নবম/৯ম শ্রেণি ক্যারিয়ার শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ (১০ম সপ্তাহ) | ৯ম শ্রেণির ১০ম সপ্তাহের ক্যারিয়ার শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১


    ৯ম শ্রেণির ১০ম সপ্তাহের ক্যারিয়ার শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১

    ১ . 
    বাবার পেশাঃ ডাক্তার বাবার বৃত্তিঃ বাজার করা , বাগান দেখাশুনা করা , মসজিদ ম্যানেজমেন্ট করা ইত্যাদি । 

    মায়ের পেশাঃ শিক্ষকতা মায়ের বৃত্তিঃ রান্না করা , ঘর গােছানাে , আমাদের লালন পালন ইত্যাদি ।

    ২ . 
    আমার লক্ষ্যঃ
    আমি ভবিষ্যতে একজন ডাক্তার হতে চাই । ডাক্তার একটি মহান পেশা।ডাক্তার হয়ে দেশের মানুষের সেবা করতে চাই।বিশেষ করে যারা গরিব , অভাবগ্রস্থ তাদের বিনামূল্যে সেবা করতে চাই ।

    বিভিন্ন ধাপ বা পরিকল্পনার পর্যায়গুলাে দেওয়া হলাে : 

    নিজেকে জানা : 
    ক্যারিয়ারের পথে অগ্রসর হওয়ার ক্ষেত্রে নিজেকে জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ । নিজের আগ্রহ , ভালাে লাগা , মন্দ লাগা , দক্ষতা বা যােগ্যতা , মূল্যবােধ ইত্যাদি সম্পর্কে জেনে ও বুঝে প্রতিটি ধাপে অগ্রসর হতে হবে । যে কাজ আমরা করতে ভালােবাসি তেমন কাজ যদি জীবনের অধিকাংশ সময়ই করা যায় তাহলে ক্যারিয়ার আনন্দময় হয়ে ওঠে । আবার যে কাজে আমাদের আগ্রহ নেই সে কাজ করলে ভালাে করার সম্ভাবনা কম থাকে । 

    বিভিন্ন ধরনের পেশা , বৃত্তি ও চাকরি সম্পর্কে জানা : 
    শুধু নিজের সম্পর্কে ভালােভাবে জানলেই চলবে না । নিজের পছন্দ ও দক্ষতার সাথে মানানসই পেশা বা বৃত্তি খুঁজে বের করা ও এর জন্য নিজেকে যােগ্য করে  তােলা ক্যারিয়ার গঠনের পূর্বশর্ত । এ ক্ষেত্রে প্রয়ােজনীয় দক্ষতা , যােগ্যতা , প্রশিক্ষণ , অভিজ্ঞতা ইত্যাদি বিষয় জানাও জরুরি । জানতে হবে নির্দিষ্ট পেশা বা বৃত্তিতে কী ধরনের চাকরি রয়েছে , সেগুলােতে কী কী দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করতে হয় ইত্যাদি । সঠিক তথ্য আমাদের সঠিক পেশা বা চাকরি বাছাইয়ে সাহায্য করবে ।

    লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নির্ধারণ এবং সে অনুযায়ী পরিকল্পনা করা : 

    ক্যারিয়ার বিকাশে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নির্ধারণ অপরিহার্য । নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য থাকলে বৃত্তি বা পেশা নির্বাচনে এবং এর জন্য প্রস্তুতি গ্রহণে সঠিক পরিকল্পনা করা যায় । ফলে ক্যারিয়ার গঠনে সফলতার সাথে অগ্রসর হওয়া সম্ভব । অনেক সময় যথেষ্ট যােগ্যতা ও আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও সুস্পষ্ট লক্ষ্য ও পরিকল্পনার অভাবে ক্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হয় ।

    চাকরি খোঁজা : 
    আমরা প্রায়ই শুনে থাকি কোনাে ব্যক্তি চাকরি খুঁজছেন । আবার পত্রপত্রিকায় ও ইন্টারনেটেও বিভিন্ন চাকরির বিজ্ঞাপন দেখতে পাই । ব্যক্তি যখন চাকরি করতে চান তখন বিজ্ঞাপন দেখে যাচাই - বাছাই করে আবেদনপত্র জমা দেন । এজন্য যথেষ্ট মনোেযােগ ও ধৈর্যের প্রয়ােজন । নিজের যােগ্যতা , দক্ষতা , আগ্রহ , মূল্যবােধ ইত্যাদি বিষয় লক্ষ রেখে সংশ্লিষ্ট চাকরির জন্য আবেদন করতে হয় । নিজের | শিক্ষাগত ও পেশাগত অভিজ্ঞতা উল্লেখ করে একজন ব্যক্তি তার জীবন বৃত্তান্ত ( Curriculum Vitae বা CV ) তৈরি করেন । এক্ষেত্রে সুন্দরভাবে গুছিয়ে নিজের দক্ষতা , অভিজ্ঞতা ও যােগ্যতাকে তুলে ধরা আবশ্যক । সংশ্লিষ্ট চাকরিদাতা সংস্থা কখনাে কখনাে লিখিত পরীক্ষা , মৌখিক পরীক্ষা বা সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকে । সেক্ষেত্রেও যথেষ্ট প্রস্তুতির প্রয়ােজন হয় ।

    চাকরি পরিবর্তন : 
    বিভিন্ন কারণে মানুষ চাকরি পরিবর্তন করে থাকে । এর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ ও প্রধান কারণ হলাে আরও ভালাে কোনাে চাকরির সুযােগ পাওয়া । আমরা জানি ক্যারিয়ার বলতে কোনাে একটি নির্দিষ্ট চাকরি বা পেশা বােঝায় না বরং জীবনের পথে বিভিন্ন চাকরি ও অভিজ্ঞতার সমন্বয়কে বােঝায় । তাই নিজের আগ্রহ , পছন্দ , দক্ষতা ইত্যাদি পরিবর্তনের পটভূমিতে নতুন চাকরির জন্য চেষ্টা করা ক্যারিয়ারেরই অংশ ।

    রৈখিক বিকাশ : 
    ক্যারিয়ারের রৈখিক বিকাশ বলতে নিম্ন পদ থেকে ধীরে ধীরে উপরের পদে উন্নীত হওয়াকে বােঝায় । যেমন সহকারী কমিশনার পদে যােগ দেওয়ার পর ধীরে ধীরে সচিব পদে উন্নীত হওয়া । 

    দক্ষতাভিত্তিক বিকাশ : 
    এক্ষেত্রে ব্যক্তির একটি নির্দিষ্ট কাজ বা বিষয়ে ক্রমাগত দক্ষ হওয়াকে গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করা হয় । যেমন একজন শিক্ষকের বিজ্ঞান বিষয়ে পড়ানাের ক্রমাগত চর্চার ফলে দক্ষতা বৃদ্ধি এক ধরনের দক্ষতাভিত্তিক বিকাশ । 

    শঙ্খিল বিকাশ : 
    ক্যারিয়ারের শঙ্খিল বিকাশ বলতে সময়ের সাথে সাথে ব্যক্তির জ্ঞান , দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার ক্রমবিকাশকে বােঝায় । এক্ষেত্রে ব্যক্তি একটি নির্দিষ্ট কর্মক্ষেত্রে , নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে কাজ করতে শুরু করেন । এর বাইরেও তার নানা রকম কাজের সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার সুযােগ থাকে । ধরা যাক , একজন বিজ্ঞান শিক্ষক । বিজ্ঞান ছাড়াও তথ্য ও যােগাযোেগ প্রযুক্তি বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিলেন । এরপর তিনি তথ্য ও যােগাযােগ প্রযুক্তি বিষয়ে অন্য একটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণকে প্রশিক্ষণ দেন । এভাবে তার ক্যারিয়ারের শঙ্খিল বিকাশ শুরু হয় ।

    ৩ . 
    দলে কাজ করা 

    দলে কাজ করা বলতে বােঝায় বয়স , নারী - পুরুষ , ধর্ম , বর্ণ , রাজনৈতিক মতাদর্শ নির্বিশেষে বিভিন্ন মানুষের সাথে একত্রে কাজ করা । দলের সদস্যদের ভালাে গুণ সম্পর্কে ধারণা থাকা , নিজের গুণাবলি ও সীমাবদ্ধতা সম্পর্কে সচেতন থাকা , দলের লক্ষ্যকে সুষ্ঠুভাবে তুলে ধরা এবং ঐকমত্যে কাজ করা এর অন্যতম বৈশিষ্ট্য । দলে কাজ করার আরও যে বৈশিষ্ট্য রয়েছে সেগুলাে হলাে নেতৃত্ব দেওয়া , অন্যদের পরামর্শ দেওয়া , অনুপ্রেরণা জোগান , বিভিন্ন মতামতকে শ্রদ্ধা করে একটি সিদ্ধান্তে পৌছানাে , সাফল্য অর্জনে দলগতভাবে অংশগ্রহণ ইত্যাদি । 

    দলে কাজ করার ক্ষেত্রে আমাকে উপরােক্ত বিষয়গুলাে সম্পর্কে ধারণা ও খেয়াল রাখতে হবে ।


    নবম/৯ম শ্রেণি ক্যারিয়ার শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ (১০ম সপ্তাহ)



    Tag: নবম/৯ম শ্রেণি ক্যারিয়ার শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১ (১০ম সপ্তাহ),  ৯ম শ্রেণির ১০ম সপ্তাহের ক্যারিয়ার শিক্ষা এসাইনমেন্ট সমাধান /উত্তর ২০২১


    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন