ষষ্ঠ/৬ষ্ট শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১ (১০ম সপ্তাহ) | ষষ্ঠ/৬ষ্ট শ্রেণির দশম সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১

বাংলাদেশের কয়েকটি প্রাচীন নগর সভ্যতার নাম , অবস্থান , প্রাপ্ত নিদর্শন , বাণিজ্যিক গুরুত্ব এবং সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য উল্লেখ করে ছকের মাধ্যমে তালিকা প্রস্তুত কর এবং বর্তমান বাংলাদেশের সংস্কৃতির সাথে প্রাচীন বাংলার সংস্কৃতির সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য অনুসন্ধান করে । একটি প্রতিবেদন তৈরি কর ।

    ষষ্ঠ/৬ষ্ট শ্রেণির দশম সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১


    তারিখঃ ২২ জুলাই ২০২১ 
    বরাবর , 
    প্রধান শিক্ষক ' ক ' উচ্চ বিদ্যালয় 
    ঢাকা । 
    বিষয়ঃ " বাংলাদেশের প্রাচীন সভ্যতা ও বর্তমান বাংলাদেশ ও প্রাচীন বাংলার সংস্কৃতির সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য " শীর্ষক প্রতিবেদন

    জনাব , বিনীত নিবেদন এই যে , আপনার আদেশ নং ম . ক . আ . ৪৩২৬ তারিখঃ ১৭ জুলাই ২০২১ অনুসারে " বাংলাদেশের প্রাচীন সভ্যতা ও বর্তমান বাংলাদেশ ও প্রাচীন বাংলার সংস্কৃতির সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য " শীর্ষক প্রতিবেদন টি নিম্নে পেশ করছি ।


    বর্তমান বাংলাদেশ ও প্রাচীন বাংলার সংস্কৃতির সাদৃশ্য ও বৈসাদৃশ্য : 

    বর্তমান বাংলাদেশে যে জীবনব্যবস্থা গড়ে উঠেছে তার শুরু ও বিকাশ হঠাৎ করে হয়নি । প্রাচীন বাংলার মানুষের হাতেই তৈরি হয়েছে এর ভিত্তি । আর কালে কালে নানা পরিবর্তনের ভিতর দিয়ে এর বিকাশ ঘটেছে । তাই আজকের বাংলাদেশের সমাজে অনেক পরিবর্তন এলেও আগের দিনের অনেক বৈশিষ্ট্য এখনাে অক্ষুন্ন রয়েছে । আবার কোনাে কোনাে ক্ষেত্রে একেবারে আলাদা ধারাও লক্ষ করা যায় ।

    মানুষের জীবনযাপনের মধ্য দিয়েই সংস্কৃতির প্রকাশ ঘটে । আজকের বাংলাদেশের সংস্কৃতি গভীরভাবে লক্ষ করলে দেখা যাবে এতে প্রাচীন বাঙালি সংস্কৃতির প্রভাব রয়েছে । বিশেষ করে বাঙালির মধ্যে অসাম্প্রদায়িক জীবনধারা বিকাশে প্রাচীন বাংলার প্রভাব স্পষ্ট ।

    সংস্কৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ধর্ম । বাংলাদেশের মানুষের বেশির ভাগ মুসলমান । কিন্তু এদেশে ইসলাম ধর্ম এসেছে মধ্যযুগে । তাই প্রাচীন বাংলায় ইসলামের প্রভাব ছিল না । তখন হিন্দুও বৌদ্ধ ধর্মই ছিল সমাজের প্রধান ধর্ম । এখানে প্রাচীন বাংলা বলতে বর্তমান বাংলাদেশ ও ভারতবর্ষের পশ্চিমবঙ্গের সীমানাকে বােঝানাে হচ্ছে । ধর্মবিশ্বাসের দিক থেকেও আমাদের দেশে বৈচিত্র্য কম নয় । ইসলাম , হিন্দু , বৌদ্ধ এবং অন্যান্য ধর্ম এখানে পালিত হচ্ছে । ইসলাম ধর্ম প্রচারে মুসলিম সুফি ও সাধকরাই প্রধান ভূমিকা পালন করেছেন । এভাবেই আজ বাংলাদেশ মুসলিম প্রধান দেশে পরিণত হয়েছে ।

    প্রাচীন বাংলার অর্থনীতি ছিল মূলত কৃষিনির্ভর । সেসময়ে কৃষিতে বাংলার উদ্বৃত্ত ছিল । ধান ছিল এই অঞ্চলের প্রধান ফসল । প্রাচীন বাংলায় উৎপাদিত গুড় ও চিনি বিদেশে রপ্তানি হতাে । তুলা , সরিষা ও পান চাষের জন্য বাংলাদেশের খ্যাতি ছিল । অর্থাৎ প্রাচীন বাংলা কৃষিতে সমৃদ্ধশালী ছিল । বর্তমান বাংলার কৃষির সাথে প্রাচীনকালে উৎপাদিত ফসলের পাশাপাশি যুক্ত হয়েছে বিদেশি নানা জাতের ফসল এবং আধুনিক যন্ত্রপাতি । 

    প্রাচীন যুগ থেকেই বাংলাদেশের তাতিরা মিহি সুতি ও রেশমি কাপড় বুনতে পারদর্শী ছিল । প্রাচীন বাংলার মসলিন কাপড় ছিল পৃথিবী বিখ্যাত । তখন উন্নত মানের মৃৎপাত্র , ধাতব পাত্র , অলংকার নির্মাণ হতাে। বর্তমান বাংলাদেশের সংস্কৃতিতে মসলিন কাপড়ের অস্তিত্ব না থাকলেও যারা মসলিন কাপড় তৈরি করতেন তাদের বংশধররা বর্তমানে জামদানি শাড়ি তৈরি করছেন । বর্তমান বাংলাদেশ পােশাক শিল্পে পৃথিবীর অন্য দেশ থেকে অনেক এগিয়ে । 

    বাঙালি সংস্কৃতির একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্যের হলাে এখানকার প্রকৃতি যেমন সমৃদ্ধ তেমনি এর রয়েছে ভাঙাগড়ার খামখেয়ালিপনা । এটিকে কোনভাবেই এড়িয়ে চলা সম্ভব ছিল না , এখনও অসম্ভব । 


    পরিশেষে বলা যায় যে , প্রাচীন বাংলার ও বর্তমান বাংলার সংস্কৃতির মধ্য বেশ কিছু বৈসাদৃশ্য লক্ষ্য করা গেলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাদৃশ্য বর্তমানেও বিদ্যমান ।


    প্রতিবেদকের নাম ও ঠিকানাঃ 
    ' খ ' ' 
    ক ' উচ্চ বিদ্যালয় 
    ৬ ষ্ঠ শ্রেণী , রােলঃ ০৫ 
    প্রতিবেদন তৈরির সময় রাত ৯ টা


    ষষ্ঠ/৬ষ্ট শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১ (১০ম সপ্তাহ) 



    Tag: ষষ্ঠ/৬ষ্ট শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১ (১০ম সপ্তাহ),  ষষ্ঠ/৬ষ্ট শ্রেণির দশম সপ্তাহের বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এসাইনমেন্ট সমাধান/উত্তর ২০২১
    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন