ছােটদেরকে স্নেহ ও বড়দেরকে সম্মান করা প্রসঙ্গে ইসলামি বিধান | দাখিল ৮ম শ্রেণি আকাইদ ও ফিকহ ষষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান

প্রিয় মাদ্রাসা বোর্ডের শিক্ষার্থী বন্ধুরা আজকে আমরা তোমাদের দাখিল অষ্টম শ্রেণীর ষষ্ঠ সপ্তাহের আকাইদ ও ফিকহ এসাইনমেন্ট সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছি। আসা করি উপকৃত হবেন। শেয়ার করতে মিস করবেন না।

 ছােটদেরকে স্নেহ ও বড়দেরকে সম্মান করা প্রসঙ্গে ইসলামি বিধান | দাখিল ৮ম শ্রেণি আকাইদ ও ফিকহ ষষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান 

প্রশ্নঃ ছােটদেরকে স্নেহ এবং বড়দেরকে সম্মান কর প্রসঙ্গে ইসলামি বিধান । 

উওর:- ভূমিকাঃ বড় চাই সে বয়সে বা পদে হেক না কেন সব সময়ই শ্রদ্ধার সম্মানের । আর ছােটরা সর্বদা স্নেহ ভালােবাসা পাওয়ার দাবি নিয়ে বড়দের পথে পরিচালিত হয় । বড়দের শ্রদ্ধা করলে স্নেহ , ভালবাসা , আদর , সােহাগ , মমতা পাওয়া সহজ হয়ে উঠে । আর বড়রা ছােটদের স্নেহ করলে শ্রদ্ধা সম্মান পাওয়া দুস্কর হবেনা । মাবনতার ধর্ম ইসলাম আমাদেরকে বড়দের শ্রদ্ধ এবং ছােটদের স্নেহ করতে শিক্ষা প্রদান করে ।

আমাদের প্রিয়নবীর আদর্শ ছিল এটাই । প্রিয় নবী ( সাঃ ) বড়দের সম্মান দেখাতেন এবং ছােটদের স্নেহ , আদর ভালবাসা দিয়ে আগলে রাখতেন । নিম্নে কেরআন ও হাদিসের আলােকে বিস্তারিত আলােচনা করা হলাে ।
ছােটদেরকে স্নেহ ও বড়দেরকে সম্মান করা প্রসঙ্গে ইসলামি বিধান | দাখিল ৮ম শ্রেণি আকাইদ ও ফিকহ ষষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান

ছােটদেরকে স্নেহ ও বড়দেরকে সম্মান করা প্রসঙ্গে ইসলামি বিধান | দাখিল ৮ম শ্রেণি আকাইদ ও ফিকহ ষষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান

দাখিল অষ্টম শ্রেণীর ষষ্ঠ সপ্তাহের আকাইদ ও ফিকহ এসাইনমেন্ট সমাধান

ছোটদের প্রতি স্নেহ করা প্রসঙ্গে ইসলামের বিধানঃ-

রাসুল (সাঃ) ছােটদের স্নেহ , ভালােবাসা দিতে উৎসাহিত করেছেন । হজরত আয়েশা ( রা . ) হতে বর্ণিত । তিনি বলেন , কতক বেদুঈন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নিকট এসে বলল , আপনারা কি আপনাদের শিশুদের চুমু দেন । সাহাবীগণ বলেন , হ্যাঁ । তারা বলল , কিন্তু আল্লাহর শপথ ! আমরা চুমু দেই না । তখন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এরশাদ করেন , আল্লাহ যদি তােমাদের অন্তর থেকে দয়ামায়া তুলে নিয়ে থাকেন তাহলে আমি আর কি করতে পারি - ( মুসলীম -৬৪ , ইবনে মাজাহ  -৩৬৬৫ )
  • • অপর এক হাদিসে এসেছে , " হজরত আনাস ইবনে মালিক ( রা . ) হতে বর্ণিত । তিনি বলেন , রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর চাইতে শিশুদের প্রতি বেশী দয়াশীল আর কাউকে আমি দেখিনি ' - ( মুসলীম -৬৩ , আহমদ -১২১০২ , মিশকাতুল মাসাবীহ -৫৮৩১ ) । 
  • • অপর আরেক হাদিসে এসেছে , " আবু হুরায়রা ( রা . ) বর্ণনা করেন , একবার রাসুল ( সাঃ ) নিজ নাতি হাসান ( রা . ) - কে চুমু খেলেন । সে সময় তার কাছে আকরা বিন হারেস উপস্থিত ছিলেন । তিনি বললেন , ' আমি দশ সন্তানের জনক । কিন্তু আমি কখনও তাদের আদর করে চুমু খাইনি । তখন মহানবী ( সা . ) তার দিকে তাকিয়ে বললেন , ' যে দয়া করে না , তার প্রতিও দয়া করা হয় না ' । ( বােখারি , হাদিস নং : ৫৬৫১ )
  • • অপর আরেক হাদিসে এসেছে , আবদুল্লাহ বিন জাফর ( রা . ) বলেন , মহানবী ( সা . ) যখন কোনাে সফর শেষে বাড়িতে ফিরতেন , তখন বাচ্চারা তার আগমনের পথে গিয়ে অভ্যর্থনা জানাত । একবার তিনি তার সফর থেকে এসে আমাকে তার বাহনের সামনে বসালেন । অতঃপর নাতি হাসান , হােসেন ( রা . ) - কে বাহনের পেছনে বসালেন । তারপর আমাদের নিয়ে তিনি মদীনায় প্রবেশ করলেন । ( মুসলিম , হাদিস নং : ৬৪২১ )

 উপসংহারঃ আমাদের নবীর আদর্শ থেকে আমরা শিশুদের ভালােবাসা এবং বড়দের সম্মানের মধ্যে পরম শিক্ষা পাই । তিনি শিশুদের প্রতি পরম স্নেহ এবং বড়দের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন । হাদিস দ্বারা তাই প্রমানিত হয় , অতএব আমাদের ও উচিৎ ছােটদের স্নেহ কর বড়দের সম্মান করা ।

Tag:ছােটদেরকে স্নেহ ও বড়দেরকে সম্মান করা প্রসঙ্গে ইসলামি বিধান, দাখিল ৮ম শ্রেণি আকাইদ ও ফিকহ ষষ্ঠ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান,দাখিল অষ্টম শ্রেণীর ষষ্ঠ সপ্তাহের আকাইদ ও ফিকহ এসাইনমেন্ট সমাধান 


0/Post a Comment/Comments

Previous Post Next Post