বঙ্গবাণী ও কপােতাক্ষ নদ উভয় কবিতাতেই মাতৃভাষা প্রীতির মাধ্যমে দেশপ্রেম প্রকাশ পেয়েছে মন্তব্যটির স্বপক্ষে তােমার মত উপস্থাপন কর-৯ম-নবম শ্রেণির ৮ম সপ্তাহের বাংলা এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১

 

বঙ্গবাণী ও কপােতাক্ষ নদ উভয় কবিতাতেই মাতৃভাষা প্রীতির মাধ্যমে দেশপ্রেম প্রকাশ পেয়েছে মন্তব্যটির স্বপক্ষে তােমার মত উপস্থাপন কর

       
       
       

    “ বঙ্গবাণী ও কপােতাক্ষ নদ উভয় কবিতাতেই মাতৃভাষা প্রীতির মাধ্যমে দেশপ্রেম প্রকাশ পেয়েছে ” -মন্তব্যটির স্বপক্ষে তােমার মত উপস্থাপন কর ।

    ৯ম-নবম শ্রেণির ৮ম সপ্তাহের বাংলা এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১


    সূচনাঃ মধ্যযুগের বাংলা কাব্যসাহিত্যের অন্যতম কবি আব্দুল হাকিম রচিত নূরনামা কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত ‘ বঙ্গবাণী ’ এবং বাংলা সনেট এর প্রবক্তা মাইকেল মদুসূদন রচিত চতুর্দশপদী কবিতাবলীর অন্তর্গত ‘ কপােতাক্ষ নদ ’ উভয় কবিতাতেই মাতৃভাষার প্রতি অকৃত্রিম ভালবাসার স্বরূপ দেখতে পাই । উপরে উল্লেখিত মন্তব্যটির সাথে আমি একমত পােষণ করছি এবং কেন করছি তার স্বপক্ষে আমার স্বব্যখ্যাত মতামত নিন্মের আলােচনার মাধ্যমে উপস্থাপন করছি ।

    দেশপ্রেম কীঃ দেশপ্রেম হল নৈতিক পাশাপাশি একটি রাজনৈতিক নীতি , যার যার নিজের জন্মভূমির প্রতি ভালবাসার উপর ভিত্তি করে একটি বােধ , পাশাপাশি পিতৃভূমির স্বার্থের জন্য ব্যক্তিগত স্বার্থ ত্যাগ করতে ইচ্ছুক । দেশপ্রেম শব্দটি এসেছে গ্রীক ভাষা থেকে ।

    বঙ্গবাণী কবিতায় দেশপ্রেমের স্বরূপঃ বঙ্গবাণী কবিতায় কবি আব্দুল হাকিম তাঁর মাতৃভাষা বাংলার প্রতি গভীর অনুরাগ প্রকাশ করেছেন তার লেখনীর মাধ্যমে । কবি বঙ্গবাণী কবিতা লেখার সময় অনুধাবন করতে পেরেছিলেন যে , বাংলা ভাষায় গ্রন্থ রচিত না হলে সাধারণ মানুষ তার অধিকার থেকে বঞ্চিত হবে । মানুষের নিজ ধর্ম পালনের মাধ্যমে আল্লাহর কৃপা পাওয়ার সমান অধিকার রয়েছে । আর আল্লাহ তাঁর সৃষ্ট সব পশু পাখি ও মানুষের ভাষাই বুঝতে পারেন । তাই কবি নিজ ভাষায় কাব্য রচনায় এবং ধর্মীয় উপাসনার পক্ষে তার মতামত প্রকাশ করেন ।

    তিনি বলেন , মারফত সম্পর্কে যারা অজ্ঞ তারাই হিন্দুয়ানি ভাষাজ্ঞানে বাংলা ভাষার প্রতি অনীহা প্রকাশ করে । তিনি বাংলার মাটিতে জন্মে যারা বাংলা ভাষার প্রতি বিরূপ মনােভাব পােষণ করেন তাদের জন্মপরিচয় নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন এই কবিতার মাধ্যমে । অর্থাৎ কবির এই বক্তব্যের মাধ্যমে স্পষ্টতই বুঝা যায় যে তিনি তার দেশ ও ভাষাকে কতটা ভালবাসতেন । বঙ্গবাণী কবিতায় কবি স্বভাষার বিরােধিতাকারীদের এদেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন । বিদেশি ভাষার প্রতি অনুরাগীদের কবি প্রছন্দ করেন না আত্নবিশ্বাসী কবি বিশ্বাস করেন , বাংলা ভাষায় যত উপদেশ বাণী রচিত হবে তা আমাদের মনকে পুনঃপুন জাগিয়ে তুলবে । কবি বলেছেন ,

    “ হে বঙ্গ ভান্ডারে তব বিভিধ রতন ;
    তা সবে , ( অবােধ আমি ! ) অবহেলা করি ,
    পর - ধন লােভে মত , করিনু ভ্রমন
    পরদেশে , ভিক্ষাবৃত্তি কী কুক্ষণে আচরি । ”

    এই বক্তব্যের মাধ্যমে স্পষ্টতই কবির দেশের প্রতি অপরিসীম প্রীতি ও ভালবাসা প্রকাশ পায় ।

    কপােতাক্ষ নদ কবিতায় দেশপ্রেমের স্বরূপঃ ‘ কপােতাক্ষ নদ ’ কবিতায় কবি যশােরের সাগরদাঁড়ির পাশ দিয়ে কুলকুল ধ্বনিতে বয়ে যাওয়া কপােতাক্ষের প্রতি তাঁর গভীর প্রেমবােধের পরিচয় দিয়েছেন । বিদেশে বসে কবি তার জন্মভূমির শৈশব - কৈশােরের বেদনা - বিধুর স্মৃতি রােমন্থন করেছেন , হয়েছেন কাতর । জন্মভূমির এ নদ যেন কবিকে মায়ের স্নেহডােরে বেঁধেছে , তাই কিছুতেই তাকে তিনি ভুলতে পারেন না । স্বদেশের জন্য হৃদয়ের কাতরতা কবি এই কবিতার মাধ্যমে বঙ্গবাসীর কাছে ব্যক্ত করেছেন । কবির এই মাতৃভূমির প্রতি ভালােবাসা ও স্মৃতিকাতরতা কপােতাক্ষ নদ ' কবিতার প্রধান উপজীব্য বিষয় । কবি তার লিম নকশা দেশকে স্বর করে বলেছেন

    ‘ প্রজারূপে রাজরূপ সাগরের দিতে
    বারি - রূপ কর তুমি ; এ মিনতি , গাবে
    বঙ্গজ জনের কানে , সখে , সখা - রীতে
    নাম তার , এ প্রবাসে মজি প্রেম - ভাবে ’

    উপসংহারঃ আমার পাঠ্যবই এ রচিত ‘ বঙ্গবাণী ’ ও ‘ কপােতাক্ষ নদ ' এই দুইটি কবিতাই মূলত মাতৃভাষা প্রীতির মাধ্যমে দেশপ্রেমেরই বহি : প্রকাশ মাত্র । উপরের আলােচনার মাধ্যমে একথা আরও সুস্পষ্ট হয় ।

    Tag:বঙ্গবাণী ও কপােতাক্ষ নদ উভয় কবিতাতেই মাতৃভাষা প্রীতির মাধ্যমে দেশপ্রেম প্রকাশ পেয়েছে মন্তব্যটির স্বপক্ষে তােমার মত উপস্থাপন কর,নবম-৯ম শ্রেণির ৮ম সপ্তাহের বাংলা এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১

    Previous Post Next Post

    👇 সকল ক্লাসের এসাইনমেন্ট নোটিফিকেশন আকারে সহজে পেতে ডাউনলোড করুন আমাদের এপ্লিকেশন 

    আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হতে ক্লিক করুন