় তথ্য রাখা ও একে ব্যবহার করার প্রযুক্তি।তথ্য হলাে যেকোনাে বিষয় সম্পর্কে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্নের উত্তর যা ঐ বিষয় | সম্পর্কিত জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করে।তথ্য ও প্রযুক্তি মূলত এমন একটি প্রযুক্তি যা যােগাযােগ , টেলিযােগাযােগ , অডিও , ভিডিও , কম্পিউটিং , সম্প্রচার সহ আরাে নানাবিধ প্রযুক্তির সম্মিলনে দীর্গদিন ধরে চর্চার ফলে সমৃদ্ধি লাভ করে তথ্য প্রযুক্তি রূপে আবির্ভাব করেছে।কম্পিউটার এবং টেলিযােগাযােগ মাধ্যমে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ , সংরক্ষণ , প্রক্রিয়াকরণ , বিনিময় এবং পরিবেশনের ব্যবস্থাকে তথ্য প্রযুক্তি নামে অভিহিত করা হয় ।

    বর্তমানে তথ্য প্রযুক্তিকে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি বলেও অভিহিত করা হয়।বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তি ও নীতিমালা অনুযায়ী তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি হলাে = * যেকোনাে প্রকার তথ্যের উৎপত্তি , সংরক্ষণ , প্রক্রিয়াকরণ , সঞ্চালনে ব্যবহৃত প্রযুক্তি। 

    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির অবদানঃ 
    আধুনিক সভ্যতার ক্রমবিকাশে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির গুরুত্ব অপরিসীম । তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির জন্য আজকের বিশ্ব বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফলতা অর্জন করছে । সকল ক্ষেত্রেই তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির ব্যবহার রয়েছে।তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির ব্যবহার ছাড়া বর্তমান বিশ্ব অচল ।

    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির উল্লেখযােগ্য বৈশিষ্ট্যগুলাে হলােঃ 
    ১. অপচয় রােধ করে এবং দময় সাশ্রয়ী হয় । 
    ২. তথ্যের প্রাপ্যতা সহজ হয় । 
    ৩.তাৎক্ষণিক যােগাযােগ সম্ভব হয় । 
    ৪.প্রশিক্ষণ ও সংশ্লিষ্ট কর্মকাণ্ডের গতি বৃদ্ধি করে 
    ৫. দক্ষতা বৃদ্ধি করে । 
    ৬. ব্যবসা বাণিজ্যে লাভজনক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। 
    ৭. ই - কমার্সের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী পণ্যের বাজার সৃষ্টি করে । 
    ৮. ঘরে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন জিনিস কেনা বেচা করা যায় ।

    ৯. শিল্প প্রতিষ্ঠানে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে মানুষের কাজ সহজ হয় এবং উৎপাদন বৃদ্ধি পায় এবং মান বৃদ্ধি পায় । 
    ১০. মানবসম্পদের উন্নয়ন ঘটে । 
    ১১. ঘরে বসেই কম্পিউটার ব্যবহার করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জনপ্রিয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষা গ্রহণ করা যায় । 
    ১২. ঘরে বসেই পানি বিদ্যুৎ , গ্যাস ইত্যাদির বিল পরিশােধ করা যায় যার ফলে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয় না । 
    ১৩.সরকারি ব্যবস্থায় তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন দপ্তরের মধ্যে সমন্বয় সাধন করা সম্ভব হয়েছে । 
    ১৪. ঘরে বসে ই বিভিন্ন নাগরিক সেবা পাওয়া যায় খুব সহজেই । 

    তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি বিজ্ঞানের মহান অবদান যার উপর ভিত্তি করে বর্তমান পৃথিবী টিকে আছে। 

    ৪ নং প্রশ্নের উত্তর  

    সমাজ জীবনে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির প্রভাব 

    আধুনিক সভ্যতার ক্রমবিকাশে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির প্রভাব অপরিসীম । টেকসই উন্নয়ন , দারিদ্র্য বিমােচন , কর্মসংস্থান সৃষ্টি সর্বোপরি মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নে তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তির সরাসরি প্রভাব লক্ষনীয়। 

    আইসিটির উন্নয়ন মানব সমাজের প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রকে পরিবর্তিত করেছে এবং বিভিন্নভাবে আমাদের জীবন যাত্রাকে প্রভাবিত করছে । সমাজ জীবনে আইসিটির প্রভাব কখনাে ইতিবাচক আবার কখনাে নেতিবাচক । বর্তমান বিশ্বে আইসিটির অন্যতম প্রধান একটি সেবা হচ্ছে ইন্টারনেট । এর মাধ্যমে এখন খুব সহজেই এক স্থান থেকে অন্য স্থানে খবর পাঠানাে যায় । ব্যন্ডউইথ , ব্রডব্যন্ড ইত্যাদির কর্মদক্ষতা ও ইন্টারনেট সংযােগের গতির প্রেক্ষিতে যে কোন তথ্য এখন মুহূর্তের মধ্যে পৃথিবীর একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে পাঠানাে সম্ভব ।

    আবার ইন্টারনেট ব্যবহার করলে যােগাযােগ খরচ অন্যান্য যােগাযােগ | মাধ্যম যেমন- টেলিফোন , কুরিয়ার সার্ভিস এগুলাের তুলনায় অনেক কম হয় । ইন্টারনেটের মাধ্যমে মানুষ অনেক বেশি তথ্য সেবা পেতে পারে । কারণ , ইন্টারনেটের সংযােগ খরচ তুলনামূলক ভাবে অনেক । কম । এভাবেই আইসিটি যােগাযােগ ব্যবস্থার উন্নতি সাধন করছে । 

    আইসিটির অগ্রগতি ফলে দিন দিন কাগজের ব্যবহার হ্রাস পাচ্ছে । আইসিটির প্রভাবে শিক্ষা ব্যবস্থাও অনেক পরিবর্তন হয়েছে । দূরশীক্ষণ , অনলাইন টিউটোরিয়াল ইত্যাদির মাধ্যমে এখন ঘরে বসেই লেখাপড়া করা সম্ভব হচ্ছে ।


    আইসিটি উন্নয়নের ফলে কর্মক্ষেত্রেও অনেক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় । যেমন- আইসিটি কল্যাণে বিভিন্ন শিল্প কারখানায় রােবােট ব্যবহার করে ২৪ ঘন্টা কার্য পরিচালনা সম্ভব হচ্ছে যা কখনােই একজন মানুষকে দ্বারা সম্ভব নয় । আবার অনেক কাজ কর্মক্ষেত্রে না গিয়ে ও ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে করা যাচ্ছে।এর ফলে আসা যাওয়ার সময় ও খরচ বাঁচানাে যাচ্ছে । 

    বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে মিডিয়া ও প্রযুক্তির মূল ব্যবহারকারী হচ্ছে এদেশের তরুণ সমাজ । এটা অবশ্যই অনেক ভালাে দিক যে , আমাদের দেশের তরুণ - তরুণীরা বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে ।



    এইচএসসি (ভোকেশনাল) এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান ১ম পত্র কম্পিউটার অপারেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স-১ (এসাইনমেন্ট ১)




    Tag: এইচএসসি (ভোকেশনাল) এসাইনমেন্ট ২০২১ উত্তর /সমাধান ১ম পত্র কম্পিউটার অপারেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স-১ (এসাইনমেন্ট ১), ২০২১ সালের এইচএসসি (ভোকেশনাল) কম্পিউটার অপারেশন এন্ড মেইনটেন্যান্স-১ এসাইনমেন্ট সমাধান (১ম পত্র)
    Previous Post Next Post